সপ্তম ব্যালন ডি'অরের যোগ্য মেসি: জাভি

যোগ্য ফুটবলার হিসেবে লিওনেল মেসি তার ক্যরিয়ারের সপ্তম ব্যালন ডি'অর জিতেছেন কিনা তা নিয়ে চলছে তর্ক-বিতর্ক।
ছবি: টুইটার

যোগ্য ফুটবলার হিসেবে লিওনেল মেসি তার ক্যরিয়ারের সপ্তম ব্যালন ডি'অর জিতেছেন কিনা তা নিয়ে চলছে তর্ক-বিতর্ক। ভক্ত-সমর্থক, সাবেক-বর্তমান খেলোয়াড় ও ফুটবলবোদ্ধাদের অনেকেই দ্বিমত জানিয়েছেন। তবে বার্সেলোনার কোচ জাভি পাশে দাঁড়িয়েছেন তার এক সময়ের ক্লাব সতীর্থের। তিনি বলেছেন, যোগ্য হিসেবে মর্যাদাপূর্ণ এই পুরস্কারটি জিতেছেন আর্জেন্টিনার মহাতারকা।

গত সপ্তাহে প্যারিসে এক জাঁকজমকপূর্ণ অনুষ্ঠানে নিজের রেকর্ড আরও সমৃদ্ধ করে সপ্তমবারের মতো ব্যালন ডি'অর হাতে তুলে নেন মেসি। ২০০৯ সালে প্রথমবার এই পুরস্কারটি জিতেছিলেন তিনি। আর ২০১৯ সালের পর ফের ব্যালন ডি'অর জেতেন চলতি মৌসুমের শুরুতে বার্সা থেকে পিএসজিতে যোগ দেওয়া এই ফরোয়ার্ড। মাঝে ২০১০, ২০১১, ২০১২ ও ২০১৫ সালে বাকিদের পেছনে ফেলে সেরা হয়েছিলেন তিনি।

মেসি ব্যালন ডি'অর জেতার পর থেকেই শুরু হয়ে যায় আলোচনা-সমালোচনা। বিশেষ করে, দ্বিতীয় হওয়া বায়ার্ন মিউনিখের পোলিশ স্ট্রাইকার রবার্ত লেভানদভস্কির পুরস্কারটি জেতা উচিত ছিল বলে মন্তব্য করেন অনেকে। তবে সেসবকে পাত্তা দিচ্ছেন না জাভি।

বার্সেলোনার জার্সিতে মেসির সঙ্গে লম্বা সময় কাটানো সাবেক স্প্যানিশ ফুটবলার জাভি বলেছেন, ন্যায্যতা প্রতিষ্ঠিত হয়েছে, 'আমি মনে করি, এটা ফুটবলের ন্যায়বিচার। সে বিশ্বের সেরা খেলোয়াড় এবং সর্বকালের সেরা খেলোয়াড়। সে যোগ্য হিসেবে সপ্তম ব্যালন ডি'অর জিতেছে। এটা নিয়ে কোনো সংশয় নেই।'

বার্সা কোচ জাভির মতে, এমন বিতর্ক নতুন কিছু নয়, 'আমরা এটা ভাবতে পারি যে হয়তো লেভানদভস্কি যোগ্য ছিল অথবা অন্য খেলোয়াড়দের কেউ। কিন্তু প্রতি বছরই এমন বিতর্ক হয়ে থাকে।... যে মুহূর্তে খাম খুলে মেসিকে জয়ী ঘোষণা করা হয়েছে, তখন থেকে এটা ন্যায্য।'

বার্সেলোনার হয়ে গত মৌসুমে বড় কোনো ট্রফি জিততে পারেননি মেসি। কেবল কোপা দেল রেতে চ্যাম্পিয়ন হয় দলটি। তবে মৌসুম জুড়ে অসাধারণ পারফরম্যান্স করে বার্সাকে লা লিগার শিরোপা জয়ের কক্ষপথে রেখেছিলেন তিনিই।

জাতীয় দলে মেসি ছিলেন আরও উজ্জ্বল। আর্জেন্টিনার জার্সিতে কোপা আমেরিকায় চ্যাম্পিয়ন হন তিনি। ১৯৯৩ সালের পর দলটিকে প্রথম কোনো শিরোপা এনে দেওয়ার মূল কারিগরই ছিলেন তিনি। লা লিগা ও কোপা আমেরিকার সর্বোচ্চ গোলদাতাও হন। গত মৌসুমে সব প্রতিযোগিতা মিলিয়ে মোট ৪৭ গোল করেন তিনি।

Comments

The Daily Star  | English
national election

Human rights issues in Bangladesh: US to keep expressing concerns

The US will continue to express concerns on the fundamental human rights issues in Bangladesh including the freedom of the press and freedom of association and urge the government to uphold those, said a senior US State Department official

16m ago