এই সরকার আবার ক্ষমতায় এলে দেশের নারী-পুরুষ কারো নিরাপত্তা থাকবে না: মির্জা ফখরুল

‘এই সরকার জোর করে, রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে ক্ষমতায় টিকে আছে। দেশে গণতন্ত্র না থাকলে নারীদের নিরাপত্তা, অধিকারও নিশ্চিত করা যাবে না।'

বিএনপির চেয়ারপারসন বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও উন্নত চিকিৎসার জন্য বিদেশ পাঠানোর দাবি, তারেক রহমানের বিরুদ্ধে মামলা প্রত্যাহার এবং নির্বাচনকালীন নিরপেক্ষ সরকারের গঠনের এক দফা দাবিতে নয়াপল্টনে বিএনপির কেন্দ্রীয় কার্যালয়ের সামনে 'মহিলা সমাবেশ' অনুষ্ঠিত হয়েছে।

আজ শুক্রবার দুপুর আড়াইটার দিকে জাতীয়তাবাদী মহিলা দল আয়োজিত এই সমাবেশ শুরু হয়।

সমাবেশে গণতন্ত্র পুনরুদ্ধারে সব নারীদের এগিয়ে আসার আহ্বান জানিয়ে বিএনপির মহাসচিব মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর বলেন, 'এই সরকার জোর করে ক্ষমতায় থাকতে চায়। এরা কাউকেই ছাড় দেয়নি। গণতন্ত্রের জন্য আন্দোলন করতে নামা মা-বোনদেরও গ্রেপ্তার করে কারাগারে পাঠিয়েছে। অন্যায়ভাবে নির্যাতন করেছে, আমাদের এই অফিসের সামনেই অসংখ্য নারীদের অত্যাচার করেছে, নির্যাতন করেছে। তারা একটা অত্যাচারী সরকারে পরিণত হয়েছে।'

'এই সরকারের কাছে কেউ নিরাপদ না। গণতন্ত্র নিরাপদ না, মানুষ বিশেষ করে নারীরা নিরাপদ না' উল্লেখ করে বিএনপি মহাসচিব বলেন, 'আওয়ামী লীগ ও তাদের নেত্রী শেখ হাসিনা এত বেশি অহংকারী হয়ে উঠেছে যে যখন সব রাজনৈতিক দল বলছে যে আমরা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন চাই তখন তারা সে কথা উড়িয়ে দিয়ে বলছে, সংবিধানের অধীনে নির্বাচন হবে। সংবিধানের অধীনে নির্বাচন হতে পারে না। কারণ আপনারা ক্ষমতায় থাকলে নির্বাচন কখনোই সুষ্ঠু হবে না। আমাদের মা-বোনেরা ভোট দিতে পারবে না। গত ২ টার্মে তারা ভোটকেন্দ্রে গিয়ে ভোট দিতে পারে নাই। তাদেরকে বিতাড়িত করেছে।

'এই সরকার জোর করে, রাষ্ট্রযন্ত্রকে ব্যবহার করে ক্ষমতায় টিকে আছে। দেশে গণতন্ত্র না থাকলে নারীদের নিরাপত্তা, অধিকারও নিশ্চিত করা যাবে না। এই সরকার আবার ক্ষমতায় আসলে এই দেশের নারী, পুরুষ কোনো মানুষেরই নিরাপত্তা থাকবে না। আমাদের স্বাধীনতা হারাব, সার্বভৌমত্ব হারাব, চিরতরে আমাদের গণতন্ত্র-ভোটের অধিকার চলে যাবে,' বলেন তিনি।

বেগম খালেদা জিয়ার মুক্তি ও চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠানোর দাবি জানিয়ে তিনি বলেন, 'দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়া সারাজীবন গণতন্ত্রের জন্য সংগ্রাম করেছেন, লড়াই করেছেন। তাকে মিথ্যা মামলা সাজিয়ে কারাগারে বন্দি রেখে, এখন গৃহবন্দি রেখে অসুস্থ অবস্থায় মৃত্যুর দিকে ঠেলে দিচ্ছে। একটি মাত্র কারণ। তারা জানে যে, দেশনেত্রী খালেদা জিয়া যদি বাইরে থাকে তাহলে জনগণের স্রোতকে তারা বন্ধ করতে পারবে না। এবং তাদের ক্ষমতায় থাকা কঠিন হয়ে যাবে।

'আমরা পরিষ্কার করে বলে দিতে চাই, দেশনেত্রী বেগম খালেদা জিয়াকে মুক্তি দিয়ে তাকে চিকিৎসার জন্য বিদেশে পাঠান। পরিবারের পক্ষ থেকে তার বিদেশে চিকিৎসার জন্য যে ব্যবস্থা করতে বলা হয়েছে, আমরা মনে করি এই সরকার, অবৈধ হলেও তারা তাকে বাইরে চিকিৎসার জন্য নেবে,' বলেন তিনি।

মহিলা দলের কেন্দ্রীয় সাধারণ সম্পাদক সুলতানা আহমেদ এর সঞ্চালনায় এবং সভাপতি আফরোজা আব্বাসের সভাপতিত্বে এ সমাবেশ অনুষ্ঠিত হয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

Dozens injured in midnight mayhem at JU

Police fire tear gas, pellets at quota reform protesters after BCL attack on sit-in; journalists, teacher among ‘critically injured’

4h ago