ভয়াবহ দুর্ভিক্ষ ঝুঁকিতে ইয়েমেন: জাতিসংঘ

কয়েক দশকের মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে ভয়াবহ দুর্ভিক্ষের কবলে পড়ার ঝুঁকিতে রয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেন। শুক্রবার, জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস সর্তক করেন, ‘তাত্ক্ষণিক ব্যবস্থা না নিলে কয়েক লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে।’
ইয়েমেনের মারিবের আশ্রয়শিবির। ফাইল ফটো রয়টার্স

কয়েক দশকের মধ্যে বিশ্বের সবচেয়ে ভয়াবহ দুর্ভিক্ষের কবলে পড়ার ঝুঁকিতে রয়েছে যুদ্ধবিধ্বস্ত ইয়েমেন। শুক্রবার, জাতিসংঘের মহাসচিব আন্তোনিও গুতেরেস সর্তক করেন, ‘তাত্ক্ষণিক ব্যবস্থা না নিলে কয়েক লাখ মানুষের মৃত্যু হতে পারে।’

আলজাজিরা জানায়, ইরানের বিরুদ্ধে সর্বোচ্চ চাপ প্রয়োগের অংশ হিসেবে সম্প্রতি ইয়েমেনে হুতি বিদ্রোহীদের নিষিদ্ধ তালিকায় যুক্ত করার হুমকি দিয়েছে যুক্তরাষ্ট্র।

ত্রাণকর্মীদের আশঙ্কা, এ ধরনের পদক্ষেপের কারণে ইয়েমেনে জীবনরক্ষাকারী সহায়তা পৌঁছানো কঠিন হবে এবং সেখানকার পরিস্থিতি আরও খারাপ হবে।

শুক্রবার, জাতিসংঘের মহাসচিব গুতেরেস বলেন, ‘প্রভাবশালী সবাই যেন বিপর্যয় মোকাবিলায় জরুরি ভিত্তিতে ব্যবস্থা নেয় আমি সেই আহ্বান জানাই। আমি আরও অনুরোধ করব, ইতোমধ্যেই শোচনীয় অবস্থায় থাকা দেশটির বিরুদ্ধে কেউ যেন এমন কোনো পদক্ষেপ না নেয়, যা পরিস্থিতিকে আরও খারাপ করতে পারে।’

গুতেরেস আরও জানান, জাতিসংঘ সমন্বিত ত্রাণ কর্মসূচিতে তহবিলের পরিমাণ কমে যাওয়া, ইয়েমেনি মুদ্রায় অস্থিতিশীলতা ও ত্রাণ সংস্থাগুলোর বিরুদ্ধে যুদ্ধরত দেশগুলোর আরোপিত প্রতিবন্ধকতার কারণে দুর্ভিক্ষের ঝুঁকি বেড়েছে।

দেশটির ইরান-সমর্থিত হুতি বিদ্রোহী ও সরকারি বাহিনীর মধ্যে পাঁচ বছর ধরে যুদ্ধ চলছে।

২০১৫ সালে ইয়েমেনের প্রেসিডেন্ট মনসুর হাদিকে উচ্ছেদ করে রাজধানী দখলে নেয় হুতি বিদ্রোহীরা। সৌদি রাজধানী রিয়াদে নির্বাসনে যেতে বাধ্য হন হাদি। হুথিদের ক্ষমতা দখলের পর থেকেই হাদির অনুগত সেনাবাহিনীর একাংশ তাদের বিরুদ্ধে যুদ্ধ শুরু করে।

২০১৫ সালের মার্চে হুতি বিদ্রোহীদের বিরুদ্ধে মিত্রদের নিয়ে যুক্তরাষ্ট্রের সহায়তায় ‘অপারেশন ডিসাইসিভ স্টর্ম’ নামে সামরিক অভিযান শুরু করে সৌদি আরব ও সংযুক্ত আরব আমিরাত। সৌদি জোটের অভিযান শুরুর পর এ পর্যন্ত ১০ হাজারের বেশি মানুষ নিহত হয়েছে। এদের মধ্যে অনেক নারী-শিশুও রয়েছে বলে জানা গেছে।

Comments

The Daily Star  | English

Hefty power bill to weigh on consumers

The government has decided to increase electricity prices by Tk 0.34 and Tk 0.70 a unit from March, which according to experts will have a domino effect on the prices of essentials ahead of Ramadan.

5h ago