পেরুকে ৪ গোলে বিধ্বস্ত করল ব্রাজিল

নিলতন সান্তোস স্টেডিয়ামে স্বাগতিক ব্রাজিল জিতেছে ৪-০ ব্যবধানে।
neymar goal
ছবি: টুইটার

সবমিলিয়ে আগের আট ম্যাচের প্রতিটিতে জয়। তার ওপর টানা পাঁচটিতেই গোল হজম করেনি ব্রাজিল। দুর্দান্ত ছন্দে এগিয়ে যেতে থাকা এই দলটি রীতিমতো বিধ্বস্ত করল পেরুকে। কোপা আমেরিকার শিরোপা ধরে রাখার অভিযানে টানা দ্বিতীয় জয় তুলে নিল তিতের শিষ্যরা। 

শুক্রবার সকালে ‘এ’ গ্রুপের ম্যাচে মাঠে নেমেছিল দক্ষিণ আমেরিকা মহাদেশের সর্বোচ্চ আসরের গতবারের দুই ফাইনালিস্ট। সেই লড়াইয়ে শিরোপাধারীদের কাছে পাত্তা পায়নি রানার্স-আপরা। রিও দি জেনেইরোর নিলতন সান্তোস স্টেডিয়ামে স্বাগতিক ব্রাজিল জিতেছে ৪-০ ব্যবধানে। আগের ম্যাচে সেলেসাওরা ৩-০ গোলে উড়িয়ে দিয়েছিল ভেনেজুয়েলাকে।

প্রথমার্ধের শুরুর দিকে ব্রাজিলকে এগিয়ে দিয়েছিলেন অ্যালেক্স সান্দ্রো। দ্বিতীয়ার্ধের মাঝামাঝি সময়ে ব্যবধান দ্বিগুণ করেন নেইমার। শেষদিকে পেরুর নাকের জল-চোখের জল এক করে জালের ঠিকানা খুঁজে নেন এভারতন রিভেইরো ও রিচার্লিসন।

একাদশে ছয়টি পরিবর্তন নিয়ে খেলতে নামা ব্রাজিল বল দখলে আধিপত্য করার পাশাপাশি গোলমুখে শট নেয় ১৭টি। যার মধ্যে লক্ষ্যে ছিল নয়টি। অন্যদিকে, পেরুর সাতটি শটের দুইটি ছিল লক্ষ্যে।

sandro goal
ছবি: টুইটার

ম্যাচের প্রথম ভালো সুযোগে এগিয়ে যায় ব্রাজিল। দ্বাদশ মিনিটে এভারতনের ক্রস পুরোপুরি বিপদমুক্ত করতে পারেনি পেরুর রক্ষণভাগ। ডান প্রান্তে বল পেয়ে যান ম্যানচেস্টার সিটির স্ট্রাইকার গ্যাব্রিয়েল জেসুস। তার পাসে দারুণ ভলিতে লক্ষ্যভেদ করেন জুভেন্টাসের ডিফেন্ডার সান্দ্রো।

২৫তম মিনিটে ব্যবধান প্রায় বাড়িয়ে ফেলেছিল ব্রাজিল। ডি-বক্সের বাইরে থেকে ফাবিনহোর নেওয়া জোরালো শট অল্পের জন্য লক্ষ্যে থাকেনি। ছয় মিনিট পর দূরপাল্লার শটে এদারসনের পরীক্ষা নেন পেরুর রেনাতো তাপিয়া। ব্রাজিলের গোলরক্ষক অনায়াসে তাতে উতরে যান।

গোল হজমের ধাক্কা সামলে ঘুরে দাঁড়াতে মরিয়া পেরুর আরেকটি প্রচেষ্টা ব্যর্থ হয় ৩৯তম মিনিটে। কর্নারের বিনিময়ে ব্রাজিলকে রক্ষা করেন দানিলো। বিরতির ঠিক আগে ফের সুযোগ আসে সান্দ্রোর সামনে। কিন্তু নেইমারের পাসে তার শট ক্রসবারের ওপর দিয়ে চলে যায়।

দ্বিতীয়ার্ধে জমে ওঠে ম্যাচ। ব্রাজিলের আক্রমণের পাল্টা জবাব দিতে থাকে পেরু। ৬৩তম মিনিটে তাপিয়ার আলতো ধাক্কায় পিএসজির ফরোয়ার্ড নেইমার ডি-বক্সে পড়ে গেলে পেনাল্টির বাঁশি বাজিয়েছিলেন রেফারি। কিন্তু পরে ভিএআরের সাহায্য নিয়ে কয়েক দফা রিপ্লে দেখে সিদ্ধান্ত পাল্টান তিনি।

everton goal
ছবি: টুইটার

পাঁচ মিনিট পরই অবশ্য ব্রাজিলকে ফের উল্লাসে মাতান নেইমার। ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের মিডফিল্ডার ফ্রেদের কাছ থেকে বল পেয়ে প্রায় ২০ গজ দূর থেকে গড়ানো শটে নিশানা ভেদ করেন তিনি। জাতীয় দলের পক্ষে এটি তার ৬৮তম গোল। ভেনেজুয়েলার বিপক্ষে গত ম্যাচেও গোল পেয়েছিলেন তিনি।

জয় একরকম নিশ্চিত হয়ে যাওয়ায় এরপর উজ্জীবিত হয়ে ওঠে ব্রাজিল। ৮৫তম মিনিটে নেইমারের ফ্রি-কিক পোস্ট ঘেঁষে চলে যায়। দুই মিনিট পর বদলি রবার্তো ফিরমিনোর শট ঠেকান পেরুর গোলরক্ষক পেদ্রো গালেসে। তবে তার প্রতিরোধ টেকেনি। শেষদিকে আরও দুবার গোলের উৎসব করে ব্রাজিল।

৮৯তম মিনিটে আরেক বদলি ফরোয়ার্ড রিচার্লিসনের ক্রসে ব্রাজিলের জার্সিতে প্রথম গোলের স্বাদ নেন এভারতন। যোগ করা সময়ে স্কোরলাইন হয় ৪-০। পেরুর ডি-বক্সে জটলার মধ্যে লিভারপুলের ফরোয়ার্ড ফিরমিনোর শট গালেসে ফেরানোর পর রিচার্লিসনের প্রথম শটও প্রতিহত হয়। এরপর দারুণ দক্ষতায় ফিরতি শটে জাল খুঁজে নেন তিনি।

দুই ম্যাচে পূর্ণ ৬ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে আছে কোপার নয়বারের চ্যাম্পিয়ন ব্রাজিল। আগামী বৃহস্পতিবার তারা মুখোমুখি হবে কলম্বিয়ার। একই ভেন্যুতে ম্যাচটি শুরু হবে বাংলাদেশ সময় সকাল ৬টায়।

Comments

The Daily Star  | English
power supply during ramadan

No power cuts during Tarabi prayers, Sehri: PM

Sheikh Hasina also said prices of essentials will be stable during Ramadan

2h ago