বীর প্রতীক তারামন বিবির মহাপ্রয়াণ

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে নারীদের অসামান্য সাহসিকতার নজির স্থাপনকারী বীর প্রতীক তারামন বিবি আর নেই। শুক্রবার দিবাগত মধ্যরাতের পর কুড়িগ্রামের রাজীবপুর উপজেলায় নিজ বাসায় তিনি মারা যান।
তারামন বিবি

বাংলাদেশের মুক্তিযুদ্ধে নারীদের অসামান্য সাহসিকতার নজির স্থাপনকারী বীর প্রতীক তারামন বিবি আর নেই। শুক্রবার দিবাগত মধ্যরাতের পর কুড়িগ্রামের রাজীবপুর উপজেলায় নিজ বাসায় তিনি মারা যান।

তারামন বিবির ছেলে আবু তাহের দ্য ডেইলি স্টারকে জানান, গত রাত ১টা ৩৫ মিনিটে তার মা শেষ নিঃশ্বাস ত্যাগ করেন।

কুড়িগ্রামের সংকর মাধবপুর গ্রামে তারামন বিবি পাকিস্তানি বাহিনীর সঙ্গে সশস্ত্র সংগ্রামে অবতীর্ণ হয়েছিলেন। ১১ নম্বর সেক্টরের কমান্ডার আবু তাহেরের নেতৃত্বে মুক্তিযুদ্ধে অংশ নিয়েছিলেন তিনি। স্বাধীনতার পর ১৯৭৩ সালে বঙ্গবন্ধু শেখ মুজিবুর রহমানের সরকার তারামন বিবিকে বীর প্রতীক উপাধিতে ভূষিত করেছিল।

তারামন বিবি দীর্ঘদিন ধরে শ্বাসকষ্টের সমস্যা ও হৃদরোগে ভূগছিলেন। চিকিৎসার জন্য গত বছর আগস্ট মাসে তাকে ঢাকায় আনা হয়েছিল। ফুসফুসে তার একবার টিবির আক্রমণও হয়েছিল। 

১৯৭১ সালে তারামন বিবি যখন মুক্তিযুদ্ধে অংশ নেন তখন তার বয়স ছিল মাত্র ১৩-১৪ বছর। তার অসম সাহসিকতার স্বীকৃতি  হিসেবে স্বাধীনতার পর সরকার তাকে খেতাব প্রদান করলেও দীর্ঘ ২৪ বছর তিনি নিভৃতেই জীবন যাপন করেছিলেন। ১৯৯৫ সালে একজন গবেষক তার সন্ধান পান। সে বছর ১৯ ডিসেম্বর তৎকালীন প্রধানমন্ত্রী খালেদা জিয়া আনুষ্ঠানিকভাবে তারামন বিবির হাতে উপাধির স্মারক তুলে দেন।

Comments

The Daily Star  | English

Why do you need Tk 1,769.21cr for consultancy?

The Planning Commission has asked for an explanation regarding the amount metro rail authorities sought for consultancy services for the construction of a new metro line.

17h ago