একনেকে ৬ হাজার ৬৫১ কোটি টাকার ১০ প্রকল্পের অনুমোদন

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) প্রায় ছয় হাজার ৬৫১ কোটি ৩৪ লাখ টাকা ব্যয়ের ১০টি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ও একনেক এর চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ মঙ্গলবার একনেক এর সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।
প্রধানমন্ত্রী ও একনেক এর চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ মঙ্গলবার একনেক এর সভা অনুষ্ঠিত হয়। ছবি: পিআইডি

জাতীয় অর্থনৈতিক পরিষদের নির্বাহী কমিটি (একনেক) প্রায় ছয় হাজার ৬৫১ কোটি ৩৪ লাখ টাকা ব্যয়ের ১০টি প্রকল্পের অনুমোদন দিয়েছে। প্রধানমন্ত্রী ও একনেক এর চেয়ারপারসন শেখ হাসিনার সভাপতিত্বে আজ মঙ্গলবার একনেক এর সভায় এ অনুমোদন দেওয়া হয়েছে।

এ দশ প্রকল্পের মোট অর্থায়নের মধ্যে সরকারি অর্থায়ন হবে পাঁচ হাজার ২১৯ কোটি ৮১ লাখ টাকা, সংস্থার নিজস্ব অর্থায়ন ৭৯৪ কোটি তিন লাখ টাকা এবং বৈদেশিক অর্থায়ন ৬৩৭ কোটি ৫০ লাখ টাকা হবে বলে পরিকল্পনা মন্ত্রণালয়ের সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে।

আজ অনুমোদিত প্রকল্পগুলো হলো--সড়ক পরিবহন ও সেতু মন্ত্রণালয়ের পায়রা নদীর ওপর নলুয়া-বাহেরচর সেতু নির্মাণ এবং মধুপুর-ময়মনসিংহ জাতীয় মহাসড়কের যথাযথ মান ও প্রশস্তকরণ, 

নৌ-পরিবহন মন্ত্রণালয়ের চিলমারী এলাকায় নদী বন্দর নির্মাণ, জনপ্রশাসন মন্ত্রণালয়ের বিপিএটিসি’র প্রশিক্ষণ সক্ষমতা বৃদ্ধিকরণ, স্বাস্থ্য ও পরিবার কল্যাণ মন্ত্রণালয়ের বাংলাদেশ কলেজ অব ফিজিশিয়ান্স এন্ড সার্জন্স এর আধুনিকায়ন ও সম্প্রসারণ, পানি সম্পদ মন্ত্রণালয়ের সিরাজগঞ্জ জেলার শাহজাদপুরে যমুনা নদীর ডান তীর সংরক্ষণ, ঠাকুরগাঁও জেলার টাঙ্গন ব্যারেজ, বুড়ি বাঁধ ও ভুল্লি বাঁধ সেচ প্রকল্পের পুনর্বাসন, নদীতীর সংরক্ষণ ও সম্মিলিত পানি নিয়ন্ত্রণ অবকাঠামো নির্মাণ।

এছাড়াও, কৃষি মন্ত্রণালয়ের জীব প্রযুক্তির মাধ্যমে কৃষি বীজ উন্নয়ন ও বর্ধিতকরণ প্রকল্প, খাদ্য মন্ত্রণালয়ের দেশের বিভিন্ন স্থানে ধান শুকানো, সংরক্ষণ ও অন্যান্য আনুষঙ্গিক সুবিধাদিসহ আধুনিক ধানের সাইলো নির্মাণ প্রকল্প এবং বিদ্যুৎ, জ্বালানি ও খনিজ সম্পদ মন্ত্রণালয়ের বাখরাবাদ-মেঘনাঘাট-হরিপুর গ্যাস সঞ্চালন পাইপলাইন নির্মাণ প্রকল্পের অনুমোদন দেওয়া হয়েছে আজ একনেক সভায়।

সভায় পরিকল্পনা মন্ত্রী এম এ মান্নান, কৃষিমন্ত্রী মো. আব্দুর রাজ্জাক, তথ্য ও সম্প্রচার মন্ত্রী ড. হাছান মাহমুদ, স্থানীয় সরকার মন্ত্রী মো. তাজুল ইসলাম, শিল্পমন্ত্রী নূরুল মজিদ মাহমুদ হুমায়ূন, স্বাস্থ্যমন্ত্রী জাহিদ মালেক, বাণিজ্য মন্ত্রী টিপু মুনশি, মৎস্য ও প্রাণিসম্পদ মন্ত্রী শ. ম. রেজাউল করিম, পরিবেশ, বন ও জলবায়ু পরিবর্তন মন্ত্রী মো. শাহাব উদ্দিন, ভূমিমন্ত্রী সাইফুজ্জামান চৌধুরী প্রমুখ অংশ নেন।

Comments

The Daily Star  | English
Annual registration of Geographical Indication tags

Rushed GI status raises questions over efficacy

In an unprecedented move, the Ministry of Industries in Bangladesh has issued preliminary approvals for 10 products to be awarded geological indication (GI) status in a span of just eight days recently.

11h ago