ক্রিকেট

'মোস্তাফিজের সেরাটা দেওয়া এখনও বাকি'

চলতি বছর টি-টোয়েন্টি সংস্করণে মোস্তাফিজের পারফরম্যান্স রীতিমতো হতাশাজনক।
ছবি: এএফপি/ফিরোজ আহমেদ

সীমিত ওভারের ক্রিকেটে বাংলাদেশের পেস আক্রমণের সেরা অস্ত্র বিবেচনা করা হয় মোস্তাফিজুর রহমানকে। কিন্তু চলতি বছর টি-টোয়েন্টি সংস্করণে তার পারফরম্যান্স রীতিমতো হতাশাজনক। যদিও বাংলাদেশ দলের নির্বাচক হাবিবুল বাশার মনে করছেন, অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে আগামী বিশ্বকাপে মোস্তাফিজের অভিজ্ঞতা খুব দরকার হবে। এই বাঁহাতি পেসারের সেরাটা এখনও দেওয়ার বাকি বলেও উল্লেখ করেছেন তিনি।

২৭ বছর বয়সী মোস্তাফিজের বোলিংয়ের ধার ও কার্যকারিতা নিয়ে সাম্প্রতিক বছরগুলোতে চলছে বিস্তর আলোচনা। দেশের বাইরে বেশিরভাগ সময়েই তাকে ভুগতে দেখা যাচ্ছে। ডেথ ওভারেও প্রত্যাশিত প্রভাব রাখতে পারছেন না তিনি। সংযুক্ত আরব আমিরাতের মাটিতে এশিয়া কাপেও প্রতিপক্ষের ব্যাটারদের তাণ্ডবের শিকার হন। প্রথম রাউন্ড থেকে বিদায় নেওয়া বাংলাদেশের হয়ে দুই ম্যাচ খেলে মোস্তাফিজ মাত্র ১ উইকেট শিকার করেন। শারজাহতে আফগানিস্তানের বিপক্ষে অল্প পুঁজি নিয়েও জয়ের সম্ভাবনা জাগিয়েছিল টাইগাররা। তবে ১৭তম ওভারে তিনি ১৭ রান দিলে লড়াই থেকে ছিটকে যায় তারা।

২০২২ সালে এখন পর্যন্ত বাংলাদেশের খেলা দশ টি-টোয়েন্টির সবকটিতে খেলেন মোস্তাফিজ। ৪৩.৩৩ গড় ও ৮.৩৮ ইকোনমিতে তিনি শিকার করেছেন কেবল ৬ উইকেট। এই পরিসংখ্যান বলা চলে তার গোটা আন্তর্জাতিক টি-টোয়েন্টি ক্যারিয়ারের সঙ্গে একেবারে বিপরীত। কারণ, ৭১ ম্যাচে ৯২ উইকেট তিনি পেয়েছেন ২১.০৬ গড় ও ৭.৭৩ ইকোনমিতে।

বেহাল ফর্ম সত্ত্বেও টি-টোয়েন্টিতে মোস্তাফিজের প্রয়োজনীয়তার কথা শনিবার মিরপুরে বিসিবি কার্যালয়ে গণমাধ্যমের কাছে তুলে ধরেন হাবিবুল, 'মোস্তাফিজ আমাদের সিনিয়র খেলোয়াড়, পরীক্ষিত খেলোয়াড়। কিন্তু সাম্প্রতিক সময়ে দেশের বাইরে আমরা যতটুকু চাই, সেটা হয়তো হচ্ছে না। কিন্তু আমি মনে করি, ওর সেরাটা এখনও দিতে পারে। সেরাটা দেওয়া এখনও বাকি। বিশ্বকাপের মতো টুর্নামেন্টে এই রকম একজন অভিজ্ঞ খেলোয়াড় খুব দরকার। বিশেষ করে, টি-টোয়েন্টি ফরম্যাটে।'

তিনি যোগ করেন, বোলিং ভাণ্ডারে নতুন অস্ত্র যুক্ত করতে কাজ করছেন 'কাটার মাস্টার' খ্যাত মোস্তাফিজ, 'ও কিন্তু বিভিন্ন ডেলিভারি নিয়ে কাজ করছে। ওর স্টক ডেলিভারি ছিল স্লোয়ার, কাটার... এগুলোর উপরেই শুধু নির্ভর করে না (সাফল্য)। কারণ, ও জানে যে দেশের বাইরে এগুলো অতটা কার্যকরী হয় না, যতটা উপমহাদেশে হয়। ও কিছু ডেলিভারি নিয়ে কাজ করছে। আশা করি, সেগুলো নিয়ে বিশ্বকাপে ভালো করতে পারবে।'

Comments