টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ

বাংলাদেশের সাবেক দুই কোচের সুবিধা নিতে চায় নেদারল্যান্ডস

আধুনিক ক্রিকেটে গোপন বলতে কিছুই নেই। অ্যানালিষ্টদের সহায়তায় এখন প্রত্যেকেরই শক্তি-দুর্বলতা সব দলের জানা। তবে একজন কোচের চেয়ে ভালো জানাশোনা আর কার থাকতে পারে!
Logan van Beek

আধুনিক ক্রিকেটে গোপন বলতে কিছুই নেই। অ্যানালিষ্টদের সহায়তায় এখন প্রত্যেকেরই শক্তি-দুর্বলতা সব দলের জানা। তবে একজন কোচের চেয়ে ভালো জানাশোনা আর কার থাকতে পারে! সেই কোচ যদি আবার কাজ করেন তিন বছরের বেশি সময়ে। বাংলাদেশের বিপক্ষে ম্যাচে সেরকম সুবিধাই পাবে নেদারল্যান্ডস। বাংলাদেশের সাবেক প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো সেন্ট ভিনসেন্টে যে থাকবেন ডাচদের ডাগআউটেই। দলটির বর্তমান প্রধান কোচ রায়ান কুকও লম্বা সময় কাজ করেছেন এদেশে। ম্যানেজমেন্টে এ দুজনের থাকা তাদের বাড়তি সুবিধা দিবে বলে মনে করেন ডাচ অলরাউন্ডার লোগান ফন বিক।

ম্যাচপূর্ব সংবাদ সম্মেলনে নেদারল্যান্ডসের হয়ে ৬০টির বেশি ম্যাচ খেলা ফন বিক বলেন, 'আমার মনে হয় আমদের জন্য এটি বড় একটি সুবিধা। রাসেল এবং রায়ান দুজনেই (বাংলাদেশের) খেলোয়াড়দের বেশ ভালোভাবে জানে। তাদের লম্বা সময় কোচিং করিয়েছেন তারা। তাই আমাদের জন্য একটি প্রধান সুবিধা হিসেবে এটি আমরা পেছনের পকেটে রাখছি। বিগত কয়েকদিনে আমরা বেশ কয়েকটি মিটিং করেছি এবং তারা (বাংলাদেশের) খেলোয়াড়দের নিয়ে গভীরে গিয়েছে (আলোচনায়)।'

'কীভাবে আউট করতে পারি, কীভাবে ব্যাটিংয়ে মারতে পারি, ব্যাটার হিসেবে কোন অপশনগুলো নিতে পারি। এটা (ডমিঙ্গো ও কুকের থাকা) অবশ্যই আমাদের পক্ষে আছে। আমরা সেটা কাজে লাগানোর চেষ্টা করতে যাব। আপনি কখনো জানেন না, তাদের (বাংলাদেশের) হয়তো দুয়েকটি গোপন পরিকল্পনা থাকতে পারে কালকের জন্য। যেটি হতে পারে অপ্রত্যাশিত। কিন্তু আমরা আত্মবিশ্বাসী আছি কারণ তারা খেলোয়াড়দের বেশ ভালোভাবে জানে।'

২০১৯ সালের আগস্টে দক্ষিণ আফ্রিকান ডমিঙ্গো টাইগারদের প্রধান কোচ হিসেবে যোগ দেন। ২০২৩ সালের ডিসেম্বর পর্যন্ত এই পদে বাংলাদেশে কাজ করেছেন তিনি। এরপর দক্ষিণ আফ্রিকার ঘরোয়া দল লায়ন্সের প্রধান কোচের দায়িত্ব নেন ৪৯ বছর বয়সী এই প্রোটিয়া। এর পাশাপাশি তাকে গত ওয়ানডে বিশ্বকাপে নেদারল্যান্ডসের ডাগআউটে কোচিং স্টাফের সদস্য হিসেবে দেখা গিয়েছিল। এখন ২০২৪ বিশ্বকাপেও ডাচদের সহকারী কোচ হিসেবে কাজ করছেন তিনি।

সেখানে স্কট এডওয়ার্ডসের দলের প্রধান কোচ হিসেবে তিনি পাচ্ছেন রায়ান কুককে। যিনি আবার একটা সময় বাংলাদেশে কাজ করেছিলেন ডমিঙ্গোর অধীনেই। ২০১৮ সালে বাংলাদেশের কোচিং স্টাফে ফিল্ডিং কোচের ভূমিকায় যোগ করা হয় তাকে। এই দক্ষিণ আফ্রিকান এরপর সাকিব আল হাসানদের সঙ্গে কাজ করেছেন ২০২১ সালের টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপ পর্যন্ত। ২০২৩ ওয়ানডে বিশ্বকাপে বাংলাদেশকে যখন হারিয়েছিলেন ডাচরা, তখনও ড্রেসিংরুমে ডমিঙ্গো ও কুককে পেয়েছিলেন ফন বিকরা। এবার ২০২৪ বিশ্বকাপেও বাংলাদেশ দল নিয়ে তাদের দেওয়া ইনপুট কাজে লাগানোর আশা নেদারল্যান্ডসের।

Comments

The Daily Star  | English

Quota protests: Tensions run high on DU campus

The students of different halls, including female halls, brought out fresh protests last night claiming that the agitators demanding reform of quota system in government jobs have been insulted

25m ago