গান গাওয়া ছাড়তে হবে বলে অধিনায়ক হতে রাজী নন লায়ন!

সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে নেতৃত্ব পেয়েছেন প্যাট কামিন্স। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো একজন ফাস্ট বোলার হলেন অজিদের দলনেতা। তবে নতুন অধিনায়ক নির্বাচনের তালিকায় শুরুর দিকেই থাকতে পারতেন নাথান লায়নও। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো আগ্রহই দেখাননি এ অফস্পিনার।

সকল জল্পনা কল্পনার অবসান ঘটিয়ে অবশেষে নেতৃত্ব পেয়েছেন প্যাট কামিন্স। অস্ট্রেলিয়ার ক্রিকেট ইতিহাসে প্রথমবারের মতো একজন ফাস্ট বোলার হলেন অজিদের দলনেতা। তবে নতুন অধিনায়ক নির্বাচনের তালিকায় শুরুর দিকেই থাকতে পারতেন নাথান লায়নও। কিন্তু এ বিষয়ে কোনো আগ্রহই দেখাননি এ অফস্পিনার।

কিন্তু কেন?

আগ্রহ দেখালে স্বাভাবিকভাবেই কামিন্সের চেয়ে বেশ গিয়ে থাকতেন লায়ন। অজিদের হয়ে ১০০ টেস্ট ম্যাচ খেলেছেন তিনি। যেখানে কামিন্স খেলেছেন মাত্র ৩৪টি টেস্ট। যদিও দুইজনের অভিষেক একই টেস্ট ম্যাচ দিয়ে। তবে পারফরম্যান্স দিয়ে লায়ন দলে নিয়মিত থাকলেও কামিন্স ছিলেন আসা যাওয়ার মধ্যে। 

আর অস্ট্রেলিয়ার মতো দলের অধিনায়ক হওয়া স্বাভাবিকভাবেই বড় গর্বের বিষয়। বিশেষকরে অ্যাশেজ সিরিজের আগে অজি দলের নেতা হওয়া আলাদাভাবেই মহিমান্বিত করে তোলে যে কাউকে। সেখানে কোনো আগ্রহই দেখাননি লায়ন। আগের দিন ক্রিকেটভিত্তিক ওয়েবসাইট ক্রিকইনফোকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে মজা করেই বলেছেন এর কারণ।

'আমি যদি অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক হয়ে যাই, তাহলে আমাকে দলের গান গাওয়ার দায়িত্বটা অন্য কারো কাঁধে চাপিয়ে দিতে হবে। সত্যি বলতে (অস্ট্রেলিয়ার অধিনায়ক হওয়ার থেকে) আমি অস্ট্রেলিয়ার দলীয় গানে নেতৃত্ব দেওয়া অনেক বেশি পছন্দ করি।' - লায়নের এমন মন্তব্য তার কৌতুকবোধেরই পরিচয় দেয়।

অস্ট্রেলিয়ার ড্রেসিং রুমে দলীয়ভাবে গান গাওয়া ক্যাঙ্গারুদের বহু পুরনো এক রীতি। বর্তমানে দলের হয়ে এই কাজটি করেন লায়ন। অধিনায়ক হয়ে এই দায়িত্ব অন্য কাউকে ছাড়তে একেবারেই প্রস্তুত নন এ স্পিনার।

টিম পেইন দায়িত্ব ছাড়ার পর থেকেই আলোচনা কে হচ্ছেন অস্ট্রেলিয়া দলের অধিনায়ক। সপ্তাহ পার হতেই শুক্রবার (২৬ নভেম্বর) অস্ট্রেলিয়ার ৬৭তম টেস্ট অধিনায়ক হিসেবে কামিন্সের নাম ঘোষণা করে ক্রিকেট অস্ট্রেলিয়া। এ দৌড়ে অবশ্য ছিলেন সাবেক অধিনায়ক স্টিভ স্মিথও। তবে তাকে রাখা হয়েছে কামিন্সের সহকারী হিসেবে।

Comments

The Daily Star  | English

Bangladeshi students likely to fly home from Kyrgyzstan on chartered flights

There have been no major attacks in hostels of international students since last night

24m ago