আমিতো ভেবেছিলাম গোলটা আমারই: হেন্ডারসন

একের পর এক আক্রমণ। কিন্তু ভিয়ারিয়ালের প্রতিরোধে মুখ থুবড়ে পড়ছিল লিভারপুলের গোছানো আক্রমণগুলো। তবে শেষ পর্যন্ত, আত্মঘাতী গোলের সুবাদে ডেডলক ভাঙে। উল্লাসে মাতে রেড ডেভিলরা। তাতে অধিনায়ক হেন্ডারসনের উল্লাসটা যেন একটু বেশিই।

একের পর এক আক্রমণ। কিন্তু ভিয়ারিয়ালের প্রতিরোধে মুখ থুবড়ে পড়ছিল লিভারপুলের গোছানো আক্রমণগুলো। তবে শেষ পর্যন্ত, আত্মঘাতী গোলের সুবাদে ডেডলক ভাঙে। উল্লাসে মাতে রেড ডেভিলরা। তাতে অধিনায়ক হেন্ডারসনের উল্লাসটা ছিল একটু বেশিই।

বুধবার রাতে অ্যানফিল্ডে চ্যাম্পিয়ন্স লিগের দ্বিতীয় সেমি-ফাইনালের প্রথম লেগের ম্যাচে ভিয়ারিয়ালকে ২-০ গোলের ব্যবধানে হারিয়েছে লিভারপুল। প্রথমার্ধে গোলশূন্য থাকার পর দ্বিতীয়ার্ধে তিন মিনিটের ব্যবধানে দুটি গোল করে জয় নিশ্চিত করে স্বাগতিকরা। আত্মঘাতী গোলে এগিয়ে যাওয়ার পর ব্যবধান দ্বিগুণ করেন সাদিও মানে।

নিজেদের রক্ষণ জমাট করে প্রতিপক্ষকে আটকে দেওয়ার পারদর্শিতা আগের ম্যাচগুলোতে খুব ভালোভাবেই দেখিয়েছিল হলুদ জার্সিধারীরা। আগের দিনও শুরুটা করেছিল তেমনভাবেই। প্রথমার্ধে লিভারপুলের আক্রমণগুলো দানা বেঁধে উঠতে পারেনি। এমন দলের বিপক্ষে শেষ পর্যন্ত গোল আদায় করে নিতে পাড়ায় উল্লাসটা একটু বুনো হতেই পারে।

লিভারপুল অধিনায়ক হেন্ডারসনের উদযাপনও ছিল বাঁধভাঙ্গা। তবে ম্যাচ শেষে বিটি স্পোর্টসের ক্যামেরায় সেই আত্মঘাতী গোলটি নিয়ে একটু মজায় করেই বলেন, 'আসলেই তাই? আমিতো ভেবেছিলাম এটা সরাসরি ঢুকেছে। আমারই গোল।'

তবে সেই গোলে নিজেদের কিছুটা ভাগ্যবান মানছেন হেন্ডারসন, 'প্রথমটায় আমাদের ভাগ্য সঙ্গে ছিল। ভালো বিল্ডআপ ছিল তবে ভাগ্যবান ছিলাম। ডিফেন্ডার ও গোলরক্ষকের নাগালের বাইরে চলে যায়। তখন একটি দল নিচে নেমে রক্ষণ করে তখন আপনার কিছুটা ভাগ্যেরও প্রয়োজন হয়।'

নিজেদের উপর বিশ্বাস ছিল বলেই জয় পেয়েছেন বলে মনে করেন এ মিডফিল্ডার, 'তারা খুবই সংগঠিত দল এবং আমরা জানতাম তারা এ ম্যাচ কঠিন করে তুলবে। এটা খুবই গুরুত্বপূর্ণ ছিল যে আমরা চালিয়ে গিয়েছি এবং বিশ্বাস করেছি যে শেষ পর্যন্ত আমরা তাদের ভেঙে ফেলব। আমরা দুটি ভালো গোল দিয়ে সেটা করেছি।'

ভিয়ারিয়ালের মাঠে যে কাজটা কঠিন হবে তা ভালো করেই জানেন অধিনায়ক, 'আমরা এটা করতে পেরেছি। তাদের প্রতিরোধ ভাঙতে পেরেছি। খেলার অধিকাংশ সময় পাল্টা চাপগুলো সত্যিই ভালো ছিল। এটা তাদের জন্য কঠিন করে তুলেছিল। তবে ম্যাচটি এখনও জীবিত এবং ভিয়ারিয়ালে এটা কঠিন হবে।'

Comments

The Daily Star  | English

The bond behind the fried chicken stall in front of Charukala

For over two decades, a business built on mutual trust and respect between two people from different faiths has thrived in front of Dhaka University's Faculty of Fine Arts

7h ago