বিএসএফের গুলিতে ২ বাংলাদেশি কিশোর নিহত

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার খোসালপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে দুই বাংলাদেশি কিশোর নিহত হয়েছে।

ঝিনাইদহের মহেশপুর উপজেলার খোসালপুর সীমান্তে ভারতীয় সীমান্ত রক্ষী বাহিনীর (বিএসএফ) গুলিতে দুই বাংলাদেশি কিশোর নিহত হয়েছে।

মঙ্গলবার সকাল ১১টার দিকে সীমান্তের ওপারে ভারতের নদীয়া জেলার হাসখালি থানার কুমারী ক্যাম্পের বিএসএফ সদস্যরা বাংলাদেশি কিশোরদের লক্ষ্য করে গুলি ছুঁড়লে তারা ঘটনাস্থলেই মারা যায়। পরে বিএসএফ সদস্যরা তাদের লাশ ভারতের অভ্যন্তরে নিয়ে যায়।

নিহতরা হলো: মহেশপুর উপজেলার খোসালপুর গ্রামের শহিদুল ইসলাম তরফদারের ছেলে সোহেল রানা (১৪) এবং শ্যামকুড় গ্রামের কাউসার আলীর ছেলে হারুন অর রশিদ (১৩)। সোহেল রানা বাকোশপোতা মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র ও হারুন অর রশিদ শ্যামকুড় মাধ্যমিক বিদ্যালয়ের ছাত্র।

এলাকাবাসী জানান, উপজেলার খোশালপুর সীমান্তে খোলপুর গ্রামের শহিদুল ইসলাম তরফদারের ছেলে সোহেল রানাসহ কয়েকজন ব্যক্তি মঙ্গলবার সকাল ৯টার দিকে সীমান্তে গরু আনতে যান। গরু নিয়ে ফেরার সময় সকাল ১১টার দিকে সীমান্তের কাছাকাছি পৌঁছালে বিএসএফ সদস্যরা তাদেরকে লক্ষ্য করে ৩/৪ রাউন্ড গুলি ছোঁড়ে। এতে ঘটনাস্থলে দুজন মারা যায়। অপর এক ব্যক্তির পায়ে গুলি নিয়ে আহত অবস্থায় পালিয়ে আসেন।

বিজিবির খোসালপুর ক্যাম্প কমান্ডার আবু তাহের জানান, “আমি সিভিল সোর্স মারফত দুই বাংলাদেশি কিশোরের নিহত হওয়ার বিষয়ে নিশ্চিত হয়েছি। গরু পাচারকারীদের খপ্পরে পড়ে নিহত দুই কিশোর ভারতে অভ্যন্তরে ঢুকে। তাদেরকে টাকার লোভ দেখানো হয়েছিলো বলে ধারণা করা হচ্ছে। লাশ দুইটির একটি কলা বাগানের মধ্যে পড়ে আছে বলে সোর্স আমাকে নিশ্চিত করেছে।”

আবু তাহের আরও জানান, “দুপুর দুইটার দিকে আমরা প্রতিবাদ পত্র দিতে গিয়েছি, কিন্তু বিএসএফ আমাদের চিঠি গ্রহণ করেনি।”

স্থানীয় নেপা ইউনিয়নের চেয়ারম্যান শামছুল হক মৃধা ও সদস্য প্রহ্লাদ হালদার এ ঘটনা নিশ্চিত করেছেন। শামছুল হক মৃধা বলেন, “খোসালপুর সীমান্তে দুজন নিহত হওয়ার খবর পেয়েছি। তবে তাদের নাম-পরিচয় কিছুই পায়নি।”

মহেশপুর থানার ওসি আহম্মদ কবির জানান, “আমিও এ ধরণের খবর পেয়েছি। তবে, বিজিবির পক্ষ থেকে এখনো কিছু জানানো হয়নি।”

ঝিনাইদহ-৫৮ বিজিবির অধিনায়ক লেফটেনেন্ট কর্নেল জিল্লুর রহমান জানান, “ইতোমধ্যে চিঠি দেওয়া হয়েছে এবং ব্যাটেলিয়ন পর্যায়ে পতাকা বৈঠকের চেষ্টা করা হচ্ছে। খোসালপুর সীমান্তের বিপরীতে দুজন নিহত হওয়ার খবর শুনে আমি সীমান্তের দিকে রওনা হচ্ছি। পরে, নিশ্চিত হয়ে আপনাদের বলতে পারবো।”

Comments

The Daily Star  | English
Dhaka brick kiln

Dhaka's toxic air: An invisible killer on the loose

Dhaka's air did not become unbreathable overnight, nor is there any instant solution to it.

13h ago