ভারতে বাংলাদেশি নারী অপহৃত, ছয় ঘণ্টায় উদ্ধার

​ভারতের উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলায় বাংলাদেশি এক নারী পর্যটক অপহরণ হওয়ার ছয় ঘণ্টার মধ্যে তাকে উদ্ধার করেছে দেশটির পুলিশ প্রশাসন। অপহৃতার বাড়ি বাংলাদেশের গোপালগঞ্জ জেলায়।
উদ্ধারের পর অপহৃতাকে বনগাঁ থানার হেফাজতে রাখা হয়েছে। ছবি: সংগৃহীত

ভারতের উত্তর চব্বিশ পরগণা জেলায় বাংলাদেশি এক নারী পর্যটক অপহরণ হওয়ার ছয় ঘণ্টার মধ্যে তাকে উদ্ধার করেছে দেশটির পুলিশ প্রশাসন। অপহৃতার বাড়ি বাংলাদেশের গোপালগঞ্জ জেলায়।

শুক্রবার বিকালে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্যের উত্তর চব্বিশ পরগনা জেলার সীমান্ত শহর বনগাঁর জয়ন্তীপুর বাজার এলাকায় একদল ভারতীয় দুষ্কৃতিকারী অপহরণের ঘটনাটি ঘটায়। অপহৃতার ভগ্নীপতি, তার স্ত্রী ও কন্যা গোটা ঘটনার প্রত্যক্ষদর্শী। তারা সবাই ভিসা নিয়ে সেদিনই ভারতের প্রবেশ করেছিলেন।

এদিকে শুক্রবার রাতে বনগাঁ মহকুমার পুলিশ সুপার অনিল বিশ্বাসের সঙ্গে যোগাযোগ করা হলেও তাকে মোবাইল ফোনে পাওয়া যায়নি। তবে বনগাঁ থানার পুলিশ সূত্র অপহরণের ঘটনাটি নিশ্চিত করেছে। পেট্রাপোল থানার ওসিও ঘটনার সত্যতা স্বীকার করেছেন।

পুলিশ সূত্র জানায়, অপহৃতার পরিবারের সঙ্গে বনগাঁর কিছু লোকের ব্যবসা সংক্রান্ত যোগাযোগ ছিল। ওই সূত্র ধরেই অপহরণের ঘটনাটি ঘটেছে। ঘটনার বর্ণনা দিয়ে অপহৃতার ভগ্নীপতি বনগাঁয় সাংবাদিকদের বলেন, স্থানীয় জয়ন্তীপুর বাজারের সামনে একটি মাইক্রোবাস এসে তাদের অটো রিকশা আটকে দেয় এবং কয়েকজন যুবক বের হয়ে অপহৃতাকে নেমে আসতে বলেন।

কারণ হিসেবে দুর্বৃত্তরা বলে, অপহৃতার স্বামীর কাছে তারা দেড় লক্ষ টাকা পায়। সেটা রাতের মধ্যে পৌঁছে দিলেই তাকে ছেড়ে দেওয়া হবে। এই কথা বলে তাকে অপহরণ করা হয়।

সন্ধ্যায় বনগাঁ থানায় এই ঘটনার লিখিত অভিযোগ করা হলে পুলিশ সীমান্তের বিভিন্ন এলাকায় তল্লাশি শুরু করে। স্থানীয় সময় রাত সাড়ে দশটা নাগাদ পেট্রাপোলের পিরোজপুর গ্রাম থেকে অপহৃতাকে উদ্ধার করা হয়। রাতেই দুজন অপহরণকারীকেও গ্রেফতার করেছে পশ্চিমবঙ্গ রাজ্য পুলিশ। তাদের আজ আদালতে তোলা হবে।

উদ্ধারের পর অপহৃতাকে বনগাঁ থানার হেফাজতে রাখা হয়েছে। শনিবার আদালতের মাধ্যমে তাকে স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করার কথা রয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English

Home minister says it's a planned murder

Three Bangladeshis arrested; police yet to find his body

46m ago