৮ হাজার কোটি টাকায় ইভিএম কেনা জাতির সঙ্গে মশকরা: মির্জা ফখরুল

আরও দুই লাখ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কেনার নির্বাচন কমিশনের প্রকল্প ‘জাতির সঙ্গে মস্করা’ বলে মন্তব্য করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।
মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর। স্টার ফাইল ফটো

আরও দুই লাখ ইলেকট্রনিক ভোটিং মেশিন (ইভিএম) কেনার নির্বাচন কমিশনের প্রকল্প 'জাতির সঙ্গে মস্করা' বলে মন্তব্য করেছেন মির্জা ফখরুল ইসলাম আলমগীর।

বুধবার সকালে গুলশানে চেয়ারপারসনের কার্যালয়ে এক সংবাদ সম্মেলনে বিএনপি মহাসচিব এই মন্তব্য করেন।

তিনি বলেন, 'আপনারা দেখেন যে, কী রকম মস্তকরা হচ্ছে জাতির সঙ্গে। মানুষ একটা নিরপেক্ষ সরকারের অধীনে নির্বাচন চাচ্ছে। আওয়ামী লীগ ছাড়া প্রত্যেকটি রাজনৈতিক দল বলেছে ইভিএম চাই না।'

'সেখানে তারা (ইসি) আজকে একশ পঞ্চাশটি আসনের জন্য আরও ইভিএম কেনার জন্য ৮ হাজার কোটি ৭১১ কোটি টাকা চেয়েছে। মগের মল্লুক। কারণ এদেশে তো কোনো জবাবদিহি করতে হয় না।'

মির্জা ফখরুল বলেন, 'কয়েকদিন আগে মন্ত্রিপরিষদ সচিব প্ল্যানিং কমিশনের বৈঠকে খুব স্পষ্ট করে বলেছেন যে এখানে বেশির ভাগ প্রকল্প তৈরি করা হয় চুরির জন্য। এখানে মধ্য রাতে ঋণ চুক্তি করা হয়। এই হচ্ছে সার্বিক অবস্থা।'

দেশে সুশাসন নেই দাবি করে তিনি বলেন, 'দেয়ার ইজ নো গভর্নেন্স। এরকম একটা ভয়াবহ ব্যর্থ রাষ্ট্রে পরিণত করেছে এই আওয়ামী লীগ।'

'পুলিশ তথ্য সংগ্রহের নামে হয়রানি করছে'

মির্জা ফখরুল বলেন, 'সম্প্রতি লক্ষ্য করা যাচ্ছে দেশের প্রত্যন্ত অঞ্চল পর্যন্ত পুলিশ বিএনপিসহ বিরোধী দলীয় নেতা-কর্মীদের ব্যক্তিগত তথ্য সংগ্রহ করার নামে হয়রানি করছে। বিভিন্ন এলাকায় পুলিশ রাজনৈতিক কর্মীদের একজনের কাছ থেকে অন্যজনের তথ্য সংগ্রহ করছে। বিএনপি ও অঙ্গ সংগঠনগুলোর কমিটির তালিকাও তারা সংগ্রহ করছে।'

'পুলিশের এই ধরনের কর্মকাণ্ড সংবিধান, ফৌজদারি কার্যবিধি, পুলিশ আইন বা পুলিশ বিধি কিংবা অন্য কোনো আইন দ্বারা কোনোভাবে সমর্থনযোগ্য নয়। এটা নাগরিকের গোপনীয়তার অধিকার ক্ষুণ্ণ করছে। এভাবে নাগরিকের আইনি অধিকার ও ব্যক্তি স্বাধীনতার ওপর নগ্ন হস্তক্ষেপে সংবিধানের ৩১, ৩২ ও ৪৩ অনুচ্ছেদের সুস্পষ্ট লঙ্ঘন হচ্ছে। বিরাজমান আতঙ্কের পরিবেশকে ভয়াবহ করে তোলা হচ্ছে।'

মির্জা ফখরুল বলেন, 'ভীতি প্রদর্শনের এটা তাদের চলমান প্রক্রিয়া। যখনই বিরোধী দলের নেতা-কর্মীরা আন্দোলন শুরু হয় তখন পুলিশ বাড়ি বাড়ি গিয়ে এই বিষয়গুলো জানতে চায়। আমার বাসায় আগেও এসেছিল, আবার এসেছে।'

'এটা তাদের করার কোনো সাংবিধানিক ক্ষমতা নাই। সেখানে তারা শুধুশুধু মানুষকে হয়রানি করার জন্য, আন্দোলনকে দমন করার জন্য একটা কৌশল হিসেবে ব্যবহার করছে। আমরা তাদেরকে এ থেকে বিরত থাকার আহ্বান জানাচ্ছি।'

আওয়ামী লীগের সাধারণ সম্পাদক ওবায়দুল কাদেরের বক্তব্য নিয়ে বিএনপি মহাসচিব বলেন, 'গতকালও তিনি বলেছেন, আমরা কী আঙুল মুখে দিয়ে চুষব? সুতরাং, তিনি যে বলছেন হামলা করবে না। সেটা প্রতারণা কথা ছিল।'

Comments

The Daily Star  | English

Youth killed falling into canal in Ctg

A young man was killed falling into a canal in the Asadganj area of port city this afternoon

49m ago