প্রস্তুতি ম্যাচে মুশফিক, মাহমুদউল্লাহ ও সাব্বিরের ব্যাটে রান

বিপিএল ব্যস্ততার পর নিউজিল্যান্ডে গিয়ে ওয়ানডে সিরিজে নামার আগে খুব বেশি প্রস্তুতির সুযোগ ছিল না বাংলাদেশের। এখনো নিউজিল্যান্ডের পথে আছেন অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজাসহ চারজন। এর আগে দুই দফায় যাওয়া ক্রিকেটারদের নিয়ে কোনরকমে তাই একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে নামে বাংলাদেশ। তাতে ব্যাট হাতে ঝলক দেখিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম। রান পেয়েছেন সাব্বির রহমানও। তবে ম্যাচে লড়াই করে স্থানীয় দলটির কাছে হেরেছে বাংলাদেশ।
NEW ZEALAND XI vs BANGLADESH

বিপিএল ব্যস্ততার পর নিউজিল্যান্ডে গিয়ে ওয়ানডে সিরিজে নামার আগে খুব বেশি প্রস্তুতির সুযোগ ছিল না বাংলাদেশের। এখনো নিউজিল্যান্ডের পথে আছেন অধিনায়ক মাশরাফি মর্তুজাসহ চারজন। এর আগে দুই দফায় যাওয়া ক্রিকেটারদের নিয়ে কোনরকমে তাই একমাত্র প্রস্তুতি ম্যাচে নামে বাংলাদেশ। তাতে ব্যাট হাতে ঝলক দেখিয়েছেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ, মুশফিকুর রহিম। রান পেয়েছেন সাব্বির রহমানও। তবে ম্যাচে লড়াই করে স্থানীয় দলটির কাছে হেরেছে বাংলাদেশ।

লিঙ্কনের বার্থ সার্টক্লিফ ওভালে রোববার টস জিতে বাংলাদেশকে ব্যাট করতে পাঠায় নিউজিল্যান্ড একাদশ। মাঝারি সারির দলটির বিপক্ষে নেমে ২৪৭ রানে অলআউট হয়ে যায় মেহেদী হাসান মিরাজের নেতৃত্বে নামা বাংলাদেশ। ওই রান তাড়ায় ৪৯ ওভারে  গিয়ে ২ উইকেটে জিতেছে নিউজিল্যান্ড একাদশ।

দলের হয়ে সর্বোচ্চ ৭২ রান করেন মাহমুদউল্লাহ। মুশফিকের ব্যাট থেকে আসে ৬২ রান, সাব্বির ফেরেন ৪০ রান করে। আন্তর্জাতিক ক্রিকেট না খেলা পেসার ইয়ান ম্যাকপিকই সর্বনাশ করেছেন বাংলাদেশের ইনিংসের। ৩৮ রানে এই ডানহাতি পেসার নিয়েছেন ৪ উইকেট।

শুরুতে ব্যাট করতে নেমেই বিপর্যয়ে পড়ে বাংলাদেশ। বাঁহাতি পেসার হ্যাজেলডাইনের বাউন্সারে ভড়কে গিয়ে ক্যাচ দিয়ে ফেরেন ওপেন করতে নামা মুমিনুল হক। খানিকপর লিটন দাস ম্যাকপিককে ড্রাইভ করতে গিয়ে স্লিপে ক্যাচ দেন। হ্যাজেলডাইনের লাফানো বলে পয়েন্টে ক্যাচ দেন সৌম্য সরকার।

পাঁচে নামা মোহাম্মদ মিঠুন অফ স্টাম্পের অনেক বাইরের লাফানো বল তাড়া করে ক্যাচ দেন স্লিপে। ৩১ রানেই চার উইকেট হারিয়ে বসে বাংলাদেশ। চরম বিপর্যয় থেকে দলকে টেনে তুলে লম্বা জুটি গড়েন মুশফিক ও মাহমুদউল্লাহ। পঞ্চম উইকেটে দুজনের ব্যাট থেকে আসে ১০৮ রান। ৮ চারে ৬১ বলে ৬২ রান করে ফেরেন মুশফিক।

৮৮ বলে ১০ চারে ৭০ রান করে ম্যাকপিকের শিকার হন মাহমুদউল্লাহ। সাতে নামা সাব্বির ছিলেন সাবলীল। তার ব্যাটে জুতসই সংগ্রহের দিকেই এগুচ্ছিল বাংলাদেশ। ৬ চারে সাব্বিরের ৪১ বলে ৪০ রানের ইনিংস শেষ হয় বাঁহাতি স্পিনারকে ইনসাইড আউটে পেটাতে গিয়ে।

শেষ দিকে দ্রুত উইকেট খুইয়ে পুরো পঞ্চাশ ওভার টিকতে পারেনি বাংলাদেশ। ওই রান তুলতেও এক পর্যায়ে দারুণ দাপট দেখানো কিউইরা শেষ দিকে উইকেট খুইয়ে জিতেছে কিছুটা কষ্ট করে।

টেস্ট খেলার অভিজ্ঞতা থেকে জিত রাভাল এই ম্যাচে অধিনায়কত্ব করেন নিউজিল্যান্ডের দলটির। রান তাড়ায় তার ব্যাট থেকে আসে ৫২ রান। সবচেয়ে বেশি ৯২ রান করেন আন্ড্রো ফ্লেচার। ৩৩ রানে ২ উইকেট নিয়ে ভালো বোলিং করেন মোস্তাফিজুর রহমান। মাহমুদউল্লাহ, মিরাজও অফ স্পিনে ভুগিয়েছেন কিউইদের।

সংক্ষিপ্ত স্কোর: 

বাংলাদেশ:   ৪৬.১ ওভারে ২৪৭  (লিটন ৩, মুমিনুল ৬, সৌম্য ১, মুশফিক ৬২, মিঠুন ১, মাহমুদউল্লাহ ৭০, সাব্বির ৪০, মিরাজ ৭, নাঈম ১৭*, শফিউল ৭, মোস্তাফিজ ১২ ; হ্যাজেলডাইন ২/৪৬, ম্যাকপিক ৪/৩৮, ব্রাউন ১/৫৭, সলিয়া ১/৩২, ওয়েরকুম ০/৩৯, রবীন্দ্র ২/৩৪)

নিউজিল্যান্ড একাদশ:  ৪৮.১ ওভারে ২৫১/৮ (রাভাল ৫২, ফ্লেচার ৯২, সলিয়া ১১, রবীন্দ্র ১৭, অ্যালেন ৩০, ক্লার্ক ১৯, ফিলিপস ৪, চু ৭*,  ওয়েরকুম ০, হ্যাজেলডাইন ২*; শফিউল ০/৪০, মোস্তাফিজ ২/৩৩, মিরাজ ২/৪৬, নাঈম ১/৪৩, মাহমুদউল্লাহ ২/৩৭, মুমিনুল ০/৯, সাব্বির ০/১১ , সৌম্য ১/২৮)

ফল:  নিউজিল্যান্ড একাদশ ২ উইকেটে জয়ী।

Comments

The Daily Star  | English

The taste of Royal Tehari House: A Nilkhet heritage

Nestled among the busy bookshops of Nilkhet, Royal Tehari House is a shop that offers students a delectable treat without burning a hole in their pockets.

2h ago