গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় বাংলাদেশের ৪ ধাপ অবনমন

গণমাধ্যমের স্বাধীনতার দিক থেকে সারা বিশ্বের দেশগুলোর মধ্যে চার ধাপ অবনমন হয়েছে বাংলাদেশের। প্যারিসভিত্তিক রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স (আরএসএফ) প্রকাশিত বৈশ্বিক মুক্ত গণমাধ্যম সূচক-২০১৯ এ বাংলাদেশের এই অবনতির কথা বলা হয়েছে।

গণমাধ্যমের স্বাধীনতার দিক থেকে সারা বিশ্বের দেশগুলোর মধ্যে চার ধাপ অবনমন হয়েছে বাংলাদেশের। প্যারিসভিত্তিক রিপোর্টার্স উইদাউট বর্ডার্স (আরএসএফ) প্রকাশিত বৈশ্বিক মুক্ত গণমাধ্যম সূচক-২০১৯ এ বাংলাদেশের এই অবনতির কথা বলা হয়েছে।

মঙ্গলবার আরএসএফ এর প্রকাশিত প্রতিবেদনে উল্লেখ, গণমাধ্যমের স্বাধীনতার দিক থেকে ১৮০টি দেশের মধ্যে বাংলাদেশের অবস্থান এখন ১৫০তম। তাদের সূচকে এ বছর বাংলাদেশের স্কোর ৫০ দশমিক ৭৪। অথচ গত বছর ৪৮ দশমিক ৩৬ স্কোর নিয়ে বাংলাদেশের অবস্থান ছিল ১৪৬তম।

ইউরোপের দেশ নরওয়ে এবারও টানা তৃতীয় বারের মতো শীর্ষে রয়েছে। দেশটির স্কোর ৭ দশমিক ৮২।

অলাভজনক সংস্থা আরএসএফ মুক্ত গণমাধ্যমের পক্ষে বিশ্বজুড়ে আন্দোলন চালিয়ে আসছে। ২০০২ সাল থেকে তারা বিশ্বজুড়ে বিভিন্ন দেশের গণমাধ্যমের স্বাধীনতার সূচক প্রকাশ করছে যার মাধ্যমে দেশগুলোর মধ্যে গণমাধ্যম কতটা মুক্তভাবে কাজ করতে পারে তার একটি তুলনামূলক অবস্থার কথা জানা যায়।

এবার প্রথম পাঁচটি স্থান পেয়েছে ইউরোপের পাঁচ দেশ। নরওয়ের পরের এই চারটি দেশ হলো যথাক্রমে ফিনল্যান্ড, সুইডেন, নেদারল্যান্ডস ও ডেনমার্ক।

দক্ষিণ এশিয়ার মধ্যে ভারত ও পাকিস্তানের অবস্থানও পড়তির দিকে থাকলেও দুটি দেশই গণমাধ্যমের স্বাধীনতায় বাংলাদেশের চেয়ে এগিয়ে রয়েছে। এর মধ্যে ভারত ৪৫ দশমিক ৬৭ স্কোর নিয়ে রয়েছে ১৪০তম স্থানে। এর দুই ধাপ নিচেই পাকিস্তানের স্কোর ৪৫ দশমিক ৮৩। এক বছরে ভারত ও পাকিস্তানের অবস্থান নেমেছে দুই ও তিন ধাপ। অন্যদিকে ১০৬তম হয়ে অবস্থান অপরিবর্তিত রয়েছে নেপালের।

তালিকার সবার শেষে রয়েছে তুর্কমেনিস্তান। আর তলার পাঁচে আরও রয়েছে উত্তর কোরিয়া, ইরিত্রিয়া, চীন ও ভিয়েতনাম।

Comments

The Daily Star  | English

Death came draped in smoke

Around 11:30, there were murmurs of one death. By then, the fire, which had begun at 9:50, had been burning for over an hour.

5h ago