গোল চাই, কে দিল এ নিয়ে ভাবেন না স্বপ্না

সতীর্থকে পাস দিলেই গোল। কিন্তু তা না করে নিজেই চেষ্টা করলেন। ফলাফল মিস। এমন চিত্রই ছিল পুরো ম্যাচে। তা সে যে কোন খেলোয়াড় হোক না কেন। প্রত্যেকেই চেষ্টা করেছেন নিজে গোল দিতে। এমনকি ডিফেন্ডাররা বল পেলেও তাই করেছেন। ভাব দেখে মনে হয়েছিল নিজেদের গোল সংখ্যা বাড়িয়ে নেওয়াতেই মনোযোগ তাদের। কিন্তু সবচেয়ে বেশি যে সুযোগ পেয়েছেন সেই সিরাত জাহান স্বপ্না বললেন ভিন্ন কথা।
ছবি: সংগ্রহীত

সতীর্থকে পাস দিলেই গোল। কিন্তু তা না করে নিজেই চেষ্টা করলেন। ফলাফল মিস। এমন চিত্রই ছিল পুরো ম্যাচে। তা সে যে কোন খেলোয়াড় হোক না কেন। প্রত্যেকেই চেষ্টা করেছেন নিজে গোল দিতে। এমনকি ডিফেন্ডাররা বল পেলেও তাই করেছেন। ভাব দেখে মনে হয়েছিল নিজেদের গোল সংখ্যা বাড়িয়ে নেওয়াতেই মনোযোগ তাদের। কিন্তু সবচেয়ে বেশি যে সুযোগ পেয়েছেন সেই সিরাত জাহান স্বপ্না বললেন ভিন্ন কথা।

দলের জন্য গোল চান স্বপ্না। আর সেটা যে কোন খেলোয়াড়ের পা থেকেই আসুক না কেন। এবারের টুর্নামেন্টে সেরা গোলদাতা হওয়ার লক্ষ্যে নেমেছেন কি না জানতে চাইলে এমনটাই বলেন তিনি। স্বপ্নার ভাষায়, ‘সবচেয়ে বড় কথা হয়েছে যে দলে সবাই মিলে কাজ করা এবং দলকে জেতানো। এটাই মূল। সর্বোচ্চ গোলদাতা কে হলো না হলো এটা আমি মনে করি না। যার পা থেকে গোল হোক, গোলের সংখ্যা বাড়ুক এবং আমরা জিতি।’

কিন্তু ম্যাচের চিত্র বলে অন্য কথা। শুরু থেকেই বাংলাদেশের মুহুর্মুহু আক্রমণে দিশেহারা অবস্থা আরব আমিরাতের। রক্ষণ সামলাতেই ব্যস্ত ছিলেন তারা পুরোটা সময়। হেরেছেনও। কিন্তু তবুও তৃপ্তি নিয়েই মাঠ ছেড়েছে দলটি। আর ২-০ গোলের জয় নিয়েও আফসোস লাল- সবুজ জার্সিধারীদের। কারণ জয়টা মনোপুত হয়নি। হতে পারতো আরও বড়। আমিরাতের এ দলটাকেই তো অনূর্ধ্ব-১৬ তে থাকাকালীন সময়ে তিন ম্যাচে তারা দিয়েছেন ১৭ গোল।

ম্যাচে যে পরিমাণ সুযোগ পেয়েছিলেন স্বপ্না তাতে হ্যাটট্রিক হয়েও আরও বেশি হতে পারতো। তার কিছুই হয়নি। গোল পেয়েছেন মাত্র ১টি। তবে সামনের ম্যাচে এ ঘাটতি পুষিয়ে দেওয়ার প্রত্যয় ঝরে তার কণ্ঠে, ‘আমরা চেষ্টা করেছি, সুযোগ তৈরি করেছি। মিস হয়েছে। আমি মনে করি আমরা কালকে থেকে এ নিয়ে অনুশীলন করব। সামনের ম্যাচে যেন কোন গোল মিস না করি এবং যেটা পাই সেটা যেন কাজে লাগাতে পারি সেই চেষ্টা করব।’

সামনের ম্যাচে ভালো খেলার অঙ্গীকার করেছেন। কিন্তু গত দিনের মিসগুলো ঠিকই কাঁদায় স্বপ্নাকে। স্বীকার করে নিলেন এ ফরোয়ার্ড, ‘এতো গোল মিস করেছি খারাপ লাগা তো থাকবেই।’

Comments

The Daily Star  | English
Land Minister Saifuzzaman Chowdhury

Ex-land minister admits to having properties abroad

Former land minister Saifuzzaman Chowdhury admitted today to having businesses and assets abroad but denied any involvement in corrupt practices related to acquiring those properties

4h ago