বিশাল হারের পরও প্রাপ্তি দেখছেন সরফরাজ

পাকিস্তান যেন খেলল পাড়ার ক্রিকেট! গতকাল (৩১ মে) টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ২১.৪ ওভারে ১০৫ রানে গুটিয়ে গেল তারা। এরপর ১৩.৪ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ম্যাচটা জিতে নিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টানা দশ ম্যাচ হেরে বিশ্বকাপে নাম লেখানো পাকিস্তানের ভোগান্তি থেকে যেন রেহাই মিলছে না! এমন বাজে হারে স্বভাবতই হতাশ দলটি। অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদও তা গোপন করেননি। তবে বিশ্বকাপ অভিষেকে পেসার মোহাম্মদ আমির যে পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন, তাতে মুগ্ধ তিনি।
sarfaraz
ছবি: আইসিসি টুইটার পেজ থেকে নেওয়া

পাকিস্তান যেন খেলল পাড়ার ক্রিকেট! গতকাল (৩১ মে) টসে হেরে ব্যাটিংয়ে নেমে ২১.৪ ওভারে ১০৫ রানে গুটিয়ে গেল তারা। এরপর ১৩.৪ ওভারে ৩ উইকেট হারিয়ে ম্যাচটা জিতে নিল ওয়েস্ট ইন্ডিজ। টানা দশ ম্যাচ হেরে বিশ্বকাপে পা রাখা পাকিস্তান ভোগান্তি থেকে যেন রেহাই পাচ্ছেই না! এমন বিশাল হারে স্বভাবতই হতাশ দলটি। অধিনায়ক সরফরাজ আহমেদও তা গোপন করেননি। তবে বিশ্বকাপ অভিষেকে পেসার মোহাম্মদ আমির যে পারফরম্যান্স দেখিয়েছেন, তাতে মুগ্ধ তিনি।

স্পট ফিক্সিংয়ের কারণে পাওয়া নিষেধাজ্ঞায় বিশ্বকাপের ২০১১ ও ২০১৫ আসর খেলতে পারেননি আমির। এবারের আসরের খেলতে পারবেন কী না তা নিয়েও ছিল শঙ্কা! প্রাথমিক স্কোয়াডে ছিলেন না। অনেক আলোচনা-সমালোচনার পর জায়গা পান বিশ্বকাপের আগে পাকিস্তানের ইংল্যান্ড সিরিজের দলে। পাঁচ ম্যাচের সিরিজের প্রথমটিতে বোলিং করার সুযোগ পাননি। ম্যাচ ভেসে যায় বৃষ্টিতে। পরের চার ম্যাচ খেলতে পারেননি চিকেন পক্সে আক্রান্ত হয়ে। ওই সিরিজে বাকি বোলারদের বিবর্ণ পারফরম্যান্সই আমিরকে জায়গা করে দেয় বিশ্বকাপের চূড়ান্ত দলে। এরপর বিশ্বকাপে পাকিস্তানের প্রথম ম্যাচে খেলতে পারবেন কি না তা নিয়েও ছিল অনিশ্চয়তা। ফিটনেসে যে ঘাটতি ছিল! সেই শঙ্কা উড়িয়ে দিয়েই ক্যারিবিয়ানদের বিপক্ষে মাঠে নামেন আমির।

নেমেই নতুন করে নিজের জাত চেনালেন গতিতারকা আমির। নটিংহ্যামে উইন্ডিজের পতন হওয়া তিনটি উইকেটের সবকটি নেন তিনি। তুলেছিলেন গতির ঝড়। ৬ ওভার বোলিং করে দেন মাত্র ২৬ রান। একে একে তুলে নেন শেই হোপ, ড্যারেন ব্রাভো ও ক্রিস গেইলকে। উইন্ডিজের কাছে নাস্তানাবুদ হওয়ার ম্যাচে আমিরের এই দুর্দান্ত পারফরম্যান্সকে প্রাপ্তি হিসেবে দেখছেন সরফরাজ।

আমিরের প্রশংসায় ম্যাচশেষে পাকিস্তান দলনেতা জানান, ‘আমাদের বোলিং আসলেই ভালো ছিল। মোহাম্মদ আমিরকে চেনা রূপে দেখতে পেয়ে ভালো লাগছে। আমরা জানি সে কী করতে পারে। তার ফর্মে ফেরাটা আগামী ম্যাচগুলোতে আমাদের জন্য গুরুত্বপূর্ণ হবে।’

হার দিয়ে বিশ্বকাপ শুরুর ধাক্কা কাটিয়ে পরের ম্যাচগুলোতে ঘুরে দাঁড়ানোর প্রত্যয় জানিয়ে তিনি বলেন, ‘যা ঘটে গেছে তা নিয়ে বেশি মাথা ঘামাতে চাই না। ম্যাচটা শেষ। আমি আশাবাদী, দলে যে ধরনের খেলোয়াড় আছে তাদের দিয়ে আগামী ম্যাচে আমরা জিততে পারব।’

নিজেদের পরের ম্যাচে পাকিস্তান মুখোমুখি হবে স্বাগতিক ইংল্যান্ডের। আগামী সোমবার (৩ জুন) ম্যাচটি অনুষ্ঠিত হবে নটিংহ্যামের ট্রেন্টব্রিজেই।

Comments

The Daily Star  | English

Change Maker: A carpenter’s literary paradise

Right in the heart of Jhalakathi lies a library stocked with over 8,000 books of various genres -- history, culture, poetry, and more.

54m ago