বাংলাদেশ জিতলেই ‘অঘটন’, সেই দৃষ্টিভঙ্গি কতটা বদলালো?

প্রেসবক্সে রেডিও ধারাভাষ্য শোনার জন্য একটা তারহীন ডিভাইস দেওয়া হয়েছে গণমাধ্যম কর্মীদের। সেই ধারাভাষ্যে ম্যাচের শেষ দিকে বারকয়েক ভেসে আসছিল , ‘আপসেট’ শব্দটি। একটু কান খাড়া করে শুনতে গিয়ে পাওয়া গেল, তারা বলছিলেন 'এবার বিশ্বকাপে বড় আফসেট হতে যাচ্ছে, বাংলাদেশ বড় আফসেট করছে' ইত্যাদি। র‍্যাঙ্কিংয়ের তিন নম্বর দলকে হারিয়েছে সাত নম্বর দল। হালের ক্রিকেটে একেবারেই অস্বাভাবিক কিছু নয়। দলগুলোর কাছে তো নয়ই। বাংলাদেশ অধিনায়কের সংবাদ সম্মেলনেও এল এই সম্পর্কিত প্রশ্ন।
Bangladesh Cricket Team
ফাইল ছবি: রয়টার্স

প্রেসবক্সে রেডিও ধারাভাষ্য শোনার জন্য একটা তারহীন ডিভাইস দেওয়া হয়েছে গণমাধ্যম কর্মীদের। সেই ধারাভাষ্যে ম্যাচের শেষ দিকে বার কয়েক ভেসে আসছিল , ‘আপসেট’ শব্দটি। একটু কান খাড়া করে শুনতে গিয়ে পাওয়া গেল, তারা বলছিলেন 'এবার বিশ্বকাপে বড় আপসেট হতে যাচ্ছে, বাংলাদেশ বড় আপসেট করছে' ইত্যাদি। র‍্যাঙ্কিংয়ের তিন নম্বর দলকে হারিয়েছে সাত নম্বর দল। হালের ক্রিকেটে একেবারেই অস্বাভাবিক কিছু নয়। দলগুলোর কাছে তো নয়ই। বাংলাদেশ অধিনায়কের সংবাদ সম্মেলনেও এল এই সম্পর্কিত প্রশ্ন।

এক বিদেশী সাংবাদিক মাশরাফি বিন মর্তুজাকে প্রশ্ন করলেন, ‘বাংলাদেশ আগে জিতলে মনে করা হতো আপসেট। আজকের এই জয়ের পর কি সেই ধারণা বদলাবে?’

মাশরাফি প্রশ্নটি ভালো করে শুনতে পাননি। পালটা প্রশ্নে জিজ্ঞেস করলেন, আপনি বলতে চাইছেন এটা আপসেট? প্রশ্নকর্তা ফের সেটা শুধরে দিলেন। তারপর বাংলাদেশ অধিনায়ক দিলেন প্রতিক্রিয়া, ‘শতভাগ (বদলাবে)। এটা আবার নির্ভর করে অনেক কিছুর উপর। নির্দিষ্ট মানুষ কী মনে করছে সেটা বোঝা তো শক্ত। এক্ষেত্রে আমরা আমাদের নিজেদের খেলাতেই মন দিতে পারি।’

বাংলাদেশ অধিনায়কের আগেই সংবাদ সম্মেলনে এসে কথা প্রসঙ্গে ডু প্লেসি বলে গেলেন, 'সবাইকে এটা বুঝতে হবে এই বিশ্বকাপে যেকোন দল যেকোন দলকে হারাতে পারে। বাংলাদেশ সেটা করে দেখিয়েছে।'

যে সময়টায় বাংলাদেশ জিতলেই বিদেশী পত্রিকার হেডিংয়ে আসত ‘আপসেট’, সেই সময়টা মাশরাফির কাছে বড্ড পীড়াদায়ক। বছর দুয়েক আগে চ্যাম্পিয়ন্স ট্রফির সেমিফাইনাল খেলা, বার তিনেক এশিয়া কাপের ফাইনাল খেলা। দীর্ঘদিন থেকে র‍্যাঙ্কিংয়ের সাতে থাকার পরও এখনো অনেকের মানসিকতা বদলায়নি, বাংলাদেশ অধিনায়ক জানেন সবটা।

তবে নিজেদের খেলায় মন দিয়েই ব্যাপারটা উপেক্ষা করতে চান তিনি, ‘ওই সময়টা আমাদের জন্য খুব কঠিন ছিল (ছোট দলের তকমা)। তবে এখন আমরা আমাদের নিজেদের খেলায় মন দিচ্ছি। আর মানুষকে তাদের মতো করেই ভাবতে দেওয়া ভালো।  আমি নিশ্চিত যে, খুব বেশি মানুষ আমাদের ক্রিকেটের পাড় ভক্ত না। কাজেই আমার মনে হয়, এত কিছু না ভেবে আমাদের নিজেদের খেলাতেই মন দেওয়া উচিত।’

Comments

The Daily Star  | English

International Mother Language Day: Languages we may lose soon

Mang Pu Mro, 78, from Kranchipara of Bandarban’s Alikadam upazila, is among the last seven speakers, all of whom are elderly, of Rengmitcha language.

12h ago