ট্রাম্প-কিম প্রথম শীর্ষ বৈঠকের ১ বছর পূর্তি

ট্রাম্পকে ‘চমৎকার’ চিঠি লিখেছেন কিম

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের কাছ থেকে একটি ‘সুন্দর’ ও ‘আন্তরিক’ চিঠি পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প।
kim and trump
উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উন এবং যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প। ছবি” সংগৃহীত

উত্তর কোরিয়ার নেতা কিম জং-উনের কাছ থেকে একটি ‘সুন্দর’ ও ‘আন্তরিক’ চিঠি পেয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি ডোনাল্ড ট্রাম্প।

গতকাল ট্রাম্প এ কথা জানান বলে দ্য কোরিয়া হেরাল্ড আজ (১২ জুন) এক প্রতিবেদনে জানায়।

সংবাদমাধ্যমটি আরো জানায়, হোয়াইট হাউজে ট্রাম্প সাংবাদিকদের জানান, তিনি ১০ জুন চিঠিটি হাতে পেয়েছেন। বলেন, “কিম জং-উনের কাছ থেকে মাত্রই একটি সুন্দর চিঠি পেয়েছি। এটি ব্যক্তিগত, আন্তরিক এবং চমৎকার চিঠি।”

গত ফেব্রুয়ারিতে ভিয়েতনামে ট্রাম্প-কিম শীর্ষ বৈঠক কোনো চুক্তি ছাড়াই শেষ হওয়ার পর তাদের মধ্যে যোগাযোগের তথ্য এই প্রথম জানা গেলো।

চিঠিটিতে কী লেখা রয়েছে সে বিষয়ে মুখ খুলেননি ট্রাম্প। তবে তিনি মনে করেন, কিমের নেতৃত্বে উত্তর কোরিয়ার ‘সম্ভাবনা প্রচুর’।

“আমাদের পারস্পরিক সম্পর্কে ভালো” উল্লেখ করে যুক্তরাষ্ট্রের রাষ্ট্রপতি বলেন, “যেহেতু গতকালই চিঠিটি পেলাম তাই আপনাদের তা নিশ্চিত করলাম। আমি মনে করি- যা হতে যাচ্ছে তা একটা ভালো কিছু হবে।”

গত বছরের শুরু থেকে উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচি নিয়ে ট্রাম্প ও কিমের মধ্যে বেশ কয়েকবার চিঠি চালাচালি হয়। সিঙ্গাপুরে তাদের প্রথম ঐতিহাসিক শীর্ষ বৈঠকের এক বছর পূর্তিও হচ্ছে আজ। সেসময় তারা কোরীয় উপকূলকে পুরোপুরি পরমাণু অস্ত্রমুক্ত করার প্রত্যয় ব্যক্ত করেন। এর বিনিময়ে পিয়ংইয়ংকে নিরাপত্তার নিশ্চিয়তা দিয়েছিলো ট্রাম্প প্রশাসন।

কিন্তু, উত্তর কোরিয়ার পরমাণু কর্মসূচি বন্ধ ও যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধ তুলে নেওয়ার বিষয়ে মত পার্থক্য তৈরি হলে গত ফেব্রুয়ারিতে ভিয়েতনামে দুই রাষ্ট্রনেতার দ্বিতীয় শীর্ষ বৈঠকটি ব্যর্থ হয়।

ধারণা করা হয়, এর প্রতিবাদে গত মে মাসে উত্তর কোরিয়া স্বল্পমাল্লার ক্ষেপণাস্ত্র পরীক্ষা চালায়। কিন্তু, সেই ঘটনাটিকে ট্রাম্প কিমের ‘দৃষ্টি আকর্ষণের চেষ্টা’ হিসেবে গণ্য করে তা হাল্কাভাবে নেন।

গতকাল সেই ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপণকে ট্রাম্প ‘খুবই ছোট’ বলে অভিহিত করে দাবি করেন যে কিম তার প্রতিজ্ঞা রেখেছেন। তিনি পরমাণু অস্ত্র বা দূর পাল্লার কোনো ক্ষেপণাস্ত্র নিক্ষেপ করেননি। ট্রাম্প বলেন, “… কিম যে তার কথা রেখেছেন সেটিই খুব গুরুত্বপূর্ণ।”

তাদের তৃতীয় শীর্ষ বৈঠক সম্পর্কে ট্রাম্প বলেন, “ঠিক আছে, এটি হতে পারে কিন্তু, আমি চাই যে তা নিয়ম মেনেই হোক।”

Comments

The Daily Star  | English