টেকনাফ ও গাজীপুরে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ নিহত ২

কক্সবাজার জেলার টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ইয়াবা চোরাকারবারি নিহত হয়েছেন। পুলিশের বরাতে আমাদের স্থানীয় সংবাদদাতা জানান, নিহতের নাম মো. হামিদ (৪৫)।
Gunfight
ছবি: স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

কক্সবাজার জেলার টেকনাফে পুলিশের সঙ্গে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ এক ইয়াবা চোরাকারবারি নিহত হয়েছেন। পুলিশের বরাতে আমাদের স্থানীয় সংবাদদাতা জানান, নিহতের নাম মো. হামিদ (৪৫)।

গতকাল দিবাগত রাত একটায় টেকনাফের মহেষখালিয়াপাড়া নৌঘাট এলাকায় এ ঘটনা ঘটে। নিহত হামিদ টেকনাফ সদর ইউনিয়নের মহেষখালিয়াপাড়া গ্রামের মৃত আবুল হাশেমের ছেলে।

টেকনাফ থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) প্রদীপ কুমার দাশ বলেন, গতকাল সোমবার বিকেল চারটার দিকে এসআই সুজিত চন্দ্র অভিযান চালিয়ে একাধিক মামলার পলাতক আসামি ও বিভিন্ন গোয়েন্দা সংস্থার তালিকাভুক্ত ইয়াবা চোরাকারবারি হামিদকে মহেষখালিয়াপাড়া বাজার হতে গ্রেপ্তার করেন। তার দেওয়া তথ্যের ভিত্তিতে রাত একটার দিকে ওসির নেতৃত্বে ইয়াবা উদ্ধারের জন্য উল্লেখিত স্থানে পৌঁছলে তার সহযোগীরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি ছুড়ে। এতে ঘটনাস্থলে এসআই স্বপন চন্দ্র দাশ, এএসআই কাজী সাইফ উদ্দিন, কনস্টেবল রয়েল বড়ুয়া সামান্য আহত হন। পুলিশ আত্মরক্ষার্থে  ৫০ রাউন্ড গুলি ছুড়ে। এতে হামিদ গুলিবিদ্ধ হয়।

ঘটনাস্থলের আশপাশে তল্লাশি চালিয়ে চারটি এলজি, ১৭ রাউন্ড শটগানের তাজা কার্তুজ, ২১ রাউন্ড কার্তুজের খোসা এবং ছয় হাজার ইয়াবা উদ্ধার করে পুলিশ। গুলিবিদ্ধ হামিদকে টেকনাফ উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার জেলা সদর হাসপাতালে প্রেরণ করেন। সেখানকার কর্তব্যরত চিকিৎসক ভোর রাত চারটার দিকে তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

জেলা সদর হাসপাতালে ময়নাতদন্ত শেষে হামিদের লাশ স্বজনদের কাছে হস্তান্তর করা হয়েছে। এ ঘটনায় পুলিশ বাদী হয়ে টেকনাফ থানায় দুটি মামলা দায়ের করেছে বলেও জানান তিনি।

বার্তা সংস্থা ইউএনবির খবরে বলা হয়েছে, গাজীপুরের কালিয়াকৈর এলাকায় আজ রাতে কথিত ‘বন্দুকযুদ্ধে’ লিয়ন নামে এক ব্যক্তি নিহতের কথা জানিয়েছে পুলিশ।

কালিয়াকৈর থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আলমগীর হোসেনের ভাষ্য, জয়দেবপুর থানার একটি হত্যা ও মাদক মামলায় রাতে পুলিশ লিয়নকে কোনাবাড়ি এলাকা থেকে গ্রেপ্তার করে। তার দেওয়া তথ্যমতে রাতেই এসআই রাসেলের নেতৃত্বে কালিয়াকৈর থানা পুলিশের একটি দল তাকে নিয়ে অস্ত্র এবং মাদক উদ্ধারে কালিয়াকৈরের বিভিন্ন এলাকায় অভিযান চালায়।

একপর্যায়ে তারা সিনাবহ এলাকায় পৌঁছলে আগে থেকে ওঁৎপেতে থাকা লিয়ন বাহিনীর সদস্যরা পুলিশকে লক্ষ্য করে গুলি চালায়। আত্মরক্ষার্থে পুলিশও পাল্টা গুলি চালায়। এ সময় লিয়ন পালিয়ে যেতে চাইলে গুলিবিদ্ধ হয়।

ওসি দাবি করেন, বন্দুকযুদ্ধে পুলিশের ৫ সদস্য সামান্য আহত হয়েছেন। ঘটনাস্থল থেকে লিয়ন বাহিনীর সদস্যরা পালিয়ে গেলেও সেখান থেকে একটি পিস্তল ও তিন রাউন্ড গুলি উদ্ধার করে পুলিশ। আহতাবস্থায় লিয়নকে উদ্ধার করে কালিয়াকৈর উপজেলা স্বাস্থ্য কমপ্লেক্সে নেওয়া হলে কর্তব্যরত চিকিৎসক তাকে মৃত ঘোষণা করেন।

তিনি আরও দাবি করেন, নিহত লিয়নের বিরুদ্ধে খুন, সন্ত্রাস, মাদক ও চাঁদাবাজিসহ ১৭টি মামলা রয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English
Fire exits horrifying at many city eateries

Fire exits horrifying at many city eateries

Just like on Bailey Road, a prominent feature of Banani road-11, Kamal Ataturk Avenue, Satmasjid Road, Khilagon Taltola and Mirpur-11 traffic circle are tall buildings that house restaurants, cafes and commercial kitchens on every floor.

11h ago