সাফল্যের পুরো কৃতিত্ব সাকিবকে দিলেন রোডস

‘আমি সাকিবের সঙ্গে কাজ করতে ভালোবাসি। সে অসাধারণ একজন মানুষ, অসাধারণ একজন খেলোয়াড়। আমার কাছ থেকে কোনো প্রেরণা নিতে হয়নি তাকে। পুরো কৃতিত্বটাই সাকিব আল হাসানের। এটা তার ভেতর থেকে এসেছে। সাকিব নিজেই এসব করেছে। এই বিশ্বকাপে ভালো করতে সে মরিয়া ছিল।’
shakib al hasan
ছবি: রয়টার্স

‘আমি সাকিবের সঙ্গে কাজ করতে ভালোবাসি। সে অসাধারণ একজন মানুষ, অসাধারণ একজন খেলোয়াড়। আমার কাছ থেকে কোনো প্রেরণা নিতে হয়নি তাকে। পুরো কৃতিত্বটাই সাকিব আল হাসানের। এটা তার ভেতর থেকে এসেছে। সাকিব নিজেই এসব করেছে। এই বিশ্বকাপে ভালো করতে সে মরিয়া ছিল।’

কথাগুলো বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের। প্রতিটি বাক্যের তাৎপর্য, অন্তর্নিহিত অর্থ অনেক গভীর। রোডস বুঝিয়ে দিলেন, সাকিব আল হাসানকে শিষ্য হিসেবে পেয়ে এবং তার সঙ্গে কাজ করতে পেরে যে অসম্ভব ভালো লাগার অনুভূতি তৈরি হয়েছে, সেটা তার জন্য বিশাল এক প্রাপ্তি। সেই সঙ্গে বিশ্বসেরা অলরাউন্ডারকে আলাদা করে কোনো অনুপ্রেরণাও দিতে হয়নি টাইগার কোচের। তাই এবারের বিশ্বকাপে পাওয়া অবিস্মরণীয় সাফল্যের পুরো কৃতিত্বটা সাকিবকেই দিলেন রোডস।

নিঃসন্দেহে চলমান বিশ্বকাপের সেরা পারফর্মার সাকিব। সাত ম্যাচ খেলে দুই সেঞ্চুরি আর চার হাফসেঞ্চুরিতে ৫৪২ রান করার পাশাপাশি ১১ উইকেট শিকার করেছেন বাঁহাতি তারকা। ভেঙেছেন একগাদা রেকর্ড, গড়েছেন অনন্য সব নতুন কীর্তি। ব্যাটে-বলে সাকিবের এই ধারাবাহিকতায় ভীষণ মুগ্ধ ও উচ্ছ্বসিত রোডস।

গতকালের (৪ জুলাই) সংবাদ সম্মেলনে তিনি আরও বলেন, ‘কখনও কখনও একজন খেলোয়াড় হিসেবে, যখন আপনি ভালো করেন এবং রান পেয়ে যান, তখন মনে হতে পারে, আমি হয়তো পরের ম্যাচে রান পাব না। এমন মনোভাব ঠিক না। পরের ম্যাচে রান না পাওয়ার কোনো কারণ নেই। সাকিব এটাই করে দেখাচ্ছে। প্রতি ম্যাচেই সে নিজেকে প্রমাণ করছে। যতদূর মনে হয়, তার সর্বনিম্ন স্কোর ৪০ (আসলে ৪১), এটা অসাধারণ ব্যাপার। এর সঙ্গে যোগ করা দরকার যে, সে বোলিংও করেছে। কখনও কখনও সে খুবই ভালো বোলিং করেছে।’

Comments

The Daily Star  | English

Five Transcom officials get bail in property dispute cases

A Dhaka court today granted bail to five officials of Transcom Group in connection with cases filed over property disputes

2h ago