রোডসের ধরনের সঙ্গে আমাদের মেলেনি: নাজমুল

প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের কোচিং ধরণের সঙ্গে না মিল না হওয়ায় বাংলাদেশ দলের সঙ্গে তার পথ আলাদা হওয়ার কথা জানিয়েছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। তবে তাকে তারা একেবারে বাদ দেননি বলেও জানিয়েছেন তিনি।
ছবি: একুশ তাপাদার

প্রধান কোচ স্টিভ রোডসের কোচিং ধরণের সঙ্গে না মিল না হওয়ায় বাংলাদেশ দলের সঙ্গে তার পথ আলাদা হওয়ার কথা জানিয়েছেন বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান পাপন। তবে তাকে তারা একেবারে বাদ দেননি বলেও জানিয়েছেন তিনি। বিকল্প প্রস্তাব দিয়ে এই ইংলিশ কোচের সিদ্ধান্তেরই নাকি অপেক্ষা করছিল বোর্ড। 

সেমিফাইনালের আশা নিয়ে বিশ্বকাপে গিয়ে বাংলাদেশের শেষটা হয়েছে হতাশায়। দশ দলের মধ্যে আট নম্বরে থেকে ফিরতে হয়েছে দেশে। এরপরই চুক্তি কমিয়ে রোডসের সঙ্গে সম্পর্ক ছিন্ন করার কথা জানান বিসিবির দায়িত্বশীলরা।

কীসের ঘাটতি থাকায় কোচকে আর রাখতে চাইছে না বিসিবি? লন্ডনের চিজউইকে ইন্টারপার্লামেন্টারি ক্রিকেট টুর্নামেন্টের খেলা দেখতে এসে বিসিবি প্রধান নাজমুল হাসান দিলেন কোচকে না রাখার ব্যাখ্যা,  ‘মূলত প্রতি বিশ্বকাপের পর প্রত্যেক দলেরই একটা মূল্যায়ন হয় কোচিং স্টাফ, খেলোয়াড়দের নিয়ে। এটাই এটার একটা প্রক্রিয়া। একেকজনের একেক রকম ধরন থাকে। ওর ধরন খারাপ সেটা বলছি না। কিন্তু অনেক সময় হয় কি, আমাদের সঙ্গে একই রকম চিন্তাধারা না থাকলে অনেক সমস্যা হয়। সেজন্য আমরা মনে করেছি...(বিকল্প ভাবার)।’

তবে কোচের সঙ্গে পারস্পারিক বোঝাপড়ায় সম্পর্ক ছিন্ন করে ফেললেও বিসিবি প্রধান জানান, এখনো নাকি চাইলে কয়েকমাস থেকে যেতে পারেন রোডস, ‘কিন্তু তাকে আমরা বাদ দেইনি। তার একটা অপশন ছিল যে ইচ্ছা করলে থাকতেও পারে। আরও কয়েকমাস থাকতে পারে। তার সঙ্গে পারষ্পারিকভাবে আলাপ করে দেখেছি। বড় একটা সম্ভাবনা আছে ও চলে যাবে। কিন্তু এখন পর্যন্ত আমরা তার কাছ থেকে কিছু  (উত্তর) পাইনি। কাজেই অপশন শেষ হয়নি।’

রোডসের সঙ্গে বিসিবির চুক্তি ছিল আগামী বিশ্বকাপ পর্যন্ত। জানা গেছে, এই বিশ্বকাপে ব্যর্থতার পর তার চুক্তি তিন মাসে কমিয়ে আনার প্রস্তাব দিয়েছিল বিসিবি। কিন্তু রোডস সে প্রস্তাবে রাজী না হওয়ায় ইতি ঘটেছে তার বাংলাদেশ অধ্যায়ের। 

Comments

The Daily Star  | English

Raids on hospitals countrywide from Feb 27: health minister

There will be zero tolerance for child deaths due to hospital authorities' negligence, he says

28m ago