দলে ফেরা সৈকতের ফিফটি, বোলিংয়েও সফল মাহমুদউল্লাহ

আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্টের আগে দুইদিনের অনুশীলন ম্যাচটাকে পুরোপুরি নিজের করে রাখলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। লাল দলের হয়ে আগের দিন সেঞ্চুরি করার পর শনিবার (৩১ অগাস্ট) নিলেন ৩ উইকেট। দলে ফেরা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও দিলেন তার ওপর নির্বাচকদের রাখা আস্থার প্রতিদান। সবুজ দলের হয়ে একাই লড়াই চালিয়ে করলেন হাফসেঞ্চুরি।
bangladesh red-green
ছবি: বিসিবি

আফগানিস্তানের বিপক্ষে টেস্টের আগে দুইদিনের অনুশীলন ম্যাচটাকে পুরোপুরি নিজের করে রাখলেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ। লাল দলের হয়ে আগের দিন সেঞ্চুরি করার পর শনিবার (৩১ অগাস্ট) নিলেন ৩ উইকেট। দলে ফেরা মোসাদ্দেক হোসেন সৈকতও দিলেন তার ওপর নির্বাচকদের রাখা আস্থার প্রতিদান। সবুজ দলের হয়ে একাই লড়াই চালিয়ে করলেন হাফসেঞ্চুরি।

অনুশীলন ম্যাচের দ্বিতীয় ও শেষ দিনে সাকিব আল হাসানের লাল দলের বোলারদের তোপের মুখে পড়ে মুশফিকুর রহিমের সবুজ দল। ৫২.৩ ওভারে প্রথম ইনিংসে তারা গুটিয়ে যায় মাত্র ১২৫ রানে। এরপর আর খেলা হয়নি। আগের দিন লাল দল নিজেদের প্রথম ইনিংসে ৮৪.১ ওভারে অলআউট হয়েছিল ২৬৮ রানে।

অফ-স্পিন অলরাউন্ডার মাহমুদউল্লাহ বোলিং করেন ৭.৩ ওভার। এর ৪টিই নেন মেডেন। সাদমান ইসলাম, ফরহাদ রেজা ও তাইজুল ইসলামের উইকেট নিতে তিনি খরচ করেন মাত্র ৩ রান। তার আগে সবুজ দলের ওপর তোপ দাগেন আবু জায়েদ রাহি। আফগানদের বিপক্ষে স্কোয়াডে থাকা এই পেসার ১০ ওভারে ২২ রান দিয়ে সাজঘরে পাঠান মুমিনুল হক, মুশফিক ও মোসাদ্দেককে।

সবুজ দলের মাত্র তিন ব্যাটসম্যান পৌঁছান দুই অঙ্কে। তিনে নেমে ৪ চারের সাহায্যে মুমিনুল করেন ৭৩ বলে ৩৫ রান। পাঁচে নামা মোসাদ্দেক গতিশীল ব্যাটিংয়ে সর্বোচ্চ ৫১ রান করেন ৬২ বল খেলে। তার ইনিংসে ছিল ৮ চার ও ১ ছয়। অধিনায়ক মুশফিক সুবিধা করতে পারেননি। মাঠ ছাড়েন ৬ রানে।

অনুশীলন ম্যাচে বাংলাদেশের পেসারদের পারফরম্যান্স বেশ আশা জাগানিয়া। ১৫ সদস্যের দলে থাকা তিন ফাস্ট বোলারই উইকেটের দেখা পেলেন। আগের দিন তাসকিন আহমেদ ৪টি ও ইবাদত হোসেন ৩টি উইকেট শিকার করেছিলেন। এদিন রাহি পেলেন ৩ উইকেট।

তবে ওপেনারদের নিয়ে কিছুটা দুশিন্তা থেকেই গেল। তামিম ইকবালের অনুপস্থিতিতে সাদমান ও সৌম্য সরকারকে ওপেনিং জুটি হিসেবে এগিয়ে রাখা হচ্ছিল। তবে দুজনেই হতাশ করেন। সৌম্য ৬ বল খেলে করেন শূন্য।

প্রথমবার ব্যাটিংয়ে নেমে সাদমানও রানের খাতা খুলতে ব্যর্থ হন। ১০ বল খেলে আউট হয়ে যান। প্রস্তুতি সারতে সাত নম্বরে আবার নামেন তিনি। স্বভাবসুলভ ধৈর্যের পরিচয় দিয়ে খেলেন ৬২ বল। কিন্তু ২ চারে ১৩ রানের বেশি করতে পারেননি তিনি।

ব্যাটিংয়ের পর বোলিংয়েও নির্বিষ ছিলেন বাংলাদেশের টেস্ট অধিনায়ক সাকিব আল হাসান। আগের দিন দুবার ব্যাটিং করে যথাক্রমে ০ ও ৯ রান করেছিলেন। এরপর করলেন খরুচে বোলিং। ১০ ওভারে ৪১ রান দিয়ে থাকলেন উইকেটশূন্য।

সংক্ষিপ্ত স্কোর:

লাল দল প্রথম ইনিংস: ৮৪.১ ওভারে ২৬৮ (মাহমুদউল্লাহ ১০৭, সাব্বির ৩৪, আবু হায়দার ৪০, শফিউল ১৯*; তাসকিন ৪/৪৫, ইবাদত ৩/৪২)

সবুজ দল প্রথম ইনিংস: ৫২.৩ ওভারে ১২৫ (সাদমান ০, সৌম্য ০, মুমিনুল ৩৫, মুশফিক ৬, মোসাদ্দেক ৫১, আরিফুল ৩, সাদমান ১৩, ফরহাদ ৫, তাইজুল ০, তাসকিন ৫, ইবাদত ৪*; মেহেদী ১/১৩, রাহি ৩/২২, আবু হায়দার ০/১০, মাহমুদউল্লাহ ৩/৪, আফ্রিদি ১/১০, মোস্তাফিজ ১/০, সাকিব ০/৪১, ইফ্রান ১/৫)।

Comments

The Daily Star  | English

NY court allows BB’s lawsuit over reserve heist to proceed

The New York Supreme Court has allowed the case filed by Bangladesh Bank concerning the $81-million cyberheist in 2016 to proceed, but dismissed several charges against the Rizal Commercial Banking Corp (RCBC).

44m ago