খেলা

আরও একবার পেসারবিহীন বাংলাদেশ একাদশ

আগের দিনই অধিনায়কের কথায় ইঙ্গিত ছিল পেসারদের উপর ভরসা রাখছে না টিম ম্যানেজমেন্ট। উইকেটের ধরণ আর বাংলাদেশের পেসারদের সামর্থ্যের কথা মাথায় নিয়ে তাই টেস্টে দ্বিতীয়বারের মতো কোন পেসার ছাড়াই খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

আগের দিনই অধিনায়কের কথায় ইঙ্গিত ছিল পেসারদের উপর ভরসা রাখছে না টিম ম্যানেজমেন্ট। উইকেটের ধরণ আর বাংলাদেশের পেসারদের সামর্থ্যের কথা মাথায় নিয়ে তাই টেস্টে দ্বিতীয়বারের মতো কোন পেসার ছাড়াই খেলতে নেমেছে বাংলাদেশ।

দেশের মাঠে সর্বশেষ খেলা টেস্টের একাদশেও কোন পেসার ছিল না। ওয়েস্ট ইন্ডিজের বিপক্ষে ঢাকা টেস্টে চার স্পিনার মিলেই জিতিয়েছিলেন দলকে। ওই সিরিজের প্রথম টেস্টে চট্টগ্রামেই একমাত্র পেসার হিসেবে খেলেছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। কিন্তু দুই ইনিংস মিলিয়ে তিনি বল করতে পেরেছিলেন কেবল চার ওভার। 

এবার উপমহাদেশের দল হওয়ায় আফগানিস্তানের বিপক্ষে পেসারদের খেলানোর আশা করা হয়েছিল। কিন্তু টার্নিং উইকেটের ফায়দা উঠাতে পেসার রাখার দিকে হাঁটেনি বাংলাদেশ।

একজনও পেসার না রেখে বাংলাদেশ একাদশে রেখেছে স্পিন বোলিং অলরাউন্ডার মোসাদ্দেক হোসেনকে। অধিনায়ক সাকিবের নেতৃত্বে বোলিং আক্রমণে থাকছেন মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম ও নাঈম হাসান।

এদের সঙ্গে অনিয়মিত বোলার ধরলে অফ স্পিনে ভূমিকা রাখতে পারেন মাহমুদউল্লাহ রিয়াদ ও বাঁহাতি স্পিনে মুমিনুল হক। সব মিলিয়ে বাংলাদেশের একাদশে স্পিনারদের ছড়াছড়ি।

সে হিসেবে টুকটাক পেস করতে জানা একজনও আছেন অবশ্য। যদিও স্পিন বান্ধব এমন উইকেটে সৌম্য সরকারের বল পাওয়ার সম্ভাবনা খুবই ক্ষীণ। 

স্পিন দিয়ে একাদশ সাজিয়েছে আফগানিস্তানও। তাদের একাদশে আছেন তিনজন রিস্ট স্পিনার। লেগ স্পিনার রশিদ খান ও কাইস আহমেদের সঙ্গে চায়নাম্যান জহির খান তো আছেনই। অফ স্পিনে আফগানদের ভরসা মোহাম্মদ নবি। একমাত্র পেসার হিসেবে আফগান একাদশে আছেন ইয়ামিন আহমেদজাই।

বাংলাদেশ একাদশ: সৌম্য সরকার, সাদমান ইসলাম, মুমিনুল হক, মুশফিকুর রহিম (উইকেটকিপার), সাকিব আল হাসান (অধিনায়ক), লিটন দাস, মোসাদ্দেক হোসেন, মেহেদী হাসান মিরাজ, তাইজুল ইসলাম, নাঈম হাসান।

আফগানিস্তান একাদশ: ইহসানুল্লাহ, ইব্রাহিম জাদরান, রহমত শাহ, হাসমতুল্লাহ শহীদি, আসগার আফগান, মোহাম্মদ নবি, আসার জাজাই (উইকেটকিপার), রশিদ খান (অধিনায়ক), ইয়ামিন আহমেদজাই, কাইস আহমেদ, জহির খান।

Comments