টেকনাফে ‘বন্দুকযুদ্ধে’ ২ রোহিঙ্গা নিহত

টেকনাফে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের লম্বাবিলস্থ নাফ নদীর কিনারায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা নিহতের কথা জানিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।
gunfight logo
প্রতীকী ছবি: স্টার অনলাইন গ্রাফিক্স

টেকনাফে হোয়াইক্যং ইউনিয়নের লম্বাবিলস্থ নাফ নদীর কিনারায় ‘বন্দুকযুদ্ধে’ দুই রোহিঙ্গা নিহতের কথা জানিয়েছে বর্ডার গার্ড বাংলাদেশ (বিজিবি)।

আজ (১৮ অক্টোবর) ভোররাতে এ ঘটনা ঘটে উল্লেখ করে বিজিবি জানায়, নিহতরা হলেন- উখিয়া উপজেলার কুতুপালং রোহিঙ্গা ক্যাম্পের এ/৩ ব্লকের সোলতান আহমদের ছেলে মো. আবুল হাশেম (২৫) ও একই ক্যাম্পের সি/১ এর আবু ছিদ্দিকের ছেলে নুর কামাল (১৯)।

তাদেরকে ইয়াবা পাচারকারী দাবি করছে বিজিবি।

টেকনাফ ২ বিজিবি অধিনায়ক লেফটেন্যান্ট কর্নেল মো. ফয়সাল হাসান খানের ভাষ্য, নাফনদীর হোয়াইক্যং ইউনিয়নের লম্বাবিল সীমান্তে মিয়ানমার থেকে ইয়াবা পাচারের গোপন সংবাদ পেয়ে বিজিবির একটি বিশেষ টহল দল ওই স্থানে কৌশলগত অবস্থান গ্রহণ করে।

এক পর্যায়ে ৪-৫ জন ইয়াবা পাচারকারী নৌকায় চড়ে নাফ নদী পেরিয়ে বাংলাদেশের জলসীমার কিনারায় পৌঁছালে বিজিবি জওয়ানরা তাদের চ্যালেঞ্জ করে। এসময় দুই পাচারকারী পালিয়ে গেলে বিজিবি জওয়ানরা তাদের ধাওয়া করে এবং ওত পেতে থাকা ইয়াবা কারবারিরা অতর্কিতভাবে বিজিবির ওপর এলোপাথাড়ি গুলি চালায়। এসময় তিনজন বিজিবি সদস্য আহত হন।

তার দাবি, আত্মরক্ষার্থে বিজিবিও গুলিবর্ষণ করলে উভয় পক্ষের মধ্যে প্রায় ৮-১০ মিনিট গুলি বিনিময়ের ঘটনা ঘটে। কিছুক্ষণ পর পরিস্থিতি নিয়ন্ত্রণে এলে ঘটনাস্থল তল্লাশি চালিয়ে দুই ব্যক্তিকে গুলিবিদ্ধ অবস্থায় পাওয়া যায়।

বিজিবি সদস্যরা তাদের উদ্ধার করে টেকনাফ হাসপাতালে নিয়ে গেলে কর্তব্যরত চিকিৎসক উন্নত চিকিৎসার জন্য কক্সবাজার সদর হাসপাতালে পাঠিয়ে দেন। সেখানে পৌঁছার পর চিকিৎসক দুজনকেই মৃত ঘোষণা করেন।

ওই কর্মকর্তার দাবি, নিহতদের পকেটে থাকা পরিচয়পত্র থেকে তাদের নাম-পরিচয় চিহ্নিত করা হয়। এছাড়া ঘটনাস্থল হতে ৫০ হাজার ইয়াবা বড়ি, দেশীয় তৈরি ১টি বন্দুক, ৩ রাউন্ড তাজা কার্তুজ, ২টি ধারালো কিরিচ উদ্ধার করতে সক্ষম হয় বিজিবি।

Comments

The Daily Star  | English

Sajek accident: Death toll rises to 9

The death toll in the truck accident in Rangamati's Sajek increased to nine tonight

58m ago