মেসি-সুয়ারেজ-গ্রিজমানের গোলে জিতল বার্সা

অবশেষে বার্সেলোনায় জমে উঠেছে লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেজের সঙ্গে আতোঁয়ান গ্রিজমানের জুটি। বার্সার এ তিন তারকাই এদিন জ্বলে উঠেছেন, করেছেন একটি করে গোলও। তবে তিনটি গোলেই অবদান ছিল গ্রিজমানের। ফলে এইবারের বিপক্ষে সহজ জয়ই তুলে নিয়েছে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। প্রতিপক্ষের মাঠে তাদের জয়টি আসে ৩-০ গোলের ব্যবধানে।
ছবি: এএফপি

অবশেষে বার্সেলোনায় জমে উঠেছে লিওনেল মেসি ও লুইস সুয়ারেজের সঙ্গে আতোঁয়ান গ্রিজমানের জুটি। বার্সার এ তিন তারকাই এদিন জ্বলে উঠেছেন, করেছেন একটি করে গোলও। তবে তিনটি গোলেই অবদান ছিল গ্রিজমানের। ফলে এইবারের বিপক্ষে সহজ জয়ই তুলে নিয়েছে স্প্যানিশ চ্যাম্পিয়নরা। প্রতিপক্ষের মাঠে তাদের জয়টি আসে ৩-০ গোলের ব্যবধানে।

আর দারুণ এ জয়ে  চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী রিয়াল মাদ্রিদ পেছনে ফেলে আপাতত শীর্ষে উঠে এসেছে বার্সেলোনা। ৯ ম্যাচে তাদের সংগ্রহ ১৯ পয়েন্ট। এক ম্যাচ কম খেলে ১৮ পয়েন্ট নিয়ে দ্বিতীয় স্থানে আছে রিয়াল। তবে রাতেই মায়োর্কার বিপক্ষে মাঠে নামছে মাদ্রিদের দলটি। সে ম্যাচ জিতলে ফের শীর্ষে উঠে যাবে তারা।

এইবারের মাঠে এদিন ম্যাচের ১৩তম মিনিটেই এগিয়ে যায় বার্সেলোনা। দুই ফরাসী বোঝাপড়ায় গোল পায় দলটি। নিজেদের অর্ধ থেকে ক্লেমো লংলের বাড়ানো বল অফসাইডের ফাঁদ ভেঙে বল নিয়ে ডি বক্সের ঢুকে পড়েন গ্রিজমান। আর গোলরক্ষককে একা পেয়ে লক্ষ্যভেদ করতে কোন ভুল করেননি বিশ্বকাপ জয়ী এ তারকা।

৩১তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর অবিশ্বাস্য এক সুযোগ মিস করেন মেসি। ফ্রাঙ্কি ডি ইয়ংয়ের সঙ্গে দেওয়া নেওয়া করে দুই ডিফেন্ডারকে কাটিয়ে ডি বক্সের ঢুকে পড়েছিলেন তিনি। তখন শট নিলে হয়তো গোল পেতে পারতেন। কিন্তু আরও নিশ্চিত হতে গোলরক্ষককে কাটাতে গিয়ে ভুলটা করে ফেলেন রেকর্ড ছয় বারের বর্ষসেরা এ তারকা।

৫৬তম মিনিটে ব্যবধান বাড়ানোর সুযোগ নষ্ট করেন সুয়ারেজ। ডি ইয়ংয়ের আড়াআড়ি ক্রস থেকে ডি বক্সের মাঝ থেকে শট নিয়েছিলেন তিনি। কিন্তু শটে জোর না থাকায় সে শট ধরে নিতে কোন বেগ পেতে হয়নি এইবার গোলরক্ষক মার্কো দিমিত্রভিচের। তবে দুই মিনিট পরই দলীয় সমঝোতায় ব্যবধান বাড়ায় তারা। ডি ইয়ংয়ের বাড়ানো বল নিয়ন্ত্রণে নিয়ে গ্রিজমানকে দেন সুয়ারেজ। ফরাসী তারকা আলতো টোকায় পাস দেন ফাঁকায় থাকা মেসি। বল ধরে কোণাকোণি শটে লক্ষ্যভেদ করেন হালের অন্যতম সেরা এ তারকা।

৬৬ মিনিটে ব্যবধান আরও বাড়ায় বার্সেলোনা। নিজেদের অর্ধ থেকে গ্রিজমানের বাড়ানো গোলরক্ষককে একাই পেয়ে গিয়েছিলেন মেসি। চাইলে নিজেই গোল দিতে পারতেন। তবে শতভাগ নিশ্চিত হতে পাস দেন বাঁ প্রান্তে আগুয়ান সুয়ারেজকে। আলতো টোকায় বল জালে জড়াতে কোন ভুল করেননি এ উরুগুইয়ান। ৮৫তম মেসির পাস থেকে আরও একটু দারুণ সুযোগ পেয়েছিলেন সুয়ারেজ। কিন্তু তার শট বার পোস্ট ঘেঁষে লক্ষ্যভ্রষ্ট হয়। তবে তাতে কোন সমস্যা হয়নি দলটির। বড় জয় নিয়েই মাঠ ছাড়ে তারা।  

Comments

The Daily Star  | English

Quota protests: Trauma, pain etched on their faces

Lying in a hospital bed, teary-eyed Md Rifat was staring at his right leg, rather where his right leg used to be. He could not look away.

1h ago