জাবি সংকট: আচার্যের হস্তক্ষেপ কামনা শিক্ষক সমিতির

দুর্নীতির অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য ফারজানা ইসলামের অপসারণের দাবিতে ষষ্ঠদিনের মতো সর্বাত্মক ধর্মঘট পালন করছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।
JU-1.jpg
৩১ অক্টোবর ২০১৯, উপাচার্য ফারজানা ইসলামের অপসারণের দাবিতে শিক্ষার্থীদের প্রতিবাদ মিছিল। ছবি: সংগৃহীত

দুর্নীতির অভিযোগে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ের (জাবি) উপাচার্য ফারজানা ইসলামের অপসারণের দাবিতে ষষ্ঠদিনের মতো সর্বাত্মক ধর্মঘট পালন করছেন শিক্ষক-শিক্ষার্থীরা।

ইতিমধ্যে বিশ্ববিদ্যালয়ের একাডেমিক ও প্রশাসনিক কার্যক্রমে স্থবিরতা দেখা দিয়েছে। তবে ধর্মঘট উপেক্ষা করে বিভিন্ন বিভাগের উপাচার্যপন্থী শিক্ষকেরা ক্লাস ও পরীক্ষা নিচ্ছেন।

উদ্ভূত সমস্যা নিরসনে বিশ্ববিদ্যালয়ের আচার্য ও রাষ্ট্রপতি মো. আবদুল হামিদের হস্তক্ষেপ কামনা করেছে জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি।

আজ (২ নভেম্বর) শিক্ষক সমিতির সভাপতি অধ্যাপক ড. অজিত কুমার মজুমদার ও সম্পাদক অধ্যাপক ড. মো সোহেল রানা স্বাক্ষরিত বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়েছে, “জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয়ে বিদ্যমান অস্থিতিশীল পরিস্থিতি বিবেচনায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি উদ্বিগ্ন। শিক্ষক সমিতির কার্যনির্বাহী পরিষদের ২৮ অক্টোবরের সভায় সর্বসম্মতিতে বিশ্ববিদ্যালয়ের উদ্ভূত পরিস্থিতি নিরসনে তিন সদস্যের একটি কমিটি গঠন করে।”

তাতে বলা হয়, “উক্ত কমিটি ‘দুর্নীতির বিরুদ্ধে জাহাঙ্গীরনগর’, ‘অন্যায়ের বিরুদ্ধে এবং উন্নয়নের পক্ষে জাহাঙ্গীরনগর’ এবং উপাচার্যের সঙ্গে আলোচনা করে। সব পক্ষ বর্তমান সংকট নিরসনে আচার্যের হস্তক্ষেপের ব্যাপারে মত প্রকাশ করে।”

বিজ্ঞপ্তিতে আরও বলা হয়, “শিক্ষক সমিতি বিশ্ববিদ্যালয়ের সার্বিক অবস্থার উন্নয়নে আচার্যের কাছে আবেদন জানানোর সিদ্ধান্ত নিয়েছে। এমতাবস্থায় জাহাঙ্গীরনগর বিশ্ববিদ্যালয় শিক্ষক সমিতি সব পক্ষকে সহনশীল ও দায়িত্বপূর্ণ আচরণের অনুরোধ জানাচ্ছে।”

Comments