জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধিতে ইরানে বিক্ষোভ

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে ইরানে বিক্ষোভের ঘটনায় অন্তত একজন নিহত এবং আরও অনেকে আহত হয়েছে। জ্বালানি তেলের ওপর থেকে ভর্তুকি প্রত্যাহার করে শুক্রবার মধ্যরাত থেকে দাম ৫০ শতাংশ বাড়ানোর ঘোষণার পর থেকে বিক্ষোভ চলছে দেশটিতে।
তেলের মূল্যবৃদ্ধির ঘোষণা আসার পর তেহরানের রাস্তায় বিক্ষোভ। ছবি: রয়টার্স

জ্বালানি তেলের দাম বৃদ্ধির প্রতিবাদে ইরানে বিক্ষোভের ঘটনায় অন্তত একজন নিহত এবং আরও অনেকে আহত হয়েছে। জ্বালানি তেলের ওপর থেকে ভর্তুকি প্রত্যাহার করে শুক্রবার মধ্যরাত থেকে দাম ৫০ শতাংশ বাড়ানোর ঘোষণার পর থেকে বিক্ষোভ চলছে দেশটিতে।

গত শুক্রবার (১৫ নভেম্বর) ভোরের দিকে ইরানের রাষ্ট্রীয় টেলিভিশন চ্যানেলে ইরানি সরকারি তেল পণ্য বিতরণ সংস্থার একটি বিবৃতি সম্প্রচারিত করে জানিয়েছে স্মার্ট ফুয়েল কার্ড ব্যবহার করে দেশজুড়ে পেট্রোলকে রেশন ব্যবস্থার মাধ্যমে দেওয়া হবে। ব্যক্তিগত ব্যবহারের জন্য যানবাহনগুলো প্রতি মাসে ৬০ লিটার পর্যন্ত তেল নিতে পারবে। পেট্রোলের দাম লিটার প্রতি ১৫০০০ ইরানি রিয়াল (প্রায় ৩০ টাকা) করা হয়েছে। বরাদ্দের চেয়ে বেশি তেল কেনার জন্য প্রতি লিটারে অতিরিক্ত ৩০০০০ ইরানি রিয়াল দিতে হবে।

বিশ্বে তেল উৎপাদনের দিক থেকে ইরান পঞ্চম। বেশিরভাগ দেশের তুলনায় সেখানে পেট্রলের দাম কম। বিশ্লেষকরা বলছেন, যুক্তরাষ্ট্রের অবরোধে অর্থনীতি চাপে থাকায় তেলের দাম বাড়ানোর মতো অজনপ্রিয় সিদ্ধান্ত নিতে হয়েছে দেশটির সরকারকে। ট্রাম্প প্রশাসনের নিষেধাজ্ঞা ইরানের নিম্ন ও মধ্যম আয়ের মানুষের ওপর সবচেয়ে বেশি প্রভাব ফেলেছে।

ইরানের রাষ্ট্রপতি হাসান রুহানির সরকার এই উদ্যোগটি মানুষের জীবনযাত্রার মানোন্নয়নে সহায়ক হবে বলে সেদেশের জনগণকে আশ্বস্ত করার চেষ্টা করেছে। সেই সাথে ইরানের পরিকল্পনা ও বাজেট প্রধান মোহাম্মদ বাকের নোবখাত ঘোষণা করেছেন যে, এই উদ্যোগ থেকে প্রাপ্ত রাজস্ব ১ কোটি ৮০ লক্ষ পরিবারের ৬ কোটি মানুষের মাঝে বিতরণ করা হবে।

এই উদ্যোগ থেকে পাওয়া কোনো অর্থ সরকারি কোষাগারে জমা হবে না বলে জানিয়েছে রুহানি প্রশাসন।

উল্লেখ্য, ২০০৭ সালে তৎকালীন রাষ্ট্রপতি মাহমুদ আহমাদিনেজাদ প্রশাসনও পেট্রোল রেশনিং ব্যবস্থা চালু করে দাম বৃদ্ধি করেছিল।

Comments

The Daily Star  | English

NBR suspends Abdul Monem Group's import, export

It also instructs banks to freeze the Group's bank accounts

2h ago