নাটকীয় ড্রয়ের পরও শিষ্যদের উপর খেপেছেন সুলশার

ম্যাচের ৭২ মিনিট পর্যন্ত দুই গোলের ব্যবধানে এগিয়ে ছিল শেফিল্ড ইউনাইটেড। সেখান থেকে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে সাত মিনিটের ব্যবধানে তিন গোল আদায় করে উল্টো এগিয়ে যায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। শেষ মুহূর্তে আবার গোল শোধ করে শেফিল্ড। নাটকীয় এ ম্যাচটি রোমাঞ্চ ও উত্তেজনায় ভরপুর। কিন্তু এমন ম্যাচের পরও নিজের শিষ্যদের উপর বেজায় খেপেছেন ম্যানইউ কোচ ওলে গানার সুলশার।
ছবি: এএফপি

ম্যাচের ৭২ মিনিট পর্যন্ত দুই গোলের ব্যবধানে এগিয়ে ছিল শেফিল্ড ইউনাইটেড। সেখান থেকে দারুণভাবে ঘুরে দাঁড়িয়ে সাত মিনিটের ব্যবধানে তিন গোল আদায় করে উল্টো এগিয়ে যায় ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। শেষ মুহূর্তে আবার গোল শোধ করে শেফিল্ড। নাটকীয় এ ম্যাচটি রোমাঞ্চ ও উত্তেজনায় ভরপুর। কিন্তু এমন ম্যাচের পরও নিজের শিষ্যদের উপর বেজায় খেপেছেন ম্যানইউ কোচ ওলে গানার সুলশার।

প্রথমার্ধে ম্যানচেস্টার ইউনাইটেডের খেলোয়াড়দের সে অর্থে খুঁজে পাওয়া যায়নি। ম্যাচে প্রায় একক আধিপত্য ছিল শেফিল্ডের। খেলোয়াড়দের শারীরিক ভাষাও ছিল চোখে পড়ার মতো। তবে ধীরে ধীরে গুছিয়ে নেয় তারা। সাত মিনিটের ঝলকে তো এগিয়েই যায়। ৭৯তম মিনিটে মার্কস রাশফোর্ড যখন গোল দিলেন তখন মনে হচ্ছিল হয়তো জিতেই যাবে দলটি। কিন্তু নানা নাটকীয়তায় ভরা ম্যাচের যোগ করা সময়ে গোল করে ব্রামাল লেনে জিততে দেননি রেড ডেভিলদের। ৩-৩ গোলের সমতায় শেষ হয় ম্যাচটি।

প্রথমার্ধে খেলোয়াড়দের নিবেদন দেখা বেজায় খেপেছেন সুলশার। ম্যাচ পরবর্তী সংবাদ সম্মেলনে বলেছেন, 'আমি খুবই রাগান্বিত, হতাশ। অবশ্যই তাদের জেগে ওঠা উচিৎ। তাদের অবশ্যই কিছু করতে হবে। আমি চাইলে বিরতির পর গোলরক্ষক বাদে সবাইকে বদল করতে পারতাম। এটা ট্যাক্টিসের ব্যাপার নয়। এটা হচ্ছে ইচ্ছার ব্যাপার, বল নেওয়া, ট্যাকলিং করা ও চ্যালেঞ্জে জেতা। মাঝে মাঝে ট্যাকটিস এর বাইরে থাকে। জিততে হলে আপনাকে সঠিক জিনিসটা অর্জন করতে হবে। ৭০ মিনিট পর্যন্ত আমাদের মধ্যে এটা ছিল না। আমরা ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড দলের ধারে কাছেও ছিলাম না।'

তবে খেলোয়াড়রা যে ইচ্ছা করেই এমনটা করেছেন এমনটা সন্দেহ করছেন না ম্যানইউ কোচ। তরুণ খেলোয়াড়দের অনভিজ্ঞতাকেই দায় দিচ্ছেন সুলশার, 'এটা ইচ্ছাশক্তির কমতি না, হয়তো এটা নিজেদের উপর আত্মবিশ্বাসের অভাব। আমি অবশ্যই তাদের জয়ের স্পৃহা নিয়ে সন্দেহ করি না। তবে তরুণ খেলোয়াড়েরা জানেনা কীভাবে চ্যালেঞ্জ নিতে হয়। আমরা আজ অনেক কিছু অর্জন করেছি। আমি নিশ্চিত তারাও। ভয়ভীতি কাটিয়ে কীভাবে বিশ্বাস ও আত্মবিশ্বাস রেখে খেলা যায়।'

চলতি মৌসুমের শুরু থেকেই ভীষণ অধারাবাহিক ম্যানচেস্টার ইউনাইটেড। ১৩ ম্যাচে চার জয় ও পাঁচ ড্রয়ে ১৭ পয়েন্ট নিয়ে নবম স্থানে রয়েছে তারা। চিরপ্রতিদ্বন্দ্বী লিভারপুল সমান ম্যাচে ৩৭ পয়েন্ট নিয়ে শীর্ষে রয়েছে।

Comments

The Daily Star  | English