খেলা

মানের চতুর্থ হওয়া লজ্জার: মেসি

গত মৌসুমে লিভারপুলের হয়ে দুর্দান্ত মৌসুম কাটিয়েছেন সেনেগাল তারকা সাদিও মানে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ে মুখ্য ভূমিকা রেখেছেন। ইংলিশ লিগেও দারুণ খেলেছেন। এমন দারুণ মৌসুম কাটানোর পরও এবারের ব্যালন ডি'অরে তার নামটা ছিল চতুর্থ স্থানে। আর এটা মেনে নিতে পারছেন না বিজয়ী লিওনেল মেসি। তার দৃষ্টিতে গত মৌসুমের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়ই ছিলেন এ সেনেগাল তারকা। তাই এটাকে লজ্জাজনকই বলেছেন এ আর্জেন্টাইন তারকা।
ছবি: এএফপি

গত মৌসুমে লিভারপুলের হয়ে দুর্দান্ত মৌসুম কাটিয়েছেন সেনেগাল তারকা সাদিও মানে। চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ে মুখ্য ভূমিকা রেখেছেন। ইংলিশ লিগেও দারুণ খেলেছেন। এমন দারুণ মৌসুম কাটানোর পরও এবারের ব্যালন ডি'অরে তার নামটা ছিল চতুর্থ স্থানে। আর এটা মেনে নিতে পারছেন না বিজয়ী লিওনেল মেসি। তার দৃষ্টিতে গত মৌসুমের অন্যতম সেরা খেলোয়াড়ই ছিলেন এ সেনেগাল তারকা। তাই এটাকে লজ্জাজনকই বলেছেন এ আর্জেন্টাইন তারকা।

প্যারিসে এবার মানের সতীর্থ ভার্জিল ভ্যান ডাইককে পেছনে ফেলে ব্যালন ডি'অর নিজের করে নিয়েছেন মেসি। এ নিয়ে ষষ্ঠবার এ সম্মান পেলেন তিনি। এর আগে ফিফা বর্ষসেরার পুরস্কারও জিতেছেন তিনি। সে পুরস্কারে অবশ্য আর্জেন্টাইন অধিনায়ক হিসেবে ভোট দেওয়ার সুযোগ ছিল তারও। আর তার ভোটটা গিয়েছিল মানের বাক্সেই। যদিও সেবারও সেরা তিনে ছিলেন না মানে।

এবার ব্যালন ডি'অরেও না থাকায় বিস্ময়টা আরও বেড়েছে মেসির। ক্যানেল প্লাসকে দেওয়া সাক্ষাৎকারে বলেছেন, 'মানেকে চতুর্থ স্থানে দেখা এটা খুবই লজ্জার। তবে আমি মনে করে এ বছর অনেকেই দারুণ খেলেছে। এ কারণেই নির্দিষ্ট একজনকে পছন্দ করাটা কঠিন হয়ে যায়। তবে আমি মানেকে বেছে নিয়েছিলাম কারণ আমি এমন খেলোয়াড়ই পছন্দ করি। গোটা লিভারপুল দলের দারুণ পারফরম্যান্সের মধ্যেও সে আলাদা অসাধারণ একটি বছর কাটিয়েছে। এ কারণেই আমি তাকে বেছে নিয়েছিলাম। আমি আবারো বলছি, এ বছর অনেক দারুণ খেলোয়াড় ছিল। তাই একজন বেছে নেওয়া বেশ কঠিন ছিল।'

ব্যালন ডি’অরে এবার ৬৮৬ পয়েন্ট পেয়ে প্রথম হয়েছেন মেসি। তার থেকে ৭ পয়েন্ট কম পেয়ে দ্বিতীয় স্থানে ছিলেন ভ্যান ডাইক। তৃতীয় স্থানে থাকা ক্রিস্তিয়ানো রোনালদো পেয়েছেন ৪৭৬ ভোট। ৩৪৭ ভোট পেয়ে চার নম্বরে ছিলেন মানে। অথচ গত মৌসুমে চ্যাম্পিয়ন্স লিগ জয়ে অন্যতম প্রধান অবদান ছিল তার। সতীর্থ মোহাম্মদ সালাহ ও আর্সেনালের পিয়েরে-এমরিক আবামেয়াংয়ের সমান ২২ গোল করে যৌথভাবে ইংলিশ লিগের সর্বোচ্চ গোলদাতার পুরস্কারও জিতেছেন। লিগে শেষ পর্যন্ত না পারলেও চ্যাম্পিয়ন্সশিপ লড়াইয়ে রেখেছিলেন দলকে।

 

Comments

The Daily Star  | English

Battery-run rickshaws to ply on Dhaka roads: Quader

Road, Transport and Bridges Minister Obaidul Quader today said the battery-run rickshaws and easy bikes will ply on the Dhaka city roads

36m ago