খেলা

এবার মিরপুরের উইকেট উল্টো ধোঁকা দিয়েছে ঢাকার কোচকে

মন্থর উইকেটে বল আস্তে আসছে, হুট করেই নিচু হয়ে যাচ্ছে, স্পিনারদের জন্য আছে লোভনীয় টার্ন। এতদিন মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উইকেটের চরিত্র ছিল এমনই। কিন্তু এবারের বিপিএলে ভিন্ন চিত্র। মিরপুরের বাইশ গজে এবার বাউন্স চমৎকার, বল ব্যাটে আসে দারুণভাবে। স্ট্রোক খেলা হচ্ছে সহজ। তাই সিলেট থান্ডারের বিপক্ষে জয়ের পরও ঢাকা প্লাটুনের কোচ মোহাম্মদ সালাউদ্দিন বলছেন, উইকেট এমন হবে জানলে দলটা অন্যভাবে সাজাতেন তিনি।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

মন্থর উইকেটে বল আস্তে আসছে, হুট করেই নিচু হয়ে যাচ্ছে, স্পিনারদের জন্য আছে লোভনীয় টার্ন। এতদিন মিরপুর শেরে বাংলা ক্রিকেট স্টেডিয়ামের উইকেটের চরিত্র ছিল এমনই। কিন্তু এবারের বিপিএলে ভিন্ন চিত্র। মিরপুরের বাইশ গজে এবার বাউন্স চমৎকার, বল ব্যাটে আসে দারুণভাবে। স্ট্রোক খেলা হচ্ছে সহজ। তাই সিলেট থান্ডারের বিপক্ষে জয়ের পরও ঢাকা প্লাটুনের কোচ মোহাম্মদ সালাহউদ্দিন বলছেন, উইকেট এমন হবে জানলে দলটা অন্যভাবে সাজাতেন তিনি।

বিপিএলের প্রথম ধাপে মিরপুরে চার দিনে ম্যাচ হয়েছে আটটি। খেলা হয়েছে আলাদা দুটি উইকেটে। এসব ম্যাচে ব্যাটসম্যানদের দেখা গেছে স্বচ্ছন্দে খেলতে। রংপুর রেঞ্জার্স ও সিলেট থান্ডার একশোর নিচে একবার করে অলআউট হলেও তাতে উইকেটকে দোষ দেওয়ার উপায় নেই। কারণ ওসব ম্যাচে প্রতিপক্ষের ব্যাটসম্যানদের দেখা গেছে অনায়াসে শট খেলতে।

১৭০-১৮০ ছাড়িয়েছে একাধিক ইনিংস। বিশেষ করে দেখা মেলেনি অসমান বাউন্সের। উইকেট দেখে তাই খুশি ক্রিকেটাররা। শনিবার (১৪ ডিসেম্বর) রাতে ১৮২ রান করে সিলেটকে ২৪ রানে হারিয়ে আসার পর ঢাকার কোচ সালাহউদ্দিন উইকেট দেখে জানান বিস্ময়, ‘আমি যদি জানতাম ঢাকার উইকেট এমন হবে, আমার দল আরেকরকম হতো। আসলে আমি খুব সারপ্রাইজড। প্রশংসার দাবি রাখে যে এমন উইকেট টি-টোয়েন্টিতে পাওয়া যাচ্ছে এবং খুব ভালো রান হচ্ছে। সত্যি কথা বললে, যদি উইকেট এমন হতো জানতাম, আমার কৌশল ভিন্ন হতো। অবশ্যই কিউরেটরদের বাহবা দিতে হবে। এখানে এত ভালো উইকেটে অনেকদিন আমরা খেলিনি।’

উইকেট সচরাচরের চেয়ে ভিন্ন হবে জানলে কেমন দল হতো তারও একটা ধারণা দিয়েছেন সালাহউদ্দিন। মন্থর উইকেটে খেলতে পটু দেশি ব্যাটসম্যানদের জায়গায় বিদেশি স্ট্রোক-মেকারদের দলে নিতেন ঘরোয়া ক্রিকেটের সফল এই কোচ, ‘হয়তো ধাক্কাটা লোকাল খেলোয়াড়দের ওপর দিয়েই যেত বেশি। কারণ এই উইকেটে রান করাটা একটু সহজ। যারা একটু বেশি স্ট্রোক খেলতে পারে, তাদের জন্য আদর্শ।’

তবে আসর জুড়ে এমন উইকেট থাকলে দেশি ব্যাটসম্যানদেরও সুবিধা দেখছেন সালাহউদ্দিন। তার মতে, ভালো উইকেটে খেলে নিজেদের আত্মবিশ্বাস বাড়াতে পারবেন লিটন দাস-মোহাম্মদ মিঠুনরা, ‘আমাদের ছেলেরাও ভালো বোলিংয়ের বিপক্ষে রান করছে। এরকম উইকেটে খেললে আমাদের ছেলেদেরও শটের রেঞ্জ বাড়বে। আগে হতো কি, বিশ্বাস ছিল না যে মারলে যাবে তো (বাউন্ডারিতে)। লিটনকে আমার খুব সেন্সিবল মনে হয়েছে। যেমন উইকেটে যেমন খেলা দরকার, তেমন খেলছে। ইমরুল কায়েস ভালো ব্যাটিং করছে, মিঠুন প্রথম ম্যাচে ভালো করেছে। নিজেদের আত্মবিশ্বাস বাড়বে এমন উইকেটে খেললে।’

Comments

The Daily Star  | English

Cyclones now last longer

Remal was part of a new trend of cyclones that take their time before making landfall, are slow-moving, and cause significant downpours, flooding coastal areas and cities. 

7h ago