সেনা প্রত্যাহারের চিঠি ‘ভুল’ ইরাক ছাড়ার পরিকল্পনা নেই: পেন্টাগন প্রধান

ইরাক থেকে মার্কিন সেনাবাহিনীকে প্রত্যাহার করে নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে, রবিবার এ সংক্রান্ত বার্তা দিয়ে একটি চিঠি ইস্যু করলেও পেন্টাগন থেকে এখন বলা হচ্ছে যে, ‘ভুল করে’ সেটি পাঠানো হয়েছিলো।
Esper.jpg
যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সচিব মার্ক এসপার। ছবি: সংগৃহিত

ইরাক থেকে মার্কিন সেনাবাহিনীকে প্রত্যাহার করে নেওয়ার প্রস্তুতি চলছে, রবিবার এ সংক্রান্ত বার্তা দিয়ে একটি চিঠি ইস্যু করলেও পেন্টাগন থেকে এখন বলা হচ্ছে যে, ‘ভুল করে’ সেটি পাঠানো হয়েছিলো।

ইরাক থেকে মার্কিন সেনা প্রত্যাহারের আপাতত কোনো পরিকল্পনা নেই বলে জানিয়েছেন যুক্তরাষ্ট্রের প্রতিরক্ষা সচিব মার্ক এসপার।

রয়টার্স ও আল-জাজিরার প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, গতকাল (৬ জানুয়ারি) পেন্টাগনে আয়োজিত সংবাদ সম্মেলনে এসপার সাংবাদিকদের বলেছেন, “ইরাক ছেড়ে যাওয়ার বিষয়ে কোনো সিদ্ধান্ত নেওয়া হয়নি।”

শুক্রবার (৩ জানুয়ারি) বাগদাদে মার্কিন ড্রোন হামলায় ইরান ও ইরাকি সেনাবাহিনীর সিনিয়র কমান্ডারদের নিহত হওয়ার পর ইরাকি সংসদ প্রস্তাব পাশ করেছে যে, সেদেশ থেকে বিদেশি সেনাবাহিনী চলে যেতে হবে।

এরপর মার্কিন সেনাবাহিনীর ইরাকি টাস্কফোর্সের প্রধান ব্রিগেডিয়ার জেনারেল উইলিয়াম সেলি রবিবার (৫ জানুয়ারি) একটি চিঠিতে ইরাকি ফোর্সকে জানিয়েছিলেন যে, তারা চলে যাওয়ার প্রস্তুতি নিচ্ছেন।

গতকাল পেন্টাগন প্রধান মার্ক এসপার সাংবাদিকদেরকে জানান যে, সেনা প্রত্যাহারের প্রস্তুতি সম্পর্কে মার্কিন সামরিক চিঠিটির সিদ্ধান্ত সঠিক নয় এবং ইরাকে অবস্থানরত মার্কিন সেনাবাহিনীকে প্রত্যাহারের কোনো পরিকল্পনা তাদের নেই।

পেন্টাগনের জয়েন্ট চিফ অফ স্টাফ চেয়ারম্যান জেনারেল মার্ক মিলি বলেছেন, “চিঠিটি কেবল একটি খসড়া ছিলো এবং সেটি পাঠানো উচিত হয়নি।”

“বিমান ও অন্যান্য সামরিক চলাচল সমন্বয় করার জন্য খসড়া চিঠিটি ইরাকি সামরিক কর্মকর্তাদের কাছে পাঠানো হয়েছিলো। তারপর এটি কয়েকজনের হাত ঘুরে আপনাদের কাছে পর্যন্ত চলে গেছে”, সাংবাদিকদের উদ্দেশ্যে বলেন মিলি।

ইরাকে আইএসের পুনরুত্থান ঠেকাতে যুক্তরাষ্ট্রের নেতৃত্বাধীন যৌথ সামরিক জোটে প্রায় ৫ হাজার মার্কিন সেনা নিয়োজিত রয়েছে।

Comments