ইরানের হামলার আড়াই ঘণ্টা আগে বাঙ্কারে আশ্রয় নেয় মার্কিন সেনারা

জেনারেল কাশেম সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নিতে ইরান আল-আসাদ বিমান ঘাঁটিতে হামলা চালাবে এ তথ্য আগে থেকেই জানতেন মার্কিন সেনারা। তাই ক্ষেপণাস্ত্র হামলার আড়াই ঘণ্টা আগেই সেখানকার সেনাদের বাঙ্কারে ও অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল বলে সিএনএনের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।
Satellite image
লাল বৃত্তে চিহ্নিত অংশে দেখা যাচ্ছে ইরাকের আইন আল-আসাদ এলাকায় আমেরিকার বিমানঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র আঘাতের স্থান। ৮ জানুয়ারি ২০২০। ছবি: সংগৃহীত

জেনারেল কাশেম সোলাইমানি হত্যার প্রতিশোধ নিতে ইরান আল-আসাদ বিমান ঘাঁটিতে হামলা চালাবে এ তথ্য আগে থেকেই জানতেন মার্কিন সেনারা। তাই ক্ষেপণাস্ত্র হামলার আড়াই ঘণ্টা আগেই সেখানকার সেনাদের বাঙ্কারে ও অন্যত্র সরিয়ে নেওয়া হয়েছিল বলে সিএনএনের প্রতিবেদনে জানানো হয়েছে।

প্রতিবেদনে বলা হয়েছে, বেশিরভাগ সেনা রাত ১১টা নাগাদ বাঙ্কারে আশ্রয় নিয়েছিল। এরপর রাত দেড়টার দিকে ইরান ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায়।

ইরাকে আল আসাদ বিমান ঘাঁটিতে ইরানের ক্ষেপণাস্ত্র হামলার পর ঘাঁটটি পরিদর্শন করে এসেছে সিএনএনের সাংবাদিকরা। যুক্তরাষ্ট্রের কর্মকর্তারা সিএনএনকে জানায় যে, চার দফায় চলা ক্ষেপণাস্ত্র হামলা প্রায় দুই ঘণ্টা ধরে চলে। বিমান ঘাঁটির যে দিকটায় যুক্তরাষ্ট্রের বাহিনী ব্যবহার করে শুধুমাত্র সে দিকটাকে লক্ষ্য করেই এই হামলা চালায় ইরান।

সিএনএনকে তারা জানান যে, এই হামলায় কোনো হতাহতের ঘটনা ঘটেনি। যেসব বাঙ্কারে সেনা সদস্যরা আশ্রয় নিয়েছিল তার মাত্র কয়েক মিটার দূরেই ক্ষেপণাস্ত্র এসে আঘাত করে। অনেকটা ‘অলৌকিকভাবে’ রক্ষা পেয়েছেন তারা সবাই।

সিএনএন জানায়, মার্কিন সেনারা আগে থেকেই হামলার তথ্য জানলেও হামলার ধরন কেমন হবে তা জানতেন না। আর হামলার আগে সেনারা নিজেদের মধ্যে আলোচনা করে আগেভাগেই বাঙ্কারে আশ্রয় নিতে পেরেছিলেন।

গত ৮ জানুয়ারি ইরাকে অবস্থিত দুটি মার্কিন বিমান ঘাঁটিতে ক্ষেপণাস্ত্র হামলা চালায় ইরান। এর একটি ছিল আল আসাদ বিমান ঘাঁটি।

একটি কূটনৈতিক সূত্র সিএনএনকে জানায়, ইরানের হামলার পরিকল্পনা আগেই যুক্তরাষ্ট্রকে জানিয়ে দিয়েছিল ইরাকি কর্মকর্তারা।

Comments

The Daily Star  | English

Home minister says it's a planned murder

Three Bangladeshis arrested; police yet to find his body

47m ago