খেলা

ওপেনিংয়ে লিটন-আফিফেই ভরসা রাসেলের

বিপিএলে এবার অন্যতম চমক ছিল আফিফ হোসেন ধ্রুবর পুরোদস্তুর ওপেনার বনে যাওয়া। বিশেষ করে লিটন কুমার দাসের সঙ্গে তার রসায়নটা হয়েছে দেখার মতো। লিগ পর্বে প্রায় প্রতি ম্যাচেই সফল ছিল এই ওপেনিং জুটি। কিন্তু নক-আউট পর্বে গিয়ে ছেদ পড়ে সে ধারায়। যে কারণে ভুগতে হয়েছে দলকেও। তাই ফাইনালে ওপেনিং জুটিতে পরিবর্তনের গুঞ্জন ছিল চড়া। তবে সে গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন রাজশাহী রয়্যালস অধিনায়ক আন্দ্রে রাসেল।
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

বিপিএলে এবার অন্যতম চমক ছিল আফিফ হোসেন ধ্রুবর পুরোদস্তুর ওপেনার বনে যাওয়া। বিশেষ করে লিটন কুমার দাসের সঙ্গে তার রসায়নটা হয়েছে দেখার মতো। লিগ পর্বে প্রায় প্রতি ম্যাচেই সফল ছিল এই ওপেনিং জুটি। কিন্তু নক-আউট পর্বে গিয়ে ছেদ পড়ে সে ধারায়। যে কারণে ভুগতে হয়েছে দলকেও। তাই ফাইনালে ওপেনিং জুটিতে পরিবর্তনের গুঞ্জন ছিল চড়া। তবে সে গুঞ্জন উড়িয়ে দিয়েছেন রাজশাহী রয়্যালস অধিনায়ক আন্দ্রে রাসেল। লিটন-আফিফে তার পূর্ণ আস্থা রয়েছে বলে জানিয়েছেন এই ক্যারিবিয়ান তারকা।

রাজশাহীর হয়ে এবারের আসরে চতুর্থ ম্যাচ থেকে লিটনের সঙ্গে ওপেনিংয়ে জুটি বেঁধেছেন আফিফ। এর আগে লিটনের সঙ্গে ওপেনিংয়ে নামতেন আফগান তারকা হজরতউল্লাহ জাজাই। প্রথম ম্যাচটা ভালোই খেলেছিলেন জাজাই। কিন্তু পরের দুই ম্যাচে প্রায় শূন্য হাতে ফেরেন তিনি। তাই চতুর্থ ম্যাচে বাদ পড়ে যান এই আফগান। তার পরিবর্তে তিন নম্বরে ব্যাট করতে থাকা আফিফ নামেন ওপেনিংয়ে। প্রথম দিনেই চমক। খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে ফিরতি ম্যাচে ৭৫ রানের জুটি উপহার দেন লিটন ও আফিফ।

এরপর থেকে নিয়মিত ওপেনিংয়ে নেমেছেন ডানহাতি লিটন ও বাঁহাতি আফিফ। গ্রুপ পর্বে দুজনের নয় উদ্বোধনী জুটিতে ৫০.৬৭ গড়ে আসে মোট ৪৫৬ রান। তাদের জুটিগুলো ক্রমানুসারে এমন- ৭৫, ৬০, ৫৬, ৩৯, ১২, ৫১, ৫৯, ১৬ ও ৮৮। ছয় ম্যাচে পঞ্চাশোর্ধ্ব রান। শুধু তাই নয়, ইনিংসের শুরুতে জোট বাঁধার আগে আসরের দ্বিতীয় ম্যাচে দ্বিতীয় উইকেটে তারা যোগ করেছিলেন ৬২ রান।

কিন্তু নক-আউট পর্বে খুলনা টাইগার্সের বিপক্ষে প্রথম কোয়ালিফায়ারে তাদের ওপেনিং জুটিতে আসে ২ রান। আর ৮ রান আসে দ্বিতীয় কোয়ালিফায়ারে চট্টগ্রাম চ্যালেঞ্জার্সের বিপক্ষে। তাতেই আলোচনা নক-আউট পর্বের চাপ নিতে পারছেন না তারা। সব মিলিয়ে এবারের আসরে এই দুই ব্যাটসম্যানের জুটিতে ১৩ ম্যাচে ৪২ গড়ে এসেছে ৫৪৬ রান। আর ওপেনিং জুটি হিসেবে ১১ ম্যাচে ৪২.৩৬ গড়ে ৪৬৬ রান।

তাই শেষ দুটি ম্যাচ প্রত্যাশা পূরণ না হলেও গোটা আসরের পারফরম্যান্স বিচারে রাজশাহী অধিনায়কের আস্থা রয়েছে লিটন-আফিফের ওপর। বৃহস্পতিবার (১৬ জানুয়ারি) রাসেল বলেছেন, ‘যে কোনো দলে, টপ অর্ডারে ভালো দুজন ব্যাটসম্যান যারা পাওয়ার প্লেতে ভালো স্কোর করে, সেটা খুব ভালো। আমার মনে হয়, আফিফ ও লিটন আমাদের দলে খুবই ভালো করছে। যদিও শেষ ম্যাচে তারা সংগ্রাম করেছে, তবে আমি এটা বলতে যাব না যে তারা সাহায্য করেনি। আমার মনে হয়, তারা আগামীকাল (শুক্রবার) আমাদের ভালো সূচনা এনে দিতে যাচ্ছে। আমরা জানি, একদিন আগে তাদের বিপক্ষে জিততে পারিনি। তবে আমার বিশ্বাস, তারা ভালো করবে এবং আত্মবিশ্বাসের সঙ্গে নিজেদের প্রকাশ করবে। আমি জানি, প্রত্যেকেই আগামীকালের জন্য উজ্জীবিত। আশা করছি, কাল ভালো ম্যাচ হবে।’

Comments

The Daily Star  | English

Rain drenches Dhaka amid heatwave

The city dwellers got some relief after rain drenched Dhaka amid ongoing heatwave across the country today

20m ago