মাহমুদউল্লাহদের নিরাপত্তায় ১০ হাজার পুলিশ, থাকছে কমান্ডো-রেঞ্জার্সও

পাকিস্তানে আসন্ন দুই সফরে নিরাপত্তার চাদরে মুড়িয়ে রাখা হবে মাহমুদউল্লাহদের। প্রস্তাবিত পরিকল্পনা অনুসারে, লাহোরে মোতায়েন করা হবে ১০ হাজারের বেশি পুলিশ সদস্যকে, রাওয়ালপিন্ডিতে থাকবেন ৪ হাজারের বেশি পুলিশ।
pakistan security
ফাইল ছবি: এএফপি

চলতি মাসে পাকিস্তানের লাহোরে তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি খেলে দেশে ফেরার পর আবার সেখানে গিয়ে ফেব্রুয়ারির শুরুর দিকে রাওয়ালপিন্ডিতে একটি টেস্ট খেলবে বাংলাদেশ। এই দুই সফরে নিরাপত্তার চাদরে মুড়িয়ে রাখা হবে মাহমুদউল্লাহদের। লাহোরে মোতায়েন করা হবে ১০ হাজারের বেশি পুলিশ সদস্যকে, রাওয়ালপিন্ডিতে থাকবেন ৪ হাজারের বেশি পুলিশ। তাদের পাশাপাশি রাখা হবে সেনাবাহিনীর কমান্ডো, আধাসামরিক বাহিনী রেঞ্জার্সের সদস্যদেরও। বাংলাদেশ দলকে সর্বোচ্চ নিরাপত্তা দিতে পাকিস্তানের আইন-শৃঙ্খলা বিষয়ক মন্ত্রিসভার কমিটির বৈঠকে রাখা হয়েছে এসব প্রস্তাব।

পাকিস্তানের গণমাধ্যম দ্য নিউজ ইন্টারন্যাশনাল জানিয়েছে, শনিবার (১৮ জানুয়ারি) অনুষ্ঠিত হয়েছে বৈঠক। সেখানে আলোচনা হয়েছে নিরাপত্তা পরিকল্পনা নিয়ে। পাঞ্জাবের আইনমন্ত্রী রাজা বাশারত ছিলেন বৈঠকের আহ্বায়ক। পাকিস্তানের আইন প্রয়োগকারী সংস্থাগুলোকে জানানো হয়েছে নিরাপত্তা পরিকল্পনা সম্পর্কে। সেখানে উপস্থিত ছিলেন দেশটির ক্রিকেট বোর্ডের (পিসিবি) প্রতিনিধিরাও।

সভায় বলা হয়েছে, বাংলাদেশের ক্রিকেটারদের থাকার জায়গা এবং লাহোর ও রাওয়ালপিন্ডি স্টেডিয়ামে যাওয়ার পথে থাকবে কঠোর নিরাপত্তা ব্যবস্থা। লাহোরে থাকবেন ১০ হাজারের বেশি পুলিশ। জরুরি পরিস্থিতিতে দ্রুত ব্যবস্থা নেওয়ার জন্য নিয়োগ দেওয়া হবে ১৯ জন বিশেষ কর্মকর্তাকে। সেনাবাহিনীর কমান্ডো আর রেঞ্জার্সও মোতায়েন রাখা হবে। আর রাওয়ালপিন্ডিতে সামরিক ব্যাটালিয়ন ও রেঞ্জার্স উইংয়ের পাশাপাশি থাকবেন ৪ হাজারের বেশি পুলিশ সদস্য। ব্যবহার করা হবে ক্লোজ সার্কিট ক্যামেরা। পুঙ্খানুপুঙ্খ তল্লাশি চালানো হবে স্টেডিয়ামের ভেতরে ও বাইরে যাওয়ার পথে।

রাজা বাশারত বলেছেন, সফরকারী বাংলাদেশ দলকে দেওয়া হবে নিখুঁত নিরাপত্তা। এসময় পাকিস্তানের সাধারণ জনগণের যেন কোনো ভোগান্তি না হয়, সেজন্য যানজট সমস্যা কমিয়ে আনার চেষ্টা করবেন তারা। প্রস্তাবিত পরিকল্পনায় যেসব ফাঁক আছে, সেসব পূরণে ইসলামাবাদ পুলিশের সঙ্গে রাওয়ালপিন্ডি পুলিশকে সমন্বয় করতে বলেছেন তিনি।

নিরাপত্তাজনিত শঙ্কার কারণে অনেক টানাপড়েনের পর তিন মাসে তিনবার পাকিস্তান সফরে যেতে সম্মত হয়েছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। তিন ম্যাচের টি-টোয়েন্টি সিরিজ মাঠে গড়াবে আগামী ২৪ জানুয়ারি। ২৫ ও ২৭ তারিখে হবে পরের দুটি ম্যাচ। এই সিরিজ খেলতে তামিম ইকবাল-মোস্তাফিজুর রহমানরা দেশ ছাড়বেন ২৩ জানুয়ারি। সফর শেষ করে ফিরে আসবেন ২৮ জানুয়ারি। বাংলাদেশের দ্বিতীয় দফা পাকিস্তান সফরে একমাত্র টেস্ট ম্যাচটি শুরু হবে আগামী ৭ ফেব্রুয়ারি।

তৃতীয় ধাপে আগামী ৩ এপ্রিল করাচিতে একমাত্র ওয়ানডের পর ৫ এপ্রিল থেকে সেখানেই হবে বাংলাদেশ-পাকিস্তানের মধ্যকার দ্বিতীয় টেস্ট। তবে মন্ত্রিসভার কমিটির বৈঠকে করাচির নিরাপত্তা ব্যবস্থা নিয়ে কোনো আলোচনা হয়নি।

Comments

The Daily Star  | English
IMF loan conditions

3rd Loan Tranche: IMF team to focus on four key areas

During its visit to Dhaka, the International Monetary Fund’s review mission will focus on Bangladesh’s foreign exchange reserves, inflation rate, banking sector, and revenue reforms.

7h ago