‘বিশ্রাম’ নয়, মোস্তাফিজের বেলায় এবার ব্যবহৃত হলো ‘বাদ’

কখনো চোট মোস্তাফিজকে দলের বাইরে রেখেছে। কখনো নির্বাচকরা তাকে দলে নেননি। কিন্তু ‘বাদ’ দেওয়ার কথা কখনো উল্লেখ করেননি নির্বাচকরা।
mustafizur rahman
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

গেল অগাস্ট মাসে বাংলাদেশের দায়িত্ব নেওয়ার কিছু দিন পর মিরপুর শেরে বাংলা স্টেডিয়ামে জনাকয়েক সাংবাদিকের সঙ্গে আড্ডা দিচ্ছিলেন প্রধান কোচ রাসেল ডমিঙ্গো। অদূরেই তখন অনুশীলন করছিলেন মোস্তাফিজুর রহমান। তার প্রসঙ্গ উঠতেই রাসেলের মুখ থেকে বেরিয়ে এসেছিল, ‘হি ইজ ভেরি গুড ফর শর্টার ভার্সন (ক্রিকেটের সংক্ষিপ্ত সংস্করণের জন্য সে খুবই ভালো)।’

তাহলে কি মোস্তাফিজ নেই টেস্টের বিবেচনায়? তখন কোচের কাছ থেকে জবাব জানতে চেয়েও পাওয়া যায়নি। সেই ঘটনার কয়েক মাস পর বাংলাদেশ জাতীয় ক্রিকেট দলের প্রধান নির্বাচক মিনহাজুল আবেদিন নান্নু যেন জানিয়ে দিলেন উত্তরটা- আসন্ন পাকিস্তান সফরের টেস্ট দল থেকে ‘মোস্তাফিজকে বাদ দেওয়া হয়েছে’। এই কথায় ফুটে উঠল এক রাশ শঙ্কা আর আক্ষেপও।

শনিবার (১ ফেব্রুয়ারি) পাকিস্তানের বিপক্ষে রাওয়ালপিন্ডি টেস্টের জন্য ১৪ সদস্যের দল ঘোষণা করেছে বাংলাদেশ ক্রিকেট বোর্ড (বিসিবি)। সেখানে ঠাঁই মেলেনি ভারতের বিপক্ষে বাংলাদেশের সবশেষ টেস্ট সিরিজের স্কোয়াডে থাকা মোস্তাফিজসহ মোট ছয় জনের।

এদের মধ্যে চার জন চোটে আক্রান্ত- ইমরুল কায়েস, মেহেদী হাসান মিরাজ, মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত ও সাদমান ইসলাম। আগেই নিজেকে প্রত্যাহার করে নিয়েছেন অভিজ্ঞ ব্যাটসম্যান মুশফিকুর রহিম। তাই স্বাভাবিকভাবেই নেই তিনি। কিন্তু মোস্তাফিজ চোটে নেই, পাকিস্তান যেতেও আপত্তি নেই তার। কয়েক দিন আগেই সেখানে গিয়ে টি-টোয়েন্টি সিরিজে খেলে এসেছেন। তাহলে?

মোস্তাফিজকে বাদ দেওয়া হয়েছে। কারণ পারফরম্যান্স দিয়ে নির্বাচকদের মন ভরাতে পারেনি তিনি। নতুন কোচ ডমিঙ্গোর অধীনে বাংলাদেশ এখন পর্যন্ত তিন টেস্ট খেললেও মোস্তাফিজ কোনোটিরই একাদশে জায়গা পাননি। সবশেষ কলকাতায় ঐতিহাসিক দিবা-রাত্রির টেস্টে বাংলাদেশ তিন পেসার খেলালেও, দলের সেরা পেসারের তকমা যার গায়ে, সেই মোস্তাফিজ ছিলেন দর্শক হয়ে।

২০১৫ সালে অভিষেকের পর থেকে একটানা খেলে যেতে পারেননি কাটার মাস্টার খ্যাত তারকা। তাকে ছাড়াই অনেক সিরিজে লড়াই করতে হয়েছে বাংলাদেশকে। কখনো চোট তাকে দলের বাইরে রেখেছে, কখনো নির্বাচকরা দলে নেননি। কিন্তু ‘বাদ’ দেওয়ার কথা কখনো উল্লেখ করেননি নির্বাচকরা। প্রতিবারই ব্যবহার করা হয়েছে ‘বিশ্রাম’ শব্দটি। এবারই স্পষ্ট করে বলা হলো- মোস্তাফিজ ‘বাদ’।

বাংলাদেশ দল ঘোষণার পর দ্য ডেইলি স্টারের কাছে প্রধান নির্বাচক নান্নু বলেছেন, ‘ওকে (মোস্তাফিজ) বাদ দেওয়া হয়েছে। পারফরম্যান্সের কারণে বাদ দেওয়া হয়েছে। দীর্ঘ সংস্করণের ক্রিকেটে ওর পারফরম্যান্স যথেষ্ট ভালো নয়। আমরা মনে করছি, অন্যরা এই জায়গায় তার চেয়ে ভালো অপশন।’

দেশের হয়ে সাদা পোশাকে শেষবার মোস্তাফিজ মাঠে নেমেছিলেন গেল বছর মার্চে নিউজিল্যান্ড সফরে। এখন পর্যন্ত তিনি খেলেছেন মোট ১৩ টেস্ট। সাদামাটা ৩৫.১৭ গড়ে তার শিকার ২৮ উইকেট। নিজের শেষ ৩ টেস্টে মাত্র ২ উইকেট নিতে পেরেছেন তিনি।

Comments

The Daily Star  | English

Why was Abu Sayed shot dead in cold blood?

Why was Abu Sayed of Rangpur's Begum Rokeya University shot down by police? He was standing alone, totally unarmed with arms stretched out, holding no weapons but a stick

32m ago