খেলা

ভারতের সঙ্গে কান্নার গল্প অবসানের সুযোগ আকবরদের সামনে

এবার যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে সামনে একই প্রতিপক্ষ। আগের সব দেনা বিশ্বকাপ মঞ্চেই পুষিয়ে দেওয়ার সুযোগ আকবর আলিদের সামনে।
ছবি: বিসিবি

বাংলাদেশ-ভারত ক্রিকেট ম্যাচ মানেই যেন এক তরফা আক্ষেপের গল্প। উত্তেজনা ছড়াবে, রোমাঞ্চ তৈরি হবে কিন্তু শেষে গিয়ে হারবে বাংলাদেশ। সিনিয়র দলের মতো জুনিয়রদের ক্রিকেটেও গত এক বছরে ভারতের কাছে দুটি ফাইনাল কাছে গিয়েও হেরেছে বাংলাদেশ। এবার যুব বিশ্বকাপের ফাইনালে সামনে একই প্রতিপক্ষ। আগের সব দেনা বিশ্বকাপ মঞ্চেই পুষিয়ে দেওয়ার সুযোগ  আকবর আলিদের সামনে।

রোববার দক্ষিণ আফ্রিকার পচেফস্ট্রুমে প্রথমবারের মতো অনূর্ধ্ব-১৯ বিশ্বকাপের ফাইনালে নামবে বাংলাদেশ। পুরো টুর্নামেন্ট জুড়ে পরিণত ক্রিকেট খেলা যুবারা প্রতিপক্ষ হিসেবে পেয়েছে তাদের মতই শক্তিধর ভারতকে।

যদিও এই দলটির বিপক্ষে বাংলাদেশের আছে আক্ষেপের গল্প। ইংল্যান্ডে ত্রিদেশীয় কাপের ফাইনালে হারার পর যুব বিশ্বকাপের ফাইনালেও দেখা হয়েছিল দুদলের। তাতে রোমাঞ্চ ছড়িয়ে শেষে গিয়ে আক্ষেপে পুড়তে হয় বাংলাদেশকে। ভারতকে ১০৬ রানে অলআউট করে দিয়েও ৫ রানে হেরে যায় আকবর আলিরা।

আগের সব লড়াই ছিল ছোট পরিসরে। এবার প্রতিবেশী দেশটিকে মিলেছে বিশ্বমঞ্চের সেরা হওয়ার লড়াইয়ে। এখানে ভারতকে হারিয়ে চ্যাম্পিয়ন হতে পারলে নিশ্চিতভাবে পুষিয়ে দেওয়া যাবে আগের সব না পাওয়ার গল্প। ফাইনালের আগে প্রতিপক্ষকে সমীহ করে বাংলাদেশ যুব দলের অধিনায়ক আকবর জানালেন, ভারত বধে তারা যে পরিকল্পনা এঁটেছেন, তা প্রয়োগ করতে পারলেই এবার আর কান্না নয়, মিলবে উৎসবের উপলক্ষ,  ‘ভারত দুর্দান্ত দল। ব্যাটিং, বোলিং সব দিকেই। টুর্নামেন্ট তারা অপরাজেয় আছে, আমরাও অপরাজেয়। আশা করছি দারুণ লড়াই হবে। আমরা ওদের নিয়ে যেসব পরিকল্পনা করেছি তো প্রয়োগ করতে পারলে ফল আমাদের দিকে চলে আসবে।’

ব্যাটিং, বোলিং দুই বিভাগেই ছন্দে আছে যুবদল। টপ অর্ডারে প্রায় সবাই আছেন ছন্দে। এক ম্যাচে তানজিদ হাসান তামিম রান পাচ্ছেন তো আরেক ম্যাচে দলকে টানছেন মাহমুদুল হাসান জয়। খেল দেখাচ্ছেন তৌহিদ হৃদয়, শাহাদাত হোসেন দিপুরা। পেস বোলিংয়ে সেরা অবস্থায় শরিফুল ইসলাম তানজিম হাসান সাকিবরা। স্পিনে শান ধরিয়ে দলে অবদান রেখে যাচ্ছেন রকিবুল হাসান, হাসান মুরাদ, শামীম হোসেনরা। দলের ফিল্ডিংও হচ্ছে ভাল। এবার সবার একসঙ্গে জ্বলে উঠার পালা।

তবে ফাইনাল ভেবেই উত্তেজনার পারদ ছড়িয়ে চাপ বাড়াতে নারাজ বাংলাদেশ। অধিনায়ক আকবর জানালেন যতটা সম্ভব শান্ত থাকার তরিকা নিয়ে তারা যেভাবে এগুচ্ছিলেন শেষ ম্যাচটাতেও করবেন তেমনটাই,  ‘ফাইনাল ম্যাচ ভেবে খেললে আলাদা চাপ আমাদের উপর আসতে পারে। পুরো টুর্নামেন্টে আমরা যেভাবে স্বাভাবিক খেলা হিসেবে নিয়েছি, ফাইনালকেও তেমনভাবে নেওয়ার চেষ্টা করব।’

বাংলাদেশ সময় দুপুর ২টায় শুরু হবে বাংলাদেশ- ভারতের ফাইনাল ম্যাচ।

Comments

The Daily Star  | English

2 MRT lines may miss deadline

The metro rail authorities are likely to miss the 2030 deadline for completing two of the six planned metro lines in Dhaka as they have not yet started carrying out feasibility studies for the two lines.

5h ago