বাংলাদেশে অধ্যয়নরত নেপালি ছাত্রকে ঢুকতে দেয়নি ভারত

করোনাভাইরাস আতঙ্কে বাংলাদেশের মেডিকেলে অধ্যয়নরত নেপালের এক শিক্ষার্থীকে ঢুকতে দেয়নি ভারত।
India changrabandha landport .jpg
বুড়িমারী ও চ্যাংড়াবান্ধা সীমান্ত। ছবি: স্টার

করোনাভাইরাস আতঙ্কে বাংলাদেশের মেডিকেলে অধ্যয়নরত নেপালের এক শিক্ষার্থীকে ঢুকতে দেয়নি ভারত।

আজ বুধবার দুপুর সাড়ে ১২টার দিকে ওই শিক্ষার্থীকে লালমনিরহাটের বুড়িমারী চেকপোস্টে ফেরত পাঠিয়েছে ভারতের চ্যাংড়াবান্ধা চেকপোস্ট।

পরে ওই শিক্ষার্থীকে বুড়িমারী চেকপোস্টের অস্থায়ী স্বাস্থ্যকেন্দ্রে রেখে প্রাথমিক চিকিৎসা দিয়ে তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠান রংপুর কমিউনিটি মেডিক্যাল কলেজ হাসপাতালে পাঠানো হয়েছে। তিনি গত ১ মার্চ নেপাল থেকে রংপুরে এসেছিলেন বলে জানা গেছে।

বুড়িমারী চেকপোস্ট ইমিগ্রেশন পুলিশের উপ পরিদর্শক (এসআই) আনোয়ার হোসেন বলেন, ‘আজ সকালে নেপালি পাসপোর্টধারী ওই শিক্ষার্থী দেশে যাওয়ার উদ্দেশ্যে বুড়িমারী চেকপোস্ট অতিক্রম করেন। পরে ভারতের চ্যাংড়াবান্ধা চেকপোস্টে থাকা স্বাস্থ্যকর্মীরা শরীরের তাপমাত্রা পরীক্ষা করে তাকে গ্রহণ না করে ফেরত পাঠায়।’

লালমনিরহাটের সিভিল সার্জন ডা. নির্মলেন্দু রায় দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘চ্যাংড়াবান্ধা চেকপোস্ট থেকে ফেরত আসা নেপালি শিক্ষার্থীকে পুনরায় তার শিক্ষা প্রতিষ্ঠানে পাঠানো হয়েছে। তাকে সতর্ক থাকার নির্দেশনা দেওয়া হয়েছে।’

‘তিনি গতকাল জ্বরে আক্রান্ত হন। তবে তার শরীরে করোনাভাইরাসের কোনো লক্ষণ ছিল না। রংপুর কমিউনিটি মেডিকেল কলেজ হাসপাতাল কর্তৃপক্ষের সঙ্গে কথা বলে তাকে ফেরত পাঠিয়েছি। তিনি সেখানে হোম কোয়ারেন্টিনে নিবিড় পর্যবেক্ষণে থাকবেন’, বলেন তিনি।

সিভিল সার্জন আরও জানান, জেলায় ইতোপূর্বে যুক্তরাষ্ট্র ও দক্ষিণ কোরিয়া ফেরত তিন জনকে এবং আজ নতুন করে ভারত ফেরত একজনকে হোম কোয়ারেন্টিনে রাখা হয়েছে। স্বাস্থ্য বিভাগের কর্মীরা তাদের নিবিড়ভাবে পর্যবেক্ষণ করছেন।

Comments

The Daily Star  | English
Corruption in Bangladesh civil service

The nine lives of a corrupt public servant

Let's delve into the hypothetical lifelines in a public servant’s career that help them indulge in corruption.

7h ago