২০০ পরিবারের পাশে ক্রিকেটার মোসাদ্দেক

করোনাভাইরাসের ভয়াল থাবায় স্থবির হয়ে যাওয়া পরিস্থিতিতে কর্মহীন হয়ে পড়া ২০০ পরিবারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন ক্রিকেটার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। নিজ এলাকা ময়মনসিংহের এসব অসহায় মানুষের জন্য এক সপ্তাহের খাবারের ব্যবস্থা করেছেন তিনি।

করোনাভাইরাসের ভয়াল থাবায় স্থবির হয়ে যাওয়া পরিস্থিতিতে কর্মহীন হয়ে পড়া ২০০ পরিবারের পাশে এসে দাঁড়িয়েছেন ক্রিকেটার মোসাদ্দেক হোসেন সৈকত। নিজ এলাকা ময়মনসিংহের এসব অসহায় মানুষের জন্য এক সপ্তাহের খাবারের ব্যবস্থা করেছেন তিনি।

খেলা না থাকায় আগেই নিজ শহর ময়মনসিংহে চলে গেছেন মোসাদ্দেক। করোনাভাইরাস মহামারির এই সময়টা তার কাটছে বাড়িতে বসেই। কিন্তু বাড়িতে বসে থাকা যাদের জন্য বিলাসিতা, সেই সব মানুষের কথা ভেবেছেন তিনি।

শুক্রবার স্থানীয় এলাকায় তাই খাবার বিতরণে যান মোসাদ্দেক। সামাজিক যোগাযোগ মাধ্যমে সে খবর জানিয়ে তিনি সমাজের সামর্থ্যবানদের প্রতিও সাহায্যের আহবান করেছেন, ‘পুরো দেশ আজ করোনাভাইরাস বা Covid-19 এ স্তব্ধ হয়ে গেছে। গত কয়েক যুগে প্রিয় মাতৃভূমির এমন পরিস্থিতি আর কেউ কখনো দেখেনি। ১৬ কোটি মানুষের এই দেশে প্রায় ৬ কোটির মতো মানুষ রয়েছে, যারা অসহায়, গরীব-দুঃস্থ। দিনে এক বেলা খাবার জোটাতে যাদের হিমশিম খেতে হয়। দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে তারাই আজ সবচাইতে বেশি বিপদে। নেই কোনো আয়-রোজগার, তাই পেটেও নেই খাবার। এই মূহুর্তে তাদের পাশে দাঁড়ানো মানুষ হিসেবে আমাদের দায়িত্ব। তারই অংশ হিসেবে আজ ময়মনসিংহের অসহায়, দুঃস্থ ও গরীব লোকদের পাশে দাঁড়াতে পেরে নিজেকে অনেক সৌভাগ্যবান মনে হচ্ছে।’

‘আসুন আমরা সবাই মিলে দেশের এই ক্রান্তিলগ্নে তাদের পাশে দাড়াই।’

এর আগে সমাজের নিরুপায়দের মাঝে খাবার বিতরণ করেন ক্রিকেটার লিটন দাস ও তার স্ত্রী। নড়াইলের সংসদ সদস্য মাশরাফি বিন মর্তুজাও করছেন সাহায্য। বাংলাদেশ জাতীয় দলের চুক্তিতে থাকা এবং সাম্প্রতিক সময়ে খেলা মোট ২৭ ক্রিকেটার মিলে এক মাসের বেতনের অর্ধেক টাকাও দান করেছেন এই দুর্যোগে।

Comments