নিজস্ব মন্ত্রেই সফল হতে চান তামিম

গেল চার পাঁচ বছরে অনেক বদল হয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটে। বিশেষ করে ২০১৫ সাল থেকেই দারুণ খেলছে দলটি। যদিও সাম্প্রতিক সময়ে কিছুটা ছন্দ হারিয়েছে তারা। যে কারণে দলেও কিছু পরিবর্তন এসেছে। ওয়ানডে সংস্করণে নতুন অধিনায়ক তামিম ইকবালকে পেয়েছে টাইগাররা। বাজে সময় কাটিয়ে উঠতে নতুন এ অধিনায়ক কাউকে অনুসরণ করে নয়, নিজস্ব মন্ত্রে এগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন।
Tamim Iqbal
ছবি: ফিরোজ আহমেদ

গেল চার পাঁচ বছরে অনেক বদল হয়েছে বাংলাদেশের ক্রিকেটে। বিশেষ করে ২০১৫ সাল থেকেই দারুণ খেলছে দলটি। যদিও সাম্প্রতিক সময়ে কিছুটা ছন্দ হারিয়েছে তারা। যে কারণে দলেও এসেছে কিছু বদল। ওয়ানডে সংস্করণে অধিনায়কত্ব উঠেছে তামিম ইকবালের কাঁধে। বাজে সময় কাটিয়ে উঠতে নতুন এ অধিনায়ক কাউকে অনুসরণ করে নয়, নিজস্ব মন্ত্রে এগিয়ে যাওয়ার পরিকল্পনা করছেন।

অস্ট্রেলিয়া, ইংল্যান্ডের পাশাপাশি বর্তমানে ভারতও অনেক এগিয়েছে ক্রিকেটে। অতিমাত্রায় পেশাদার এ দলগুলো নিজস্ব একটি ধারা ধরে রেখেই সফল হচ্ছে। কিন্তু বাংলাদেশের ক্ষেত্রে প্রেক্ষাপট অনেকটাই ভিন্ন বলে মনে করেন তামিম। কারণ এখানকার অধিকাংশ লোকই লাজুক প্রকৃতির হয়। ক্রিকেটাররাও তার বাইরে নন। তাই অন্যান্য দেশের নীতি অনুসরণ না করে নিজেদের রীতিনীতি অনুসরণ করলে সফল হওয়ার সুযোগ বেশি মনে করেন তামিম।

দ্য ডেইলি স্টারকে দেওয়া এক সাক্ষাৎকারে তামিম বলেছেন এমনটাই, 'আমাদের টিম মিটিংয়ে সবাই সিরিয়াস থাকে। কিন্তু আড্ডার মধ্যে, যেমন চায়ের দোকানে বসে সবাই মন খুলে কথা বলে। আপনাকে বুঝতে হবে যে আমরা বাংলাদেশীরা একটু লাজুক প্রকৃতির মানুষ। যা আমরা ২০ জনের সামনে কিছু বলতে পারি না না তা আমরা দু'জনের সামনে বলতে পারি। এভাবেই [বোঝাপড়া ও আলোচনার মাধ্যমে] একটি দল তৈরি হয়। আমাদের আলাদা সংস্কৃতি আছে; আমরা ভিন্নভাবে চিন্তা করি এবং অন্যান্য দলগুলোকে অনুসরণ না করে আমাদের সফল হওয়ার জন্য আমাদের নিজস্ব মন্ত্র ব্যবহার করা উচিত।'

'১৫ বছরের মধ্যে, আমি বলতে চাই যে 'বাংলাদেশ দল এভাবেই চিন্তা করে' বা 'এইভাবে একজন বাংলাদেশী চিন্তা করেন'। অস্ট্রেলিয়া বা বর্তমান ভারত নিজেদের মতো ভাবে, আমি চাই তেমনি আমাদের ছেলেরাও নিজস্ব কাজ করার নিজেদের মতো ভাবুক। আমাদের ক্রিকেট খেলতে কিছুটা সময় দিতে হবে' - যোগ করে আরও বলেন ওয়ানডে অধিনায়ক।

ওয়ানডে সংস্করণের নেতৃত্বের ভারটা মাশরাফি বিন মুর্তজার হাত থেকে নিয়েছেন তামিম। যাকে বাংলাদেশের সর্বকালের সেরা অধিনায়কই মানেন অনেকেই। বিশ্ব ক্রিকেটে বাংলাদেশের উত্থান যে তার হাত ধরেই। তাই কাজটা কিছুটা হলেও কঠিন তামিমের জন্য। সাম্প্রতিক সময়ের ছন্দহীনতা কাটিয়ে ধারাবাহিকতা ধরে রাখার বিশাল চ্যালেঞ্জই তার কাঁধে।

তবে মাশরাফির পর্যায়ে যেতে পর্যাপ্ত সময় চাইলেন তামিম, 'এটা শুধু আমার জন্য নয়, অন্য যে কারো জন্য চ্যালেঞ্জিং হতো। কারণ তিনি দেশের সবচেয়ে সফল অধিনায়ক। যদি আপনি তুলনা করতে থাকেন তাহলে কাজটা ঠিকভাবে করতে পারবো না। মাশরাফি বিন মুর্তজা একদিনে তৈরি হয়নি। তার পাঁচ বছর লেগেছে। তার লেভেলে যেতে হলে আমাকে সময় দিতে হবে। আমি সর্বোচ্চ চেষ্টা করব দলকে এগিয়ে নিয়ে যেতে।'

 

Comments

The Daily Star  | English

Trade at centre stage between Dhaka, Doha

Looking to diversify trade and investments in a changed geopolitical atmosphere, Qatar and Bangladesh yesterday signed 10 deals, including agreements on cooperation on ports, and overseas employment and welfare.

2h ago