বাটলারের বিশ্বকাপ ফাইনালের জার্সির আয় ৬৮ লাখ টাকা

নিলামে ওঠা তার জার্সি শেষ পর্যন্ত আয় করেছে ৬৫ হাজার ১০০ পাউন্ড, বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ ৬৮ লাখ টাকারও বেশি।
jos buttler
ছবি: টুইটার

করোনাভাইরাসের বিরুদ্ধে লড়াইয়ে অবদান রাখতে নিজের অন্যতম মূল্যবান একটি বস্তু নিলামে তুলেছিলেন জস বাটলার। ২০১৯ বিশ্বকাপ ফাইনালের জার্সি। এমন উদ্যোগ নিয়ে ইংল্যান্ডের তারকা উইকেটরক্ষক-ব্যাটসম্যান যে সাড়া পেয়েছেন, তাতে তিনি অভিভূত। নিলামে ওঠা তার জার্সি শেষ পর্যন্ত আয় করেছে ৬৫ হাজার ১০০ পাউন্ড, বাংলাদেশি মুদ্রায় যার পরিমাণ ৬৮ লাখ টাকারও বেশি।

লন্ডনের রয়্যাল ব্রম্পটন ও হেয়ারফিল্ড হাসপাতালের আহ্বানের প্রেক্ষিতে আর্থিক সহায়তার করতে বাটলার গেল ৩১ মার্চ অনলাইন নিলামে তোলেন নিজের জার্সিটি। তহবিল সংগ্রহের জন্য আয়োজিত নিলাম শেষ হয়েছে মঙ্গলবার স্থানীয় সময় সন্ধ্যা সাড়ে ৭টায়।

সময়ের অন্যতম সেরা মারকুটে ব্যাটসম্যানের জার্সির চূড়ান্ত দাম উঠেছে ৬৫ হাজার ১০০ পাউন্ড। শেষ পর্যন্ত টিকে ছিল ৮২টি বিড। তবে একটা পর্যায়ে আরও বেশি দাম উঠেছিল। ১৬০ জন করেছিলেন বিড, সর্বোচ্চ দাম পৌঁছেছিল ৬৫ হাজার ৯০০ ডলার পর্যন্ত।

নিলাম শেষে দারুণ উচ্ছ্বসিত বাটলার বলেছেন, ‘এটি আমার জন্য বিশেষ একটি শার্ট। তবে জরুরি প্রয়োজনের একটি কাজে লাগায় এটি আমার কাছে আরও অর্থবহ হয়ে উঠেছে।’

গেল বিশ্বকাপের ফাইনালে সুপার ওভারের শেষ বলে নিউজিল্যান্ডের মার্টিন গাপটিলকে রানআউট করেই বিশ্ব জয়ের আনন্দে মেতেছিলেন উইকেটরক্ষক বাটলার। ইংল্যান্ডকে বিশ্বকাপ জেতাতে আরও অবদান রেখেছিলেন তিনি। রোমাঞ্চকর ওই মুহূর্তের আগে দলের চরম দুঃসময়ে ব্যাট হাতে খেলেছিলেন ৫৯ রানের গুরুত্বপূর্ণ ইনিংস। সেই ম্যাচের জার্সিই নিলামে তুলেছিলেন ইংলিশ তারকা।

নিলামের অর্থ পৌঁছে দেওয়া হবে রয়্যাল ব্রম্পটন ও হেয়ারফিল্ড হাসপাতালে। বাটলার জানিয়েছেন, হাসপাতাল দুটিকে সাহায্য করার পেছনে ব্যক্তিগত সম্পর্কও ভূমিকা রেখেছে। তার স্ত্রীর একজন ঘনিষ্ঠ আত্মীয় ব্রম্পটন হাসপাতালের শিশুরোগ বিভাগের প্রধান।

Comments

The Daily Star  | English
Shipping cost hike for Red Sea Crisis

Shipping cost keeps upward trend as Red Sea Crisis lingers

Shafiur Rahman, regional operations manager of G-Star in Bangladesh, needs to send 6,146 pieces of denim trousers weighing 4,404 kilogrammes from a Gazipur-based garment factory to Amsterdam of the Netherlands.

8h ago