‘বিশ্বকাপের পরই অবসর নেওয়া উচিত ছিল ধোনির’

‘আমি তার জায়গায় থাকলে বিদায় বলে ফেলতাম। হয়তো আরও তিন-চার বছর ক্ষুদ্রতম সংস্করণে খেলা চালিয়ে যেতাম। আমি (২০১১ বিশ্বকাপের পর) অবসর নিয়েছিলাম কারণ, আমি শতভাগ দিতে পারছিলাম না। আর সেটা না পারলে অযথা টেনে নেওয়া কেন?’
dhoni and akhtar
ছবি: এএফপি

মহেন্দ্র সিং ধোনির ক্যারিয়ার যেন একটা জায়গায় থমকে গেছে। গেল বিশ্বকাপের পর তাকে আর মাঠে দেখা যায়নি। আবার তিনি অবসরে যাওয়ার ভাবনার কথাও জানাননি। এতে তৈরি হয়েছে নানা তর্ক-বিতর্ক। কেউ তার অবসর নেওয়ার পক্ষে কথা বলছেন তো কেউ বিপক্ষে। সাবেক ভারতীয় অধিনায়কের খেলা চালিয়ে যাওয়া-না যাওয়া নিয়ে চলমান আলোচনায় যোগ দিলেন শোয়েব আখতারও। তবে পাকিস্তানের সাবেক তারকা পেসারের মতে, ২০১৯ ইংল্যান্ড বিশ্বকাপের পরই আন্তর্জাতিক ক্রিকেটকে বিদায় বলে দেওয়া উচিত ছিল ধোনির।

শনিবার ভারতীয় বার্তা সংস্থা পিটিআইকে শোয়েব বলেন, উপযুক্ত সময়ে অবসর না নিয়ে ধোনি কেন ক্যারিয়ারকে টেনে লম্বা করছেন তা অনেক ভেবেচিন্তেও বুঝতে পারছেন না তিনি, ‘এই মানুষটি নিজের সামর্থ্যের সর্বোচ্চটা উজাড় করে দিয়ে গেছেন। তার উচিত সম্মানের সঙ্গে ক্রিকেটকে ছেড়ে দেওয়া। আমি জানি না, কেন তিনি এটাকে (আন্তর্জাতিক ক্যারিয়ার) এতদিন ধরে টেনে নিচ্ছেন। বিশ্বকাপের পরই তার অবসর নেওয়া উচিত ছিল।’

বয়স পেরিয়ে গেছে ৩৮। সেরা সময়টা পেছনে ফেলে এসেছেন ধোনি। সবশেষ বিশ্বকাপের পর থেকে স্বেচ্ছায় নিজেকে ক্রিকেট থেকে সরিয়ে রেখেছিলেন তিনি। তা ছাড়া, ভারতীয় দলের কোচ ও নির্বাচকরাও তাকে পারফর্ম করে জাতীয় দলে ফেরার চ্যালেঞ্জ দিয়ে রেখেছেন। তাই চলতি বছরের ইন্ডিয়ান প্রিমিয়ার লিগ (আইপিএল) ছিল তার জন্য এক মহাগুরুত্বপূর্ণ পরীক্ষা। কোচ রবি শাস্ত্রী আগেই জানিয়েছেন, অস্ট্রেলিয়ার মাটিতে আগামী টি-টোয়েন্টি বিশ্বকাপে জায়গা পেতে হলে আইপিএলে দারুণ কিছু করে দেখাতে হবে ধোনিকে। কিন্তু প্রাণঘাতী করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে থমকে আছে সব। আবার কবে মাঠের ক্রিকেট ফিরবে সে বিষয়ের কোনো নিশ্চয়তা নেই।

উদ্ভূত সংকটে এবার আইপিএল মাঠে না গড়ানোর জোরালো শঙ্কা রয়েছে। সম্প্রতি ভারতীয় ক্রিকেট বোর্ডের প্রধান (বিসিসিআই) সৌরভ গাঙ্গুলি জানিয়েছেন, এই ফ্র্যাঞ্চাইজি আসর নিয়ে ভাবার সময় এখন নয়। ফলে ধোনির বিশ্বকাপে খেলার সম্ভাবনা ফিকে হতে শুরু করেছে। আর শোয়েব মনে করছেন, এমন পরিস্থিতিতে বিশ্বকাপজয়ী সাবেক অধিনায়ক পড়েছেন গ্যাঁড়াকলে। তবে ভারতীয় বোর্ড ও ভক্ত-সমর্থকদের কাছ থেকে ধোনির জমকালো বিদায়ও প্রত্যাশা করেন তিনি, ‘তাকে শ্রদ্ধা ও সম্মানের সঙ্গে যেতে দেওয়া উচিত। তাকে সুন্দর একটি বিদায় দেওয়া উচিত। তিনি আপনাদের বিশ্বকাপ জিতিয়েছেন। পাশাপাশি তিনি দারুণ একজন মানুষ। কিন্তু আমার মনে হয়, এই মুহূর্তে তিনি একটা জায়গায় আটকে গেছেন।’

সেমিফাইনালে নিউজিল্যান্ডের কাছে হেরে ২০১৯ বিশ্বকাপ থেকে বিদায় নেয় ভারত। ওই ম্যাচে রানআউট হয়েছিলেন ধোনি। দলকে লক্ষ্যে পৌঁছে দিতে হয়েছিলেন ব্যর্থ। তা ছাড়া, গোটা আসর জুড়ে তার মন্থর ব্যাটিং হয়েছিল সমালোচিত। কিন্তু গুঞ্জন থাকলেও ক্যারিয়ারের ইতি টানার ঘোষণা আসেনি তার কাছ থেকে। তবে ক্রিকেট ইতিহাসের দ্রুততম বোলার শোয়েব জানান, ধোনির জায়গায় থাকলে অবসর নিয়ে নিতেন কারণ, সর্বোচ্চটা দিতে না পারলে খেলা চালিয়ে যাওয়ার অর্থ খুঁজে পান না তিনি, ‘আমি তার জায়গায় থাকলে বিদায় বলে ফেলতাম। হয়তো আরও তিন-চার বছর ক্ষুদ্রতম সংস্করণে খেলা চালিয়ে যেতাম। আমি (২০১১ বিশ্বকাপের পর) অবসর নিয়েছিলাম কারণ, আমি শতভাগ দিতে পারছিলাম না। আর সেটা না পারলে অযথা টেনে নেওয়া কেন?’

Comments

The Daily Star  | English

97pc work of HSIA third terminal complete: minister

Only three percent of work, which includes calibration and testing of various systems is yet to be completed

53m ago