করোনাভাইরাস

যুক্তরাষ্ট্রে মৃতের সংখ্যা ৩৩ হাজার ছাড়াল

মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা ইতোমধ্যে ৩৩ হাজার ছাড়িয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ছয় লাখ। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৫৬ হাজারের বেশি মানুষ।
সুরক্ষা পোশাক পরে আছেন ওয়াশিংটনের এক স্বাস্থ্যকর্মী। ছবি: রয়টার্স

মহামারি করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে যুক্তরাষ্ট্রে মৃত্যুর সংখ্যা ইতোমধ্যে ৩৩ হাজার ছাড়িয়েছে। আক্রান্তের সংখ্যা ছাড়িয়েছে ছয় লাখ। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৫৬ হাজারের বেশি মানুষ।

আজ শুক্রবার জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির বরাত দিয়ে এ তথ্য জানিয়েছে আন্তর্জাতিক সংবাদমাধ্যম সিএনএন।

প্রতিবেদনে বলা হয়, করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে গত ২৪ ঘণ্টায় যুক্তরাষ্ট্রে মারা গেছেন ২ হাজার ৪২৪ জন। এখন পর্যন্ত মারা গেছেন ৩৩ হাজার ২৮৬ জন। এদের মধ্যে ১১ হাজার ৪৭৭ জনই নিউইয়র্ক শহরের। গত ২৪ ঘণ্টায় নতুন আক্রান্ত হয়েছেন ৩৩ হাজার ৪০ জন। দেশটিতে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ৬ লাখ ৭১ হাজার ৪২৫ জন। এ ছাড়া, মোট সুস্থ হয়েছেন ৫৬ হাজার ২৩৬ জন।

যুক্তরাষ্ট্রের ৫০টি রাজ্যের প্রত্যেকটিকেই করোনাভাইরাসের সংক্রমণ রয়েছে। যুক্তরাষ্ট্রে পর সবচেয়ে বেশি আক্রান্ত রয়েছে ইউরোপের দেশ স্পেনে। সেখানে এখন পর্যন্ত আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৮৪ হাজার ৯৪৮ জন এবং মারা গেছেন ১৯ হাজার ৩১৫ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৭৪ হাজার ৭৯৭ জন।

যুক্তরাষ্ট্রে পর এখন পর্যন্ত সবচেয়ে বেশি মানুষ মারা গেছেন ইউরোপের আরেক দেশ ইতালিতে। দেশটিতে করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়ে এখন পর্যন্ত ২২ হাজার ১৭০ জন মারা গেছেন। আক্রান্ত হয়েছেন ১ লাখ ৬৮ হাজার ৯৪১ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৪০ হাজার ১৬৪ জন।

জনস হপকিনস ইউনিভার্সিটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, বিশ্বব্যাপী করোনাভাইরাসে আক্রান্ত হয়েছেন ২১ লাখ ৫৯ হাজার ২৬৭ জন এবং মারা গেছেন ১ লাখ ৪৫ হাজার ৫৬৩ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৫ লাখ ৪৮ হাজার ১২২ জন।

উল্লেখ্য, গত ৮ মার্চ বাংলাদেশে প্রথম করোনাভাইরাসে আক্রান্ত রোগী শনাক্ত করে সরকারের রোগতত্ত্ব, রোগনিয়ন্ত্রণ ও গবেষণা প্রতিষ্ঠান (আইইডিসিআর)। প্রতিষ্ঠানটির সর্বশেষ তথ্য অনুযায়ী, দেশে এখন পর্যন্ত করোনাভাইরাসে আক্রান্ত ১ হাজার ৫৭২ জনকে শনাক্ত করা হয়েছে। মারা গেছেন ৬০ জন। এ ছাড়া, সুস্থ হয়েছেন ৪৯ জন।

Comments

The Daily Star  | English

Cyclone Remal makes landfall

The eye of the cyclonic storm is scheduled to cross Bangladesh between 12:00-1:00am after which the cyclone is expected to weaken

33m ago