শীর্ষ খবর

ত্রাণের দাবিতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংকরোড অবরোধ করে বিক্ষোভ

করোনায় সৃষ্ট পরিস্থিতি মোকাবিলায় বরাদ্দ দেওয়া সরকারি ত্রাণের দাবিতে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় বিক্ষোভ করেছে খাদ্য সংকটে থাকা অর্ধশতাধিক নারী পুরুষ। এসময় তারা প্রায় এক ঘণ্টা ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের ত্রাণ দেওয়ার আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয় বিক্ষোভকারীরা।
ত্রাণের দাবিতে ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংকরোড অবরোধ করে বিক্ষোভ করে অর্ধশতাধিক নারী-পুরুষ। ছবি: সংগৃহীত

করোনায় সৃষ্ট পরিস্থিতি মোকাবিলায় বরাদ্দ দেওয়া সরকারি ত্রাণের দাবিতে নারায়ণগঞ্জ সদর উপজেলায় বিক্ষোভ করেছে খাদ্য সংকটে থাকা অর্ধশতাধিক নারী পুরুষ। এসময় তারা প্রায় এক ঘণ্টা ঢাকা-নারায়ণগঞ্জ লিংক রোড অবরোধ করে যান চলাচল বন্ধ করে দেয়। পরে পুলিশ গিয়ে তাদের ত্রাণ দেওয়ার আশ্বাস দিলে অবরোধ তুলে নেয় বিক্ষোভকারীরা।

শনিবার বেলা ১২টা থেকে ১টা পর্যন্ত উপজেলার ফতুল্লা খান সাহেব ওসমান আলী স্টেডিয়ামের সামনে লিংক রোডে অবস্থান নেয় বিক্ষোভকারীরা। যারা ফতুল্লার লালখা, কুতুবপুর, তক্কারমাঠ, রামারবাগ এলাকার বাসিন্দা।

আন্দোলকারীদের বরাত দিয়ে ফতুল্লা মডেল থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আসলাম হোসেন জানান, কিশোরগঞ্জ, সুনামগঞ্জসহ বিভিন্ন জেলার মানুষ ফতুল্লা স্টেডিয়ামের আশেপাশের এলাকায় বসবাস করেন। এরা কেউ পোশাক শ্রমিক, কেউ রিকশা চালক, কেউ দিনমজুরসহ নিম্ন আয়ের মানুষ। সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর থেকেই কর্মহীন হয়ে পড়েছেন। তারাই ত্রাণের দাবিতে লিংকরোড অবরোধ করে রাখেন। পরে তাদের নিজ নিজ এলাকার চেয়ারম্যানদের সঙ্গে কথা বলে ত্রাণ দেওয়ার কথা জানানো হলে তারা সড়ক ছেড়ে যায়।

বিক্ষোভকারীরা জানান, কয়েকজন লোক এসে ত্রাণ দেবে বলে ভোটার আইডি কার্ড জমা করতে বলেন। কিন্তু এরপর আর কোন খোঁজ খবর নেয়নি। এদিকে সাধারণ ছুটি ঘোষণার পর থেকেই কর্মহীন হয়ে কষ্টে দিন চলছে। সরকারি কোনও ত্রাণ কেউ দেয়নি। যার জন্য বাধ্য হয়ে সবাই রাস্তায় নেমেছেন।

এ বিষয়ে জানতে চাওয়া হলে, সদর উপজেলা পরিষদের নির্বাহী কর্মকর্তা (ইউএনও) নাহিদা বারিক দ্য ডেইলি স্টারকে বলেন, ‘এ বিষয়ে খোঁজ নিয়ে ব্যবস্থা গ্রহণ করা হবে।’

 

Comments

The Daily Star  | English

Coastal villagers shifted to LPG from Sundarbans firewood

'The gas cylinder has made my life easy. The smoke and the tension of collecting firewood have gone away'

1h ago