আবার মুখোমুখি হচ্ছেন উডস-মিকেলসন

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে স্থগিত সারা বিশ্বের সব ক্রীড়া ইভেন্ট। অনেক ইভেন্ট তো বাতিলই হয়ে গেছে। তবে এর মাঝেই গলফ কোর্টে আবার নামছেন টাইগার উডস ও ফিল মিকেলসন। তাদের সঙ্গে খেলবেন পেইটন মানিং এবং টম ব্রাডিও। করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের সাহায্যার্থে তহবিল গঠন করতে একটি চ্যারিটি ম্যাচে অংশগ্রহণ করবেন এ চার তারকা গলফ খেলোয়াড়।
ফাইল ছবি: এএফপি

মহামারি করোনাভাইরাসের কারণে স্থগিত সারা বিশ্বের সব ক্রীড়া ইভেন্ট। অনেক ইভেন্ট তো বাতিলই হয়ে গেছে। তবে এর মাঝেই গলফ কোর্টে আবার নামছেন টাইগার উডস ও ফিল মিকেলসন। তাদের সঙ্গে খেলবেন পেইটন মানিং এবং টম ব্রাডিও। করোনাভাইরাসে ক্ষতিগ্রস্ত মানুষদের সাহায্যার্থে তহবিল গঠন করতে একটি চ্যারিটি ম্যাচে অংশগ্রহণ করবেন এ চার তারকা গলফ খেলোয়াড়।

আবার গলফ কোর্টে নামছেন উডসরা এমন গুঞ্জনটা অবশ্য অনেক দিন আগে থেকেই ছিল। কিন্তু অফিশিয়াল কোনো ঘোষণা আসছিল না। বুধবার মিডিয়া কোম্পানি টার্নার স্পোর্টস এক বিবৃতিতে জানিয়েছে, 'দ্য ম্যাচ: চ্যাম্পিয়ন ফর চ্যারিটি খুব শীঘ্রই টিএনটি-তে আসছে। এখান থেকে প্রাপ্ত সকল অর্থ ব্যয় করা হবে কোভিড-১৯ এ ক্ষতিগ্রস্তদের জন্য।'

তবে কবে, কখন, কীভাবে এ ম্যাচ অনুষ্ঠিত হবে এ নিয়ে বিস্তারিত কিছু জানায়নি তারা। জানা গেছে দুই বনাম দুই মোকাবেলায় অনুষ্ঠিত হতে পারে। এবং ফ্লোরিডা কোর্সে এ ম্যাচ আয়োজন করা হবে বলেই ব্যাপক জল্পনা রয়েছে।

ম্যাচটি বন্ধুত্বপূর্ণ হলেও মিকেলসন যে একেবারে ছেড়ে কথা বলবেন না তা বোঝা যাচ্ছে। অফিশিয়াল ঘোষণা আসার পর নিজের ব্যক্তিগত উডসকে খোঁচা মেরে টুইটারে তিনি লিখেছেন, 'প্রথমবার হারের যন্ত্রণার সহ্য করতে না পেরে, টাইগার উডস মনে হচ্ছে একজন রিঙ্গার আনতে যাচ্ছে।' এরপর সেখানে পেইটন মানিংকে ট্যাগ করেছেন।

তাই টম বার্ডিকে তৈরি থাকতে বলে আরও লিখেছেন, 'আমিও একজন গোট (সর্বকালের সেরা) আনতে যাচ্ছি। টম বার্ডি আঘাত করার জন্য প্রস্তুত হও।'

উডস এবং মিকেলসনের মধ্যে এটা দ্বিতীয় 'দ্য ম্যাচ' প্রতিযোগিতা। এর আগে ২০১৮ সালে প্রথমবার তারা মুখোমুখি হয়েছিলেন। ২২ হোলের (প্লেঅফের ৪ হোলসহ) সে ম্যাচে সেবার উডসকে হারিয়ে ৯ মিলিয়ন ডলার প্রাইজমানি জিতেছিলেন মিকেলসন। 

উল্লেখ্য, এ ম্যাচটি দিয়েই আবার কোর্টে ফিরছে গলফ। গত ১২ মার্চ প্লেয়ার্স চ্যাম্পিয়নশিপ স্থগিত হওয়ার পর এখনও পর্যন্ত কোর্টে বল গড়ায়নি।

Comments

The Daily Star  | English

Lifts at public hospitals: Where Horror Abounds

Shipon Mia (not his real name) fears for his life throughout the hours he works as a liftman at a building of Sir Salimullah Medical College, commonly known as Mitford hospital, in the capital.

6h ago