সারওয়ানকে করোনাভাইরাসের চেয়েও খারাপ বললেন গেইল

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) গত বছর জ্যামাইকা তালওয়াসের সঙ্গে তিন বছরের জন্য চুক্তি করেছিলেন তারকা ক্রিকেটার ক্রিস গেইল। কিন্তু বছর না ঘুরতেই তাকে ছেড়ে দেয় ক্লাবটি। আর এর জন্য তার সাবেক সতীর্থ ও দলের সহকারী কোচ রামনরেশ সারওয়ানকে দায়ী করছেন তিনি। সারওয়ানকে করোনাভাইরাসের চেয়েও খারাপ বলেছেন এ ক্যারিবিয়ান তারকা।
chris gayle
ছবি: এএফপি

ক্যারিবিয়ান প্রিমিয়ার লিগে (সিপিএল) গত বছর জ্যামাইকা তালওয়াসের সঙ্গে তিন বছরের জন্য চুক্তি করেছিলেন তারকা ক্রিকেটার ক্রিস গেইল। কিন্তু বছর না ঘুরতেই তাকে ছেড়ে দেয় ক্লাবটি। আর এর জন্য তার সাবেক সতীর্থ ও দলের সহকারী কোচ রামনরেশ সারওয়ানকে দায়ী করছেন তিনি। সারওয়ানকে করোনাভাইরাসের চেয়েও খারাপ বলেছেন এ ক্যারিবিয়ান তারকা।

অথচ গেইলকে আমুদে ক্রিকেটার হিসেবেই জানে ভক্ত-সমর্থকরা। তিনিই কি-না ক্ষেপে গেলেন এক সময়ের সতীর্থের ওপর। সম্প্রতি একটি ইউটিউবে ভিডিও আপলোড করে জানান, সারওয়ানের কারণেই মালিক পক্ষের সঙ্গে তার দূরত্ব সৃষ্টি হয়েছে। এক সময়ের এ সতীর্থই ফ্র্যাঞ্চাইজিদের বুঝিয়ে বাধ্য করেছেন তাকে রিটেইন না করতে। ভিডিওতে বেশ তোপ দাগিয়েই কথা বলেছেন গেইল, 'সারওয়ান, তুমি এখন করোনা ভাইরাসের চেয়েও খারাপ।'

'তালওয়াসে যা হয়েছে তার কলকাঠি তুমিই নেড়েছ। কারণ তুমি ও মালিকপক্ষ একই রকম। অথচ জ্যামাইকাতে আমার শেষ জন্মদিনের পার্টিতে তুমি এসে লম্বা এক ভাষণে বলেছিলে, কিভাবে আমরা উঠে এসেছি।' - যোগ করে আরও বলেন গেইল।

শুধু এই বলে ক্ষান্ত হননি নিজেকে ইউনিভার্সাল বস ডাকা এ ক্রিকেটার। সারওয়ানকে সাপের সঙ্গেও তুলনা করেছেন তিনি, 'সারওয়ান তুমি একটা সাপ। তুমি খুবই প্রতিহিংসাপরায়ণ। তোমার মাঝে এখনও পূর্ণতা আসেনি। তুমি এখনও মানুষের পিঠে ছুরি বসাতে পারো। তুমি এখনও খবর বহন করো। তুমি কবে নিজেকে পরিবর্তন করার পরিকল্পনা করবে?'

সিপিএলের আগামী আসরের জন্য জ্যামাইকা তালওয়াহ ছেড়ে সেন্ট লুসিয়া জুকসে যোগ দেন দিয়েছেন গেইল। এর আগে তার নেতৃত্বেই ২০১৩ ও ২০১৬ সালে শিরোপা অর্জন করে জ্যামাইকা। পরে ফ্র্যাঞ্চাইজিটি ছেড়ে সেন্ট কিটস অ্যান্ড নেভিস প্যাট্রিয়টসে দুই মৌসুম খেলার পর গত মৌসুমে আবার জ্যামাইকাতে ফেরেন গেইল।

Comments

The Daily Star  | English

Hefty power bill to weigh on consumers

The government has decided to increase electricity prices by Tk 0.70 a unit which according to experts will predictably make prices of essentials soar yet again ahead of Ramadan.

22m ago