লিগ চালুর পরিকল্পনা জানাতে সময় বেঁধে দিল উয়েফা

বার্তা সংস্থা রয়টার্স মঙ্গলবার তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, আগামী ২৫ মের মধ্যে ২০১৯-২০ মৌসুমের নিজ নিজ ঘরোয়া লিগ নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানাতে হবে উয়েফাকে। ৫৫ সদস্য ফেডারেশনকে ইতোমধ্যে চিঠি দিয়েছেন সংস্থাটির প্রধান আলেক্সান্দার সেফেরিন।
uefa
ছবি: উয়েফা

করোনাভাইরাসের কারণে স্থগিত হয়ে আছে ইউরোপের সমস্ত ঘরোয়া ক্লাব ফুটবল প্রতিযোগিতা। আবার কবে চলতি মৌসুমের লিগ মাঠে গড়াবে তার কোনো নিশ্চয়তা নেই। অথচ এরই মধ্যে আগামী মৌসুমের ইউরোপিয়ান ক্লাব প্রতিযোগিতা নিয়ে ভাবতে শুরু করে দিয়েছে উয়েফা। আর তাই স্থগিত হয়ে থাকা ঘরোয়া মৌসুম চালুর পরিকল্পনা সম্পর্কে জানাতে লিগ কর্তৃপক্ষগুলোকে নির্দিষ্ট সময় বেঁধে দিয়েছে সংস্থাটি।

বার্তা সংস্থা রয়টার্স মঙ্গলবার তাদের এক প্রতিবেদনে জানিয়েছে, আগামী ২৫ মের মধ্যে ২০১৯-২০ মৌসুমের নিজ নিজ ঘরোয়া লিগ নিয়ে ভবিষ্যৎ পরিকল্পনা জানাতে হবে উয়েফাকে। ৫৫ সদস্য ফেডারেশনকে ইতোমধ্যে চিঠি দিয়েছেন সংস্থাটির প্রধান আলেক্সান্দার সেফেরিন।

চিঠিতে ইউরোপের সর্বোচ্চ ফুটবল নিয়ন্ত্রক সংস্থার সভাপতি বলেছেন, ঘরোয়া প্রতিযোগিতাগুলো কবে থেকে শুরু হবে এবং কোন ফরম্যাটে খেলা হবে তা জানাতে হবে ২৫ মের মধ্যে। তবে কোনো লিগ কর্তৃপক্ষ মৌসুম বাতিল করলে, বাতিলের যথাযথ কারণও জানাতে হবে ওই সময়সীমার মধ্যে এবং আগামী মৌসুমের ইউরোপিয়ান প্রতিযোগিতায় কোন কোন দল খেলবে সে তালিকাও দিতে হবে। আর দলগুলোকে বাছাই করতে হবে বাতিল হওয়া মৌসুমের ঘরোয়া পারফরম্যান্সের ভিত্তিতে।

উয়েফা অবশ্য মৌসুম বাতিলের পক্ষে নয়। সদস্য দেশগুলো যেন লিগ সম্পন্ন করতে পারে, সেটাই তাদের চাওয়া। করোনাভাইরাসের প্রাদুর্ভাবে স্থগিত হয়ে থাকা উয়েফা  চ্যাম্পিয়ন্স লিগ ও উয়েফা ইউরোপা লিগ শেষ করার ব্যাপারেও আশা প্রকাশ করেছে সংস্থাটি।

ইউরোপের সব দেশে ফুটবল বন্ধ থাকলেও একমাত্র বেলারুশে শুরু হয়েছে নতুন মৌসুম। আশার খবর হলো, জার্মান বুন্দেসলিগা, ইতালিয়ান সিরি আ ও ইংলিশ প্রিমিয়ার লিগ কর্তৃপক্ষ জানিয়েছে, তারাও তাদের ঘরোয়া মৌসুম শেষ করতে চায়। এদিনই ফুটবল বিষয়ক ওয়েবসাইট গোল ডট কম একটি প্রতিবেদনে বলেছে, ২০১৯-২০ মৌসুম ফের চালু করার বিষয়ে সিদ্ধান্ত নিতে আগামী শুক্রবার বৈঠকে বসবেন প্রিমিয়ার লিগের দলগুলোর কর্মকর্তারা।

তবে গেল শুক্রবার বাতিল করা হয়েছে নেদারল্যান্ডস শীর্ষ ফুটবল লিগ ইরিদিভিসি। কোনো ক্লাবকে চ্যাম্পিয়নও ঘোষণা করা হয়নি। এতে ব্যাপক সমালোচনার মুখে পড়েছে লিগ কর্তৃপক্ষ।

Comments

The Daily Star  | English

44 lives lost to Bailey Road blaze

33 died at DMCH, 10 at the burn institute, and one at Central Police Hospital

6h ago