দুস্থ ও অসহায়দের পাশে গ্রামীণ মৎস্য ও পশুসম্পদ ফাউন্ডেশন

করোনা পরিস্থিতিতে যেসব পরিবার অন্য কোনো উৎস থেকে কোনো সহায়তা পায়নি এমন দুস্থ ও অসহায় পরিবারকে ত্রাণ হিসেবে খাদ্য সামগ্রী বিতরণের জন্য বিশেষ কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে গ্রামীণ মৎস্য ও পশুসম্পদ ফাউন্ডেশন।

করোনা পরিস্থিতিতে যেসব পরিবার অন্য কোনো উৎস থেকে কোনো সহায়তা পায়নি এমন দুস্থ ও অসহায় পরিবারকে ত্রাণ  হিসেবে  খাদ্য  সামগ্রী  বিতরণের  জন্য  বিশেষ  কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে বলে জানিয়েছে গ্রামীণ মৎস্য ও পশুসম্পদ ফাউন্ডেশন।

আজ শনিবার এক সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে ফাউন্ডেশনের পক্ষ থেকে একথা জানানো হয়।

এতে বলা হয়, করোনা ভাইরাসের প্রতিরোধ কার্যক্রমে শিল্প কারখানা, দোকান পাট, যোগাযোগ ব্যবস্থা বন্ধ থাকায় গ্রামীণ অর্থনীতি বির্পযয়ের মধ্যে পড়েছে।  গ্রামাঞ্চলের দরিদ্র জনগোষ্ঠী ঘরে বন্দী থাকায় কোনো কাজকর্ম করতে পারছে না। আয় উপার্জন বন্ধ হয়ে যাওয়ায় গ্রামের দরিদ্র জনগোষ্ঠী অনাহারে অর্ধাহারে দিন পার করছে। এ পরিস্থিতিতে তাদের পাশে দাঁড়াতে বিশেষ কর্মসূচী নেওয়া হয়েছে।

সংবাদ বিজ্ঞপ্তিতে বলা হয়, গত ৮ এপ্রিল থেকে এ পর্যন্ত গ্রামীণ  মৎস্য  ও  পশুসম্পদ  ফাউন্ডেশনের কর্ম এলাকার মধ্যে সিরাজগঞ্জ, পাবনা,  বগুড়া,  টাংগাইল,  কুড়িগ্রাম,  দিনাজপুর ও ঠাকুরগাঁও  জেলায় দুস্থ ও অসহায় ১২১টি পরিবারকে ত্রাণ দেওয়া হয়েছে। কর্মসূচির আওতায় ৪ সদস্যের পরিবারের জন্য সপ্তাহে ৮ কেজি চাল, ২  কেজি  ডাল,  ১ লিটার সয়াবিন তেল,  ২ কেজি আলু,  ১ কেজি পেঁয়াজ,  ১ কেজি লবণ ও  ২টি সাবান বিতরণ করা হচ্ছে। 

গ্রামীণ মৎস্য ও পশুসম্পদ ফাউন্ডেশনের মাঠ পর্যায়ের কর্মীরা বাড়ি বাড়ি গিয়ে  এ  সব খাদ্য সামগ্রী পৌঁছে দিচ্ছে বলে জানানো হয়।

এই কর্মসূচি আগামী জুন মাস পর্যন্ত চলবে, তবে দেশের সার্বিক অবস্থা বিবেচনায় প্রয়োজনে সময়সীমা বাড়ানো হতে পারে।

গ্রামীণ মৎস্য ও পশুসম্পদ ফাউন্ডেশনের কার্যক্রম দেশের ৯টি জেলার ২৮টি উপজেলায় বিস্তৃত বলে জানানো হয়েছে।

 

 

 

 

 

Comments

The Daily Star  | English

Bheem finds business in dried fish

Instead of trying his luck in other profession, Bheem Kumar turned to dried fish production and quickly changed his fortune.

19m ago