চীনের গলার কাঁটা যুক্তরাষ্ট্রের সঙ্গে ২০০ বিলিয়ন ডলারের বাণিজ্য চুক্তি

এ বছরের শুরুতে একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল বিশ্ব অর্থনীতির দুই পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র ও চীন। সেই চুক্তি নিয়ে এখন বিপাকে মহাপ্রচীরের দেশটি।
সংগৃহীত

এ বছরের শুরুতে একটি গুরুত্বপূর্ণ বাণিজ্য চুক্তি স্বাক্ষর করেছিল বিশ্ব অর্থনীতির দুই পরাশক্তি যুক্তরাষ্ট্র ও চীন। সেই চুক্তি নিয়ে এখন বিপাকে মহাপ্রচীরের দেশটি।

চুক্তির মূল শর্ত হিসেবে যুক্তরাষ্ট্রের কাছ থেকে চীন আগামী দুই বছরে বর্তমানের চেয়ে ২০০ বিলিয়ন ডলার বেশি মূল্যমানের পণ্য ও সেবা কিনবে এবং মেধাস্বত্ব আইন আরও শক্তিশালী করবে।

বিশেষজ্ঞরা বলছেন, বিশ্বব্যাপী করোনা মহামারির মধ্যে বাণিজ্য চুক্তির বাস্তবায়ন কঠিন হলেও এর গুরুত্ব বেড়েছে।

মার্কিন প্রেসিডেন্ট ডোনাল্ড ট্রাম্প জানিয়েছেন, দুই বছরের প্রতিশ্রুতি পালনে ব্যর্থ হলে চীনের সঙ্গে ঐ চুক্তি প্রত্যাখ্যান করবে যুক্তরাষ্ট্র।

সাউথ চায়না মর্নিং পোস্ট জানায়, গত শুক্রবার দুই দেশের আলোচকদের মধ্যে ফোনালাপে চীনের উপ-প্রধানমন্ত্রী লিউ হি বলেছেন, ‘প্রথম দফার বাণিজ্য চুক্তি বাস্তবায়নের জন্য অনুকূল পরিবেশ তৈরি করতে চীন প্রতিজ্ঞাবদ্ধ।’

তবে, কিছু বিষয়ে এখনো বিস্তারিত আলোচনা ও সিদ্ধান্তে পৌঁছায়নি দেশ দুটির শীর্ষ কর্মকর্তারা। পরিচয় প্রকাশে অনিচ্ছুক এক কর্মকর্তা জানান, কিছু বিষয়ে উভয়পক্ষ এখনো সমঝোতায় না পৌঁছালেও বাণিজ্য চুক্তিটি এড়িয়ে যাওয়ার সুযোগ নেই। চীনকে চুক্তি বাস্তবায়নের ব্যাপারে কঠিন সিদ্ধান্ত নিতে হতে পারে।

এদিকে, করোনাভাইরাস মহামারিতে গোটা বিশ্বের অর্থনীতিই থমকে গেছে। গত চার মাসে ব্যাপক অর্থনৈতিক ক্ষতির মুখে পড়েছে চীন।

নাম প্রকাশ না করার শর্তে চীনের এক সরকারি উপদেষ্টা রাষ্ট্রীয় সংস্থাগুলোর সক্ষমতা নিয়ে প্রশ্ন তুলে বলেন, ‘করোনাভাইরাসের কারণে ভঙ্গুর অর্থনীতির মধ্যে বিশাল অর্থের বাণিজ্য চুক্তির বাস্তবায়ন ইতোমধ্যেই কঠিন হয়ে পড়েছে।’

উভয় পক্ষেরই আলোচনা করে সমাঝোতায় পৌঁছানো উচিত বলেও মনে করেন তিনি।

তিনি আরও বলেন, ‘তারা কীভাবে যোগাযোগ করবেন, কীভাবে সমঝোতায় পৌঁছাবেন সেটি তাদের ওপর নির্ভর করছে। কিন্তু, সমাঝোতায় পৌঁছাতে না পারলে বিশ্ব অর্থনীতিতেই এর প্রভাব পড়বে।’

চীনের আরও এক সরকারি উপদেষ্টা বলেন, ‘এই মূহূর্তে সবকিছুই অনিশ্চিত। যেমন, বিশ্ববাজারে অপরিশোধিত তেলের দাম অর্ধেকেরও বেশি কমে গেছে। এখন যত বেশিই তেল কেনা হোক না কেন, এই বিশাল অর্থের শর্ত পূরণ করা কারো পক্ষেই সম্ভব না।’

‘আমি মনে করি, এ কারণে চুক্তি থেকে সরে আসার কোনো অর্থ নেই। আলোচনা করে নতুন শর্ত নিয়ে আলোচনাই হবে বুদ্ধিমানের কাজ,’ যোগ করেন তিনি।

এদিকে, নতুন করোনাভাইরাসের উৎপত্তিস্থল উহানকে কেন্দ্র করে নাটকীয়ভাবে চীন ও যুক্তরাষ্ট্রের কূটনৈতিক সম্পর্কের অবনতি হয়েছে। এর মধ্যে, চীন-যুক্তরাষ্ট্রের বৃহৎ অঙ্কের বাণিজ্য চুক্তি নিয়ে সমাঝোতায় পৌঁছাতে না পারলে বিশ্ব রাজনীতিতে দুই দেশের সম্পর্কে মারাত্মক প্রভাব পড়বে বলে মনে করছেন বিশেষজ্ঞরা।

Comments

The Daily Star  | English
fire incident in dhaka bailey road

Fire Safety in High-Rise: Owners exploit legal loopholes

Many building owners do not comply with fire safety regulations, taking advantage of conflicting legal definitions of high-rise buildings, according to urban experts.

6h ago