গণপরিবহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহারের দাবি যাত্রী কল্যাণ সমিতির

করোনাভাইরাস মহামারিকালে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের অজুহাতে গণপরিবহনের ৮০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়ার প্রস্তাব অনতিবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।
jatri-kalyan-1.jpg

করোনাভাইরাস মহামারিকালে স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণের অজুহাতে গণপরিবহনের ৮০ শতাংশ বর্ধিত ভাড়ার প্রস্তাব অনতিবিলম্বে প্রত্যাহারের দাবি জানিয়েছে বাংলাদেশ যাত্রী কল্যাণ সমিতি।

আজ শনিবার এক বিবৃতিতে সংগঠনের মহাসচিব মো. মোজাম্মেল হক চৌধুরী এই দাবি জানান।

তিনি বলেন, ‘সড়কে চাঁদাবাজি বন্ধের পদক্ষেপ না নিয়ে, জ্বালানী তেলের মূল্য না কমিয়ে, পরিবহনের চালক-শ্রমিকদের স্বাস্থ্যবিধি অনুসরণ সম্পর্কিত কোনো প্রকার প্রশিক্ষণ না দিয়ে, গণপরিবহন চালুর মধ্য দিয়ে জনগণকে চরম ঝুঁকির মধ্যে ফেলা হচ্ছে। সড়কে নারকীয় পরিবেশের কোনো প্রকার উন্নতি ঘটানো ব্যতিরেকে উল্টো গণপরিবহনের ভাড়া বাড়িয়ে দিয়ে সরকার সড়কে নৈরাজ্য ও যাত্রী হয়রানি আরও বৃদ্ধির সুযোগ তৈরি করেছে।’

তিনি আরও বলেন, ‘যেকোনো সংকটে বা অজুহাতে দেশে গণপরিবহনের ভাড়া বাড়ালে তা স্বাভাবিক সময়ে কমানোর কোনো নজির নেই। সরকার এক লাফে ৮০ শতাংশ ভাড়া বর্ধিত করলেও প্রকৃতপক্ষে বাস মালিকরা নানা ছলচাতুরী করে ১২০ থেকে ২০০ শতাংশ পর্যন্ত ভাড়া বাড়িয়ে দেবে।’

অনতিবিলম্বে গণপরিবহনের বর্ধিত ভাড়া প্রত্যাহার করে রাষ্ট্রীয় ভর্তুকি দিয়ে বিদ্যমান ভাড়ায় জনসাধারণকে যাতায়াতের সুযোগ করে দেওয়ার দারি জানিয়েছেন তিনি।

আরও পড়ুন:

প্রায় দ্বিগুণ হচ্ছে বাস ভাড়া

Comments

The Daily Star  | English

Govt may go for quota reforms

The government is considering a “logical reform” in the quota system in the public service, but it will not take any initiative to that end or give any assurances until the matter is resolved by the Supreme Court.

1d ago